Home > খেলাধুলা > চট্টগ্রামে জ্বলবে চিটাগং ভাইকিংস?

চট্টগ্রামে জ্বলবে চিটাগং ভাইকিংস?

হোটেল র্যাডিসন ব্লুর নিজের রুমে ঢুকে খুশিতে নেচে উঠল তামিম ইকবালের মন। আরে, ওই তো মাঠ! কী সবুজ তার রং! গ্যালারির নতুন রংটাও এখনো চকচকে। রুমে বসেই খেলা দেখা যাবে।
২১ তলা হোটেল থেকে দেখা এক টুকরো সবুজ ভূপৃষ্ঠ বিভ্রম ছড়াতেই পারে। তবে কাছে গিয়ে দাঁড়ালে এবড়োখেবড়ো আউটফিল্ড পরিষ্কার জানিয়ে দেয়, এমএ আজিজ স্টেডিয়াম এখন যতটা না ক্রিকেটের, তার চেয়ে বেশি ফুটবলের মাঠ। এ মাঠে কোনোরকমে অনুশীলন চালানো যায়। ক্রিকেট ম্যাচ খেলা কঠিন।
ক্ষণিক আনন্দে মন নেচে উঠলেও পরে আসল কথাটা মনে পড়েছে তামিমের। বিপিএলের চট্টগ্রাম পর্বের ম্যাচগুলো এমএ আজিজ স্টেডিয়াম থেকে সরে গেছে জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামে। ঘরে বসে খেলা দেখার সুযোগ তাই মিলছে না। তবু নিজের শহরে এসে চিটাগং ভাইকিংস অধিনায়কের কাল ব্যতিক্রমী একটা অভিজ্ঞতা ঠিকই হলো। অনুশীলনের জন্য হোটেল থেকে হেঁটে মাঠে আসা-যাওয়া করলেন তিনি এবং তাঁর বেশির ভাগ সতীর্থ। হোটেল-মাঠ-হোটেলের এটুকু পথেই তাদের পিছু নিয়েছে সমর্থক আর সেলফিশিকারির দল।
কিন্তু চট্টগ্রামের মাঠ কি পারবে চিটাগং ভাইকিংসের ভাগ্য বদলাতে? চার ম্যাচের তিনটিতেই হারা তামিমের দল ঘুরে দাঁড়াতে পারবে তিন ম্যাচে দুই জয় পাওয়া বরিশাল বুলসের বিপক্ষে?
আজ প্রথম ম্যাচ শেষেই মিলে যাবে প্রশ্নের উত্তর। তবে আশাবাদী তামিম অনুশীলন শেষে বলছিলেন, ‘প্রথম পর্ব খুব ভালো কাটেনি। কিছু ম্যাচ খুব কাছে গিয়ে হেরেছি। তবে যেটা চলে গেছে, সেটা অতীত। এখন আমাদের ঘরের মাঠ, নিজেদের দর্শক। একটু বাড়তি সুবিধা থাকবেই।’ চট্টগ্রামে যে চার দিন খেলা, চার দিনই মাঠে নামবে চিটাগং ভাইকিংস। আজ জয় দিয়ে শুরু করে ঘরের মাঠ থেকে সর্বোচ্চ সাফল্য নিয়ে ঢাকা ফিরতে চান তামিম।
চট্টগ্রামে খেলা বলে বাড়তি চাপও কি থাকবে না? তামিম সেটিকে জয় করতে চান আজকের ম্যাচেই, ‘এখন চাপ। একটা ম্যাচ জিতে গেলে সেটাই আবার অনুপ্রেরণা হয়ে যাবে।’ সে জন্য বোলারদের কাছ থেকে আরও বেশি চান অধিনায়ক। কথা শুনে তো মনে হলো, এখন পর্যন্ত তাঁর মন ভরাতে পেরেছেন শুধু পাকিস্তানের পেসার মোহাম্মদ আমিরই, ‘আমার দলের এই একজন বোলারই (আমির) এখন পর্যন্ত সত্যিকারের উইকেটশিকারি। কিন্তু দলে অনেকেই আছে নিয়মিত উইকেট নেওয়ার মতো। সময় হয়েছে ওদের নিজেদের মেলে ধরার।’
সেটা আজই হলে চট্টগ্রামের মাঠে বরিশাল বুলসের জন্য চ্যালেঞ্জ অপেক্ষা করছে নিশ্চিত। তা প্রতিপক্ষের ঘরের মাঠে ভাইকিংসদের মুখোমুখি হওয়ার আগে তাঁদের কী খবর? খবর হলো, ফর্ম ভালো নেই বলে আজ দলে না-ও থাকতে পারেন ব্রেন্ডন টেলর। রনি তালুকদারের দীর্ঘক্ষণ কিপিং অনুশীলন সে রকম আভাসই দিল।
বিপিএলের চট্টগ্রাম পর্বে সবচেয়ে চনমনে মাশরাফি বিন মুর্তজার কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানস। তাদের সঙ্গে রংপুর রাইডার্স আর ঢাকা ডায়নামাইটসের পয়েন্টও ৬, তবে নেট রানরেটে এগিয়ে থাকায় সবার ওপরে কুমিল্লার নামটাই লেখা এখন। ঢাকা থেকে আসার পথে কুমিল্লাবাসীর প্রাণঢালা সংবর্ধনায় সিক্ত দলটা। বিদেশি খেলোয়াড়েরা তো নাকি তাতে এতটাই আপ্লুত যে, কুমিল্লা থেকেই মুঠোফোনে অনুষ্ঠানের ছবি, গল্প ছড়িয়ে দিয়েছেন নিজেদের দেশে। কোচ মোহাম্মদ সালাউদ্দিনের কথায়ও বিস্ময়, ‘ভাবতেও পারিনি এত বড় সংবর্ধনা দেওয়া হবে! খুবই অভিভূত। তাদের উৎসাহে আরও ভালো খেলার চেষ্টা করব।’ তাঁর বিশ্বাস, ‘যে টিম স্পিরিট আছে, যেভাবে বোলিং-ব্যাটিং হচ্ছে, এভাবে এগোতে পারলে পরের ম্যাচগুলোতেও সমস্যা হবে না।’
টানা হারের মধ্যে থাকা সিলেট সুপারস্টারসের জন্য সুখবর, কুমিল্লার বিপক্ষে আজ সম্ভবত তারা টুর্নামেন্টে প্রথমবারের মতো পাচ্ছে চোট থেকে ফেরা পেসার রুবেল হোসেনকে। রুবেল আশাবাদী, চার ম্যাচের চারটিতেই হারা সিলেটের পক্ষে সম্ভব এখান থেকেও ঘুরে দাঁড়ানো।
বিপিএলের চট্টগ্রাম পর্বটা তাহলে ঘুরে দাঁড়ানো এবং এগিয়ে যাওয়ার মঞ্চই!

 

-প্রথম আলো

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ