Home > অন্যান্য > গেল্ব পরিকল্পনা

গেল্ব পরিকল্পনা

নরওয়ে অভিযান সমাপ্ত হওয়ার আগেই জার্মান-ফ্যাসিস্ট সেনাপতিমণ্ডলী ‘গেল্ব’ পরিকল্পনা (হলদে পরিকল্পনা) বাস্তবায়নের কাজে হাত দিল। এ পরিকল্পনা অনুসারে লুক্সেমবার্গ, বেলজিয়াম ও নেদারল্যান্ডসের ভেতর দিয়ে ফ্রান্সের ওপর বিদ্যুৎগতিতে আঘাত হানার কথা। ফ্রান্সের বিরুদ্ধে অভিযানের উদ্দেশ্য- পশ্চিম ইউরোপে মিত্র বাহিনীগুলোকে বিধ্বস্ত করা, হল্যান্ড ও বেলজিয়াম দখল করা, ফ্রান্সকে যুদ্ধ থেকে সরিয়ে দেয়া এবং ইংল্যান্ডকে ফ্যাসিস্ট জার্মানির পক্ষে লাভজনক শান্তি চুক্তি স্বাক্ষর করতে বাধ্য করা।

ফ্রান্সকে পরাস্তকরণের উদ্দেশ্যে জার্মান-ফ্যাসিস্ট সেনাপতিমণ্ডলী গৃহীত পরিকল্পনাটি ছিল এরূপ : ৪র্থ, ১২শ, ১৬শ বাহিনীগুলো, একটি ট্যাংক গ্রুপ ও ১৫শ স্বতন্ত্র ট্যাংক কোর নিয়ে গঠিত ‘অ’ বাহিনীগুলোর গ্রুপটির (অধিনায়ক জেনারেল গ. রুন্ডস্টেড্ট) শক্তি দিয়ে পশ্চিম রণাঙ্গনের মধ্যভাগে প্রধান আঘাত হানা। ফৌজগুলোর এই গ্রুপিংয়ে ছিল ৪৫টি ডিভিশন, যার মধ্যে ৭টি ট্যাংক ডিভিশন। আকাশ থেকে তাকে সমর্থন জোগাচ্ছিল ৩য় বিমান বহর, যাতে বিমানের সংখ্যা ছিল প্রায় ১ হাজার। ফৌজগুলোকে এরূপ দায়িত্ব দেয়া হল : লুক্সেমবার্গের ভূখণ্ড ও বেলজিয়ান আর্দেনে অতিক্রম করতে হবে, যেখানে ফরাসিরা ট্যাংকের প্রয়োগ প্রত্যাশা করছিল না, পরে সেদান ও স্তেনে রণাঙ্গনে মাস নদীতে পৌঁছতে হবে এবং মাজিনো প্রতিরক্ষা লাইনের সঙ্গে মিত্র বাহিনীগুলোর প্রথম গ্র“পের সংযোগস্থলে প্রবেশ করতে হবে। এরপর আক্রমণাভিযান চালাতে হবে আরাস ও বুলোন অভিমুখে, ইংলিশ প্রণালীর তীরে পৌঁছতে হবে, বেলজিয়ামে ইঙ্গ-মার্কিন বাহিনীগুলোকে ঘিরে ফেলতে হবে এবং ‘ই’ বাহিনীগুলোর গ্রুপের সঙ্গে সহযোগিতায় ওগুলোকে ধ্বংস করতে হবে। এ কাজে প্রধান ভূমিকা পালন করে জেনারেল এ. ক্লেইস্টের ট্যাংক গ্রুপ (১, ২৫০টি ট্যাংক) এবং জেনালেল গ. গটের ট্যাংক কোর (৫৪২টি ট্যাংক)।

পশ্চিম রণাঙ্গনের ডান পাশে সহায়ক আঘাত হানা হচ্ছিল ১৮শ, ৬ষ্ঠ বাহিনীগুলো ও ১৬শ স্বতন্ত্র ট্যাংক কোর- সর্বমোট ২৯টি ডিভিশন, যার মধ্যে ৩টি ট্যাংক ডিভিশন- নিয়ে গঠিত ‘ই’ বাহিনীগুলোর গ্রুপটির (অধিনায়ক জেনারেল ফ. বক) শক্তি দিয়ে। আকাশ থেকে গ্রুপটিকে সমর্থন জোগাচ্ছিল ২য় বিমান বহর। নির্দেশ দেয়া হয় যে, ১৮শ বাহিনীর শক্তিকে (পদাতিক ডিভিশন- ৭, ট্যাংক ডিভিশন- ১, মোটরাইজড ডিভিশন- ১, অশ্বারোহী ডিভিশন- ১) হল্যান্ডে প্রবেশ করতে হবে, প্যারাট্রুপার আর বায়ুসেনার ইউনিটগুলো দিয়ে হ্যাগ, রটার্ডাম দখল করতে হবে এবং ওলন্দাজ বাহিনীর প্রতিরোধ দমন করতে হবে। ১৮শ বাহিনীর শক্তিসমূহ রটার্ডাম অঞ্চলে ঢুকে পড়ার ও বায়ুসেনার ইউনিটগুলোর সঙ্গে মিলিত হওয়ার আদেশ পেল।

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী
শিরোনামঃ