Home > রাজনীতি > আওয়ামী লীগের ৬৭ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ

আওয়ামী লীগের ৬৭ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী আজ

নিজস্ব প্রতিবেদক
জনতার বাণী,
ঢাকা: নানা কর্মসূচির মধ্য দিয়ে আজ
৬৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করছে
বাংলাদেশের অন্যতম প্রাচীন রাজনৈতিক
দল আওয়ামী লীগ।
সূর্যোদয়ের ক্ষণে কেন্দ্রীয় কার্যালয় ও
দেশব্যাপী দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও
দলীয় পতাকা তোলার মধ্য দিয়ে শুরু হয়
ক্ষমতাসীন দলের এই কর্মসূচি।
সকাল সাড়ে ৯টায় বঙ্গবন্ধু ভবনে
বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ
হাসিনার নেতৃত্বে শ্রদ্ধা জানান
কেন্দ্রীয় নেতারা। জাতীয় ও দলীয় পতাকা
উত্তোলন এবং জাতীয় সঙ্গীত
পরিবেশনের পর ওড়ানো হয় পায়রা ও
বেলুন।
বিকাল ৩টায় বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক
সম্মেলন কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ সভাপতি
ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে
আলোচনা সভা হবে।
প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে এক বাণীতে
শেখ হাসিনা বলেন, “স্বাধীনতা ও
গণতন্ত্রবিরোধী অপশক্তি এখনও
জনগণের উন্নয়নকে নস্যাৎ করার
অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। বাংলাদেশের
শান্তিপ্রিয় জনগণ এসব অপশক্তির
বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াবে এবং সকল ষড়যন্ত্র
নস্যাৎ করে দেবে- এ আমার দৃঢ় বিশ্বাস।”
বাঙালি জাতির প্রতিটি অর্জনের পেছনে
আওয়ামী লীগের সংগ্রামী ভূমিকার কথাও
স্মরণ করেন তিনি।
১৯৪৯ সালের এদিনে প্রতিষ্ঠিত এই দলটি
বাংলাদেশের স্বাধীনতা ও মুক্তিযুদ্ধসহ
প্রতিটি গণতান্ত্রিক, রাজনৈতিক ও
সামাজিক আন্দোলনে নেতৃত্ব দেয়।
আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ
আশরাফুল ইসলাম এ দলটিকে দেশের
অন্যতম প্রাচীন সংগঠন হিসেবে
আখ্যায়িত করে বলেন, ভাষা, স্বাধিকার,
গণতন্ত্র ও স্বাধীনতা অর্জনে মহোত্তম
গৌরবে অভিষিক্ত আওয়ামী লীগের সাত
দশকের অভিযাত্রায় শান্তি, সমৃদ্ধি ও দিন
বদলের লক্ষ্যে অবিচল আওয়ামী লীগ
বাঙালি জাতির মুক্তির দিশারী।
তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের অর্জন
পাকিস্তান আমলের গণতান্ত্রিক মানুষের
অর্জন, এই দলের অর্জন বাংলাদেশের
অর্জন।
প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালনের লক্ষ্যে
বিস্তারিত কর্মসূচি গ্রহণ করেছে দলটি।
কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে সূর্য ওঠার সাথে
সাথে দেশব্যাপী দলীয় কার্যালয়ে জাতীয়
ও দলীয় পতাকা উত্তোলন, সকাল ৭টায়
বঙ্গবন্ধু ভবনে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে
শ্রদ্ধার্ঘ্য নিবেদন, সকাল ৭টা ১৫ মিনিটে
বঙ্গবন্ধু ভবন প্রাঙ্গণে জাতীয় ও দলীয়
পতাকা উত্তোলন, জাতীয় সঙ্গীত
পরিবেশন, পায়রা উন্মুক্ত ও বেলুন উড়ানো
এবং দুপুর তিনটায় বঙ্গবন্ধু আর্ন্তজাতিক
সন্মেলন কেন্দ্রে আলোচনা সভা।
আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী
শেখ হাসিনা এত সভাপতিত্ব করবেন।
পুরনো ঢাকার ঐতিহ্যবাহী রোজ গার্ডেনে
আওয়ামী মুসলিম লীগ নামে এই দলের
আত্মপ্রকাশ ঘটলেও পরে শুধু আওয়ামী
লীগ নাম নিয়ে অসাম্প্রদায়িক সংগঠন
হিসেবে বিকাশ লাভ করে।
প্রতিষ্ঠার পর থেকেই এ দেশে পাকিস্তানি
সামরিক শাসন, জুলুম, অত্যাচার-নির্যাতন
ও শোষণের বিরুদ্ধে সকল আন্দোলন-
সংগ্রামে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছে এ
দলটি।
‘৫২-এর ভাষা আন্দোলন, ‘৫৪-এর
যুক্তফ্রন্ট নির্বাচন, আইয়ুবের সামরিক
শাসন-বিরোধী আন্দোলন, ‘৬৪-এর
দাঙ্গার পর সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি
প্রতিষ্ঠা, ‘৬৬-এর ছয় দফা আন্দোলন ও
‘৬৯-এর গণঅভ্যুত্থানের পথ বেয়ে
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে
আওয়ামী লীগের ২৪ বছরের আপোষহীন
সংগ্রাম-লড়াই এবং ১৯৭১ সালের নয়
মাসের মুক্তিযুদ্ধ তথা সশস্ত্র জনযুদ্ধের
মাধ্যমে বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা লাভ করে।
ওই বছরের ১৬ ডিসেম্বর চূড়ান্ত বিজয়
অর্জনের মধ্যদিয়ে প্রতিষ্ঠিত হয়
বাঙালির হাজার বছরের লালিত স্বপ্নের
ফসল স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশ।

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ