ইউনিসেফের জাতীয় শুভেচ্ছাদূত মুশফিক

জাতিসংঘ শিশু তহবিল বা ইউনিসেফের নতুন জাতীয় শুভেচ্ছাদূত হলেন মুশফিকুর রহিম। দেশব্যাপী শিশু অধিকার নিয়ে কাজ করবেন বাংলাদেশের ক্রিকেটার। রোববার সংস্থাটির ঢাকা কার্যালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

মুশফিক শিশুদের অধিকার ও যুবসমাজকে প্রভাবিত করা বিষয়গুলো নিয়ে সচেতনতা বাড়াতে সহায়তা করবেন। এর মধ্যে থাকছে শিক্ষার অধিকার, দারিদ্র্য ও বৈষম্যের প্রভাব, সহিংসতা, নির্যাতন এবং শোষণের বিরুদ্ধে সুরক্ষার জন্য শিশুদের প্রয়োজনীয়তা।

এক ভিডিও বার্তায় মুশফিক বলেন, ‘বাংলাদেশের শিশু অধিকারে উন্নতি আনতে আমি মানুষকে উৎসাহিত করবো। ইউনিসেফের সঙ্গে শিশুদের নিরাপদ, সুখী ও সুস্থ শৈশবের জন্য কাজ করতে আমি খুব আগ্রহী। এটি আমার কাছে একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় এবং আমি শিশু অধিকারের মুখপাত্র হতে পেরে আনন্দিত।’

বাংলাদেশের এই উইকেটরক্ষক ব্যাটসম্যান আরও বলেন, ‘আমি আশা করি সব শিশুর জন্য একটি সুন্দর জীবন গড়ে তোলার এই যাত্রায় আপনারা আমাদের সঙ্গে যোগ দেবেন। আসুন সব শিশুর জন্য উপযুক্ত একটি বাংলাদেশ সৃষ্টি করি।’

মুশফিকের আগে জাতীয় দলের ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান ও মেহেদী হাসান মিরাজ ইউনিসেফের জাতীয় শুভেচ্ছাদূত হিসেবে কাজ করছেন।

জাতিসংঘের এই বিশেষ সংস্থার বাংলাদেশ শাখার ডেপুটি রিপ্রেজেন্টেটিভ ভিরা মেনডোনকা বলেন, ‘আজ আমরা খুব গর্বিত মুশফিককে ইউনিসেফ পরিবারে আমাদের নতুন জাতীয় শুভেচ্ছাদূত হিসেবে স্বাগত জানাতে পেরে। মুশফিকের যে সম্মান ও প্রতিভা, তা সাহায্য করবে ইউনিসেফকে সারা দেশের মানুষের মাঝে গুরুত্বপূর্ণ বার্তা পৌঁছে দিতে। আপনার শক্তি ও নেতৃত্ব সব শিশুর জন্য একটি উজ্জ্বল ভবিষ্যত নিশ্চিত করতে সহায়তা করবে।’

দীর্ঘ ১৫ বছর ধরে বাংলাদেশ জাতীয় দলের জার্সিতে খেলা মুশফিক তিন ফরম্যাট মিলিয়ে প্রায় ১২ হাজার আন্তর্জাতিক রান করেছেন। যেখানে তার ব্যাট থেকে এসেছে ১৪ সেঞ্চুরি।

%d bloggers like this: