১৮০০ কেজি মাংস নিয়ে বিশ্বকাপে আর্জেন্টিনা-উরুগুয়ে

কাতারে বিশ্বকাপ চলাকালে ঘরোয়া খাবারের স্বাদ পেতে আর্জেন্টিনা ও উরুগুয়ের জাতীয় দল ৯০০ কেজি করে মাংস নিয়ে গেলো দেশটিতে।

উরুগুয়ের জাতীয় মাংস প্রতিষ্ঠান (আইএনএসি) উরগুয়ে এফএ’র (এইউএফ) সঙ্গে চলতি মাসের শুরুতে মাংস সরবরাহের চুক্তি করেছিল।

 

এইউএফ প্রেসিডেন্ট ইগনাসিও আলোনসো বলেন, ‘সর্বোৎকৃষ্ট পুষ্টি সঙ্গে পাবে জাতীয় দল। আমাদের দেশের ঐতিহাসিক প্রতিনিধিত্ব করে এইউএফ। এবার তারা আরেক প্রতিনিধি উরুগুয়ান মাংস, যেটা বিশ্বের সেরা মাংস, সেটা নিয়ে যাবে।’

আর্জেন্টিনা ও উরুগুয়ে বিশ্বের সবচেয়ে বড় মাংস উৎপাদনকারী দেশ। দেশ দুটিতে আসাডো সবচেয়ে জনপ্রিয় খাবার হিসেবে বিবেচিত। মাংস বড় বড় করে কেটে সসেজ ও গ্রিল করে রান্না করা হয়। সাম্প্রতিক বিশ্বকাপগুলোতে দুই দেশের জাতীয় দলই আসাডো খেয়েছে।

আবুধাবির বিলাসবহুল পার্ক হায়াট হোটেলে এরই মধ্যে প্রথম আসাডো বানিয়ে খেয়েছে উরুগুয়ের জাতীয় দল। বার্বিকিউয়ের দায়িত্বে ছিলেন দলের প্রধান শেফ আলডো কাউটেরুচ্চিও। বৃহস্পতিবার আমিরাতের বিপক্ষে ৫-০ গোলের জয়ের পর আসাডো খেয়ে উদযাপন করেছে আর্জেন্টিনা দল। এরপর তাদের ৭২ জনের দল কাতারে পৌঁছায়।

 

অবশ্য পাঁচবারের চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল আর্জেন্টিনা ও উরুগুয়ের মতো মাংস নিয়ে যায়নি। তিতের দল বিখ্যাত ব্রাজিলিয়ান কফি নিয়ে গেছে। এছাড়া জনপ্রিয় ব্রাজিলিয়ান খাবার ফারোফা বানাতে ৩০ কেজি কাসাভা ফ্লাওয়ার নিয়ে গেছে।

%d bloggers like this: