Home > রাজনীতি > ছাত্রলীগ থেকে ৩২ জনকে অব্যাহতি

ছাত্রলীগ থেকে ৩২ জনকে অব্যাহতি

ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির পদে থাকা বিতর্কিত ২১ নেতাকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে। এছাড়া নিজেদের আবেদনের প্রেক্ষিতে আরও ১১ নেতাকে অব্যাহতি দিয়েছে ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদ।

মঙ্গলবার রাতে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি আল নাহিয়ান খান জয় ও সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য স্বাক্ষরিত আলাদা দুটি প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

এ বিষয়ে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত) আল নাহিয়ান খান জয় বলেন, ‘আমরা অনেক যাচাই-বাছাইয়ের পর এই তালিকা প্রকাশ করেছি। দুটি তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। এর মধ্যে একটি তালিকায় তাদের নাম রয়েছে যারা নিজেরা বিবাহ, বয়সোত্তীর্ণ বা চাকরিজীবী হওয়ায় স্বেচ্ছায় ছাত্রলীগ থেকে অব্যাহতি চেয়েছে।

এ বিষয়ে ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) লেখক বলেন, বিভিন্ন অভিযোগের ভিত্তিতে ২১ জন এবং আবেদনের প্রেক্ষিতে ১১ জনের পদশূন্য করা হয়েছে।

অব্যাহতি দেয়া বিতর্কিত ২১ নেতার মধ্যে রয়েছে, সহ-সভাপতি পদে তানজিল ভূঁইয়া তানভির, আরেফিন সিদ্দিক সুজন, আতিকুর রহমান খান বরকত হাসেন হাওলাদার, শাহরিয়ার কবির বিদ্যুৎ, সাদিক খান, সাহোনী হাসান তিথী, মুনমুন নাহার বৈশাখী, আবু সাঈদ (সাস্ট), রুহুল আমিন, রাকিব উদ্দিন, সোহেল রানা এবং ইসমাইল হােসেন তপু। এছাড়া রয়েছেন, দপ্তর সম্পাদক আহসান হাবীব, ধর্ম সম্পাদক তাজ উদ্দিন, উপ-দপ্তর সম্পাদক মমিন শাহরিয়ার ও মাহমুদ আব্দুল্লাহ বিন মুন্সী, উপ-সাংস্কৃতিক সম্পাদক বি. এম, লিপি আক্তার ও আফরিন লাবনী, সহ-সম্পাদক সামিয়া সরকার ও রনি চৌধুরী।

অন্যদিকে, নিজেদের আবেদনের প্রেক্ষিতে অব্যাহতি প্রাপ্তরা হলেন, সহ-সভাপতি পদে তৌফিকুল হাসান সাগর, আমিনুল ইসলাম বুলবুল, শাহরিয়ার হাসান, হাফিজুর রহমান, হাসান আতিক। এছাড়া রয়েছেন, স্বাস্থ্য সম্পাদক শাহারিয়ার ফেরদৌস, উপ-স্বাস্থ্য সম্পাদক রাতুল সিকদার ও শাফিউল সাজিব, উপ-প্রচার সম্পাদক সিজাদ আরেফিন শাওন, উপ-পাঠাগার সম্পাদক রুশী চৌধুরী এবং সহ-সম্পাদক আঞ্জুমান আরা অনু।

প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের এক জরুরী সিদ্ধান্ত মোতাবেক এসব পদধারীদের সংগঠন থেকে অব্যাহতি প্রদান পূর্বক পদসমূহ শূন্য ঘোষণা করা হল।

প্রসঙ্গত, ছাত্রলীগের আংশিক কমিটি প্রকাশের প্রায় ১০ মাস পর গত ১৩ মে সংগঠনটির ৩০১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়। সেদিন সন্ধ্যায় কমিটিতে পদবঞ্চিত ও প্রত্যাশিত পদ না পাওয়া বিক্ষুব্ধ নেতা-কর্মীরা মধুর ক্যান্টিনে সংবাদ সম্মেলন করতে গেলে ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের অনুসারীরা তাঁদের ওপর হামলা চালান। এতে সংগঠনের কয়েকজন নারী নেতাসহ ১০-১২ জন আহত হন। এরপর বিতর্কিতদের বাদ দেওয়াসহ চার দফা দাবিতে কয়েক দফায় অবস্থান কর্মসূচি ও অনশন করেন পদবঞ্চিতরা।

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ