Home > খেলাধুলা > খেলা ছাড়ার আগে প্রায়শ্চিত্ত করতে চাই: আশরাফুল

খেলা ছাড়ার আগে প্রায়শ্চিত্ত করতে চাই: আশরাফুল

খেলা ডেস্ক
জনতার বাণী,
ঢাকা: বাংলাদেশ ক্রিকেট
আজ পর্যন্ত যে ক’জন নামী
ক্রিকেট-ব্যক্তিত্বের জন্ম
দিয়েছে, তার মধ্যে তার
নামটা অগ্রগণ্য। দেশের
অধিনায়ক ছিলেন। বিশ্বকাপ
খেলেছেন। মোহম্মদ আশরাফুল
জীবনে আলো দেখেছেন
যেমন, অন্ধকারের গলিঘুঁজিও
তার জন্য অপেক্ষা করেছে
ঠিক ততটাই।
বাংলাদেশ প্রিমিয়ার
লিগে গড়াপেটা করে প্রথমে
আট, পরে কমে পাঁচ বছরের
নির্বাসন, যার মধ্যে দু’বছর মকুব
হওয়ার দিকে। ক্রিকেট-
হাজতবাসের যে মেয়াদ
ফুরোচ্ছে আগামী বছরের
আগস্টে।
মঙ্গলবার সন্ধ্যায় প্রাক্তন
অধিনায়ক ফোনে কলকাতার
আনন্দবাজার পত্রিকাকে
সাক্ষাৎকার দেন। ঢাকার
একটা সেলিব্রিটি ক্রিকেট
লিগে খেলার সময় সময় তিনি
এই সাক্ষাৎকার দেন।
মোহাম্মাদ আশরাফুলের
সাক্ষাৎকার নিচে তুলে ধরা
হলো;
প্রশ্ন: আপনাকে এখন রোজ
ঢাকার একটা মাঠে সকাল
ন’টা থেকে ব্যাট হাতে
দেখা যাচ্ছে বলে খবর।
আশরাফুল: এখন নয়, অনেক দিন
ধরেই তো যাচ্ছি। ঢাকার
গুলশন ইয়ুথ ক্লাবে। সকাল ন’টা
থেকে দেড়টা। রোজ নয়,
সপ্তাহে চার দিন।
প্রশ্ন: তিরিশ বছর বয়স আপনার।
এখন কোথায় কামব্যাক করবেন?
আশরাফুল: কেন, প্রথমে ঘরোয়া
ক্রিকেট। তার পর জাতীয় দল।
প্রশ্ন: তা বলে তখন প্রায়
বত্রিশে…
আশরাফুল: ভাল খেলতে
গেলে ভাল প্রস্তুতি দরকার।
বয়স নয়। মিসবা পঁয়ত্রিশে
পেরেছে। আপনাদের শচীনও।
তা হলে আমি পারব না কেন
বত্রিশে জাতীয় দলে
ফিরতে?
প্রশ্ন: কিন্তু আপনার জীবনে
এমন কামব্যাকের তো
প্রয়োজনই পড়ত না বছর দুয়েক
আগে গড়াপেটার কাণ্ডটা
না ঘটালে। ওটা করেছিলেন
কেন?
আশরাফুল: কেন যে
করেছিলাম, তার উত্তর আজও
আমি পাই না। বললে বিশ্বাস
করবেন কি না জানি না,
টাকার জন্য করিনি। প্রথমবার
বিপিএল থেকে যে টাকা
পাওয়ার কথা ছিল, পেলামই
না। তাতে তো কিছু বলিনি।
বলতে পারেন, পরিস্থিতি
আমাকে ওখানে ফেলে
দিয়েছিল।
প্রশ্ন: সেটা কী?
আশরাফুল: বলে বোঝানো
যাবে না। আর তাতে কিছু
পাল্টাবেও না। আর আমি তো
স্বীকার করি যে অত্যন্ত
অন্যায় করেছিলাম। আমাকে
নির্বাসনে পাঠানো একদম
সঠিক সিদ্ধান্ত।
প্রশ্ন: সাধারণত কাউকে কিন্তু
এভাবে ‘আমি অপরাধী’ বলতে
শোনা যায় না। গড়াপেটা
করলেও না।
আশরাফুল: ঠিক। কেউ এটা করে
না। কিন্তু আমি করি। আমি
জানি এই সময়টা কী রকম
গিয়েছে আমার। আমি জানি
আমার নিজের কষ্ট কতটা ছিল।
প্রশ্ন: লোকে কী বলত তখন?
আশরাফুল: কী আবার বলবে?
কেউ আশা করে যে দেশের
অন্যতম সেরা ক্রিকেটার
গড়াপেটা করবে? নিজে
বহুবার ভেবেছি এটা কী
করলাম? ক্রিকেট আমাকে এত
কিছু দিল, আর তার সঙ্গেই এটা
করলাম? পরে ভাবলাম,
প্রায়শ্চিত্ত করতে হবে।
প্রশ্ন: তাই আবার মাঠে
যাওয়া?
আশরাফুল: হ্যাঁ। আমি ঠিক করে
ফেলি যে অপরাধ স্বীকার
করব। যা শাস্তি দেবে, মেনে
নেব। তারপর ফিরব ক্রিকেটে।
দেশবাসীকে দুঃখ দিয়েছি।
ব্যাট হাতে আনন্দ দিয়ে তবে
খেলা ছাড়ব।
প্রশ্ন: বুধবার থেকে তো
ফতুল্লা টেস্ট শুরু। কী মনে
হচ্ছে?
আশরাফুল: বাংলাদেশ কিন্তু
ভাল করবে। সাকিব, তামিম,
মুশফিকুরদের এই ব্যাচটা খুব
ভাল। সাকিব, তামিমকে
ওদের অভিষেক থেকে
দেখছি।
প্রশ্ন: কিন্তু একটা ব্যাপার
ভেবে দেখেছেন? পরের বছর
জাতীয় দলে ফেরেনও যদি,
সাকিব-তামিম তো বটেই,
আপনাকে রুবেলের বয়সিদের
সঙ্গেও মানিয়ে নিতে হবে।
পারবেন?
আশরাফুল: কী আছে? বললামই
তো যে সাকিবদের অভিষেক
দেখেছি। ওদের সঙ্গেও
মানিয়ে নিয়েছিলাম।
প্রশ্ন: এমনি কামব্যাক এক
জিনিস। গড়াপেটা করে
ফেরা আর এক। আজহারকে
শোনা যায়, তার সতীর্থরা
একটা সময় ঝেড়ে ফেলতে
চেয়েছিলেন।
আশরাফুল: আজহার আর আমার
মধ্যে তফাত আছে। আমি ভুল
করেছিলাম। কিন্তু আজহার
হইনি। ও কি কিছু স্বীকার
করেছিল? শুনিনি তো। আমি
সেখানে টিমের সবার
কাছে আলাদা করে ক্ষমা
চেয়েছি। আমার মধ্যে সেই
দমটা আছে। এরপর জাতীয় দলে
ফিরলে যদি সতীর্থরা মেনে
না নেয়, আর কী করতে পারি।
কিন্তু এটাও বলতে চাই এটা
ক’জন পারে করতে? এশীয়
সংস্কৃতিতে এটা কখনো
হয়েছে কি?

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ