Home > রাজনীতি > বন্যার্তদের জন্য সরকারের উদ্যোগ দেখছেন না রিজভী

বন্যার্তদের জন্য সরকারের উদ্যোগ দেখছেন না রিজভী

জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক :

ভয়াবহ বন্যায় আক্রান্ত দেশের উত্তরাঞ্চলের বানভাসি মানুষের জন্য সরকারের ‘দৃশ্যমান কোনো উদ্যোগ’ দেখছেন না বিএনপি নেতা রুহুল কবির রিজভী।

দুর্গতদের জন্য ‘সরকারের ত্রাণ তৎপরতা নেই’ মন্তব্য করে বিএনপি নেতা-কর্মীদের অসহায়দের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বানও জানান তিনি।

বুধবার দুপুরে রাজধানীর নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে আয়োজিত এক দোয়া মাহফিলপূর্ব সংক্ষিপ্ত বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জন্মদিন উপলক্ষে এর আয়োজন করে জাতীয়তাবাদী মহিলা দল।

রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘সারাদেশের বন্যার্তদের জন্য সরকারের ত্রাণ তৎপরতা নেই এবং উপদ্রুত এলাকা থেকে মানুষকে যে উঁচু জায়গায় সরিয়ে নিতে হবে এরও দৃশ্যমান কোনো তৎপরতা নেই।’

‘অসংখ্য মানুষ এখনও পানিবন্দি এবং তারা যে রান্না করে খাবে, চাল-ডাল দিলেও কোনো কিছু করতে পারছে না। কোথাও রান্না করে নিয়ে যাবে সেই উপায় নেই। রেললাইন  ভেসে গেছে, রাস্তা-ঘাট ভেসে গেছে। মানুষের কাছে ত্রাণ পৌঁছাচ্ছে না। সরকার শুধু লিপ সার্ভিস দিয়ে যাচ্ছে।”

১৫ আগস্ট শোক দিবসকে কেন্দ্র করে ক্ষমতাসীন দলের নেতা-কর্মীরা ‘চাঁদাবাজি’তে নেমেছে মন্তব্য করে বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘৭৫ এর ১৫ আগস্ট যে মর্মান্তিক হত্যাকাণ্ড হয়েছে, সেটার জন্য আমরাও দুঃখ প্রকাশ করি। কিন্তু শোকাবহ ঘটনা গোটা জাতির ওপর শোকের যে অনুভূতি তা আপনারাই নষ্ট করে দিচ্ছেন।’

‘পানের দোকানদারের কাছ থেকে ৫০০ টাকা, সাইকেলের মিস্ত্রির কাছ থেকে ৩০০ টাকা, মুদির দোকানদারের কাছ থেকে ১ হাজার টাকা-এভাবে পকেট কাটতে কাটতে গোটা জাতিকে কাঁদাচ্ছেন। এভাবে জোর করে সহানুভূতি আদায় করা যায় না।”

ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায় নিয়ে আইন কমিশনের চেয়ারম্যান এবিএম খায়রুল হকের অবস্থানের কঠোর সমালোচনা করেন বিএনপির এই জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব।

‘এতবড় অনুগত, এত বড় আত্মাবিক্রিকারী মানুষ যিনি সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতির পদ অলংকৃত করেছিলেন। এই ধরনের লোকরা সমাজে থাকলে ন্যায়বিচার থাকবে না, মানুষের নাগরিক অধিকার থাকবে না, মানুষের চলাচল নির্বিঘ্ন হবে না, নারী নির্যাতন হতেই থাকবে। কারণ ওরা তো শেখ হাসিনার কথায় রায় দেন, ওরা বিবেক দিয়ে রায় দেন না।”

রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘ক্ষমতাসীনরা আজকে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়ায় ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়ে ছোটাছুটি করছেন। যখন এই ভয়ঙ্কর দুঃশাসনের মধ্যে প্রধান বিচারপতি মানুষের চিন্তা-চেতনা ও আশা-আকাঙ্খায় ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায় দিয়েছেন, এতে গোটা জাতির মধ্যে আশাবাদ ফুটে উঠেছে। একে ঠেকাবার জন্য প্রধান বিচারপতিকে ওবায়দুল কাদেররা কী পদত্যাগ করতে বাধ্য করছেন, না অন্যকিছু করতে বাধ্য করাচ্ছেন?’

সংগঠনের যুগ্ম সম্পাদক হেলেন জেরিন খানের সভাপতিত্বে  আরো বক্তব্য রাখেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ, মহিলা দলের সভানেত্রী আফরোজা আব্বাস, সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদ, কেন্দ্রীয় নেত্রী পেয়ারা মোস্তফা, শামসুন্নাহার ভুঁইয়া বক্তব্য রাখেন।

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ