Home > রাজনীতি > আগামী নির্বাচনে খালেদার অংশগ্রহণের সুযোগ নেই: ইনু

আগামী নির্বাচনে খালেদার অংশগ্রহণের সুযোগ নেই: ইনু

নিজস্ব প্রতিবেদক
জনতার বাণী,
ঢাকা: বিএনপি চেয়ারপারসন
বেগম খালেদা জিয়ার
রাজনীতিকে ‘গণতন্ত্রের অচল
মাল’ অভিহিত করে তথ্যমন্ত্রী
ও জাসদ সভাপতি হাসানুল হক
ইনু বলেছেন, দেশের সমৃদ্ধির
মহসড়কে তার কোনো স্থান
হবে না।
মন্ত্রী বলেন, উন্নয়ন-সমৃদ্ধির
রাজনীতি থেকে খালেদা
নিজেই নিজেকে খরচের
খাতায় নিয়ে গেছেন। তাই
আগামী নির্বাচনে তার
অংশগ্রহণেরও কোনো সুযোগ
নেই।
শনিবার জাতীয় সংসদে
প্রস্তাবিত বাজেটের ওপর
সাধারণ আলোচনায় অংশ
নিয়ে এসব মন্তব্য করেন
তথ্যমন্ত্রী।
তিনি বলেন, ‘২০১৯ সালের
জাতীয় সংসদ নির্বাচন হবে
গণতান্ত্রিক শক্তির সঙ্গে
গণতান্ত্রিক শক্তির নির্বাচন।
সেই নির্বাচনে গণতন্ত্রের
অচল মাল সচল করার সুযোগ নেই।
খালেদা জিয়ারও
অংশগ্রহণের সুযোগ নেই।’
খালেদাকে জিয়াকে
উদ্দেশ্য করে তিনি আরো
বলেন, ‘আপনি না বুঝলেও
দলের নেতা-কর্মীরা, ও জনগণ
এটা বুঝে গেছে। এটাও বুঝে
গেছে আপনি যতই লম্ফঝম্প
করেন না কেন আগুনে মানুষ
পোড়ানো অপরাধে জনগণের
আদালত থেকে রেহাই
পাবেন না। আপনি যতই কৌশল
বদলান না কেনো, যতই মোদির
সঙ্গে করমর্দন করেন না কেন
আপনার রাজনীতির ইতিহাস
লেখা হয়ে গেছে। আপনাকে
রাজনীতির বাইরে থাকতে
হবে এবং আদালতের
বারান্দায় যেতে হবে।’
তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘অনেকে
ফ্যাশন করে বলেন গণতন্ত্রে
ঘাটতি আছে। গণতন্ত্র মাপবেন
কি দিয়ে? বাক স্বাধীনতা,
সংবাদপত্রের স্বাধীনতা ও
মতপ্রকাশের স্বাধীনতা
দিয়ে? এখানেও গণতন্ত্রের
কোনো ঘাটতি নেই।
বর্তমানে শেখ হাসিনার
নেতৃত্বে গণমাধ্যম স্বাধীন মত
প্রকাশের স্বর্ণযুগ পালন করছে।’
খালেদা জিয়ার
সমালোচনা করে ইনু বলেন,
‘শেখ হাসিনা নরেন্দ্র
মোদির সঙ্গে যে চুক্তি এবং
সমঝোতা স্বাক্ষর করেছেন
তার কোন চুক্তি
স্বাধীনতাবিরোধী,
দেশবিরোধী,
অর্থনীতিবিরোধী আপনি
(খালেদা) বলুন। আপনি কাল
যদি ক্ষমতায় আসেন তাহলে
কোন চুক্তিটি বাতিল করবেন
বলুন। আপনি একটিও বাতিল
করতে পারবেন না। কারণ এসব
চুক্তি দেশের জনগণের
স্বার্থেই হয়েছে।
খালেদাসহ যারা এনিয়ে
সমালোচনা করছেন তারা হয়
বোকা-মুর্খ আর না হয়
জ্ঞানপাপী।’
শেখ হাসিনার নেতৃত্বে
আরো কয়েক বছর দেশ
পরিচালিত হলে এই সংসদে ৭
লাখ কোটি টাকার বাজেট
দেয়া হবে বলেও দাবি করেন
হাসানুল হক ইনু।
‘বাজেট-রোজায়ও দ্রব্যমূল্য
বাড়েনি’
এবার বাজেট ঘোষণার পর
রোজার মধ্যেও নিত্য
প্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য বাড়েনি
দাবি করে তথ্যমন্ত্রী বলেন,
এবার সব কিছুই সরকারের
নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।
তথ্যমন্ত্রী বলেন, এবার
বাজেট ও রোজা একই সাথে
এসেছে। অতীতের
অভিজ্ঞতা হচ্ছে, যখনই
বাজেট আসে, তখনই বাজার
অস্থির হয়ে উঠে। যখন রজমান
আসে, জিনিসপত্রের দাম
বাড়ে। কিন্ত এবার একইসাথে
আসার পরও নিয়ন্ত্রণে আছে।
সরকারের প্রচেষ্টায় বাজার
নিয়ন্ত্রণে রয়েছে দাবি করে
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার
ভূয়সী প্রশংসাও করেন ইনু।
‘কয়েক বছর ধরে বাজার
নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। কেন? কেন
খালেদা-ফখরুদ্দিন পারল না।
শেখ হাসিনার হাতে
কোনো জাদুর কাঠি ছিল না।
শেখ হাসিনার সংবিধান ও
জনগণের প্রতি ভালোবাসা
রয়েছে। এ কারণে জনগণের
কষ্টে কাতর হন। এ কারণেই
বাজার নিয়ন্ত্রণে।’

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ