Home > অন্যান্য > ফিচার > রক্তাক্ত বড়দিন

রক্তাক্ত বড়দিন

যুক্তরাষ্ট্রের শিকাগো শহরের বিভিন্ন এলাকায় এবারের বড়দিন ঘিরে বন্দুক হামলার এক রক্তাক্ত অধ্যায়ের সৃষ্টি হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, শুক্রবার থেকে গতকাল মঙ্গলবার পর্যন্ত শিকাগোয় বন্দুক হামলায় ১১ জন নিহত এবং ৬০ জন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। আহতদের অনেকের অবস্থাই বেশ সংকটজনক। খবর ফক্সনিউজ ও শিকাগো ট্রিবিউনের।

শুধু স্থানীয় সময় সোমবারেই শিকাগোর গ্রেশাম এলাকায় ১৬ জন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। সেখানকার এক ঘটনায় পার্কে রাখা গাড়িতে গুলি করে দুই ব্যক্তি। গাড়ির মধ্যে থাকা ১৪ ও ১৩ বছর বয়সী দুই কিশোরী গুলিবিদ্ধ হয়। এদিকে গুলিবিদ্ধ ৬০ জনের মধ্যে ১১ জন এরই মধ্যে মারা গেছেন। বড়দিনের ছুটিতে শহরটির বিভিন্ন স্থানে ৮টি গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। এর মধ্যে দুটি ঘটনায় দু’জন করে নিহত হয়েছেন। প্রতিবেশী এলাকা ইস্ট চাথামে দু’জন নিহত ও ৫ জন আহত হন। অস্টিন এলাকায় নিহত হন দু’জন। শিকাগো ট্রিবিউন পৃথক একটি ঘটনার কথা জানিয়েছে। ওই ঘটনায় বড়দিনের একটি পারিবারিক পার্টিতে আচমকা এক বন্দুকধারী এসে এলোপাতাড়ি গুলি চালাতে থাকে। জেমস গিলস নামে ১৮ এবং রয় গিলস নামে ২১ বছরের দুই তরুণ ঘটনাস্থলে নিহত হন। এ সময় পাঁচজন আহত হন, যাদের মধ্যে দু’জনের অবস্থা সংকটজনক।

শিকাগো পুলিশের মুখপাত্র অ্যান্থনি গোগলেইমি জানান, বেশিরভাগ গোলাগুলির ঘটনাই গ্যাংস্টারদের জন্য কুখ্যাত শিকাগোর দক্ষিণ ও পশ্চিম এলাকায় ঘটেছে। তিনি আরও বলেন, এসব গোলাগুলির ঘটনার ৯০ শতাংশই কোনো কোনো গ্যাংস্টার গ্রুপের সঙ্গে সম্পর্কিত ব্যক্তি ঘটিয়েছে, যাদের অপরাধের ইতিহাস রয়েছে। নেয়ার ওয়েস্ট সাইড, নর্থ কিলার এভিনিউ, ওয়েস্ট গল উড, ব্যাক অব দ্য ইয়ার্ড, সাউথ হার্মিটেজ স্ট্রিট, ওয়েস্ট আর্থিটন স্ট্রিট, সাউথ মে স্ট্রিট, সাউথ কটেজ গ্রোভ এভিনিউ, সাউথ রিজওয়ে এভিনিউ, ওয়েস্টমাকওয়েট্টে রোডসহ আরও অনেক এলাকায় এক বা একাধিক গোলাগুলির ঘটনা ঘটে।

এর কয়েক ঘণ্টা আগে সাউথ সাইড হাসপাতালে ৪০ বছরের গুলিবিদ্ধ এক ব্যক্তিকে মৃত ঘোষণা করা হয়। অ্যাপস্টলিক লেবার অব লাভ চার্চে এক বন্দুকধারীর হামলায় আহত হওয়ায় হাসপাতালে আনা হয় তাকে। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় লোকটি মারা যান।

শিকাগো পুলিশ বিভাগের মুখপাত্র হোস এস্ট্রডা নিউইয়র্ক টাইমসকে জানিয়েছেন, এ বছর এই শহরে ৭৪৫টি হত্যার ঘটনা ঘটেছে। গত বছরে ৪৭৬টি হত্যাকাণ্ড ঘটেছিল। ১৯৯৭ সালে এ ধরনের ৭শ’রও বেশি হত্যাকাণ্ড ঘটেছিল ।

এস্ট্রডা আরও জানিয়েছেন, ২০১৫ সালে শিকাগোয় বন্দুক হামলার শিকার হয়েছিলেন ২ হাজার ৮৮৪ জন। এ বছর সেই সংখ্যা ৪৭ শতাংশ বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ২৫২ জনে। হামলার শিকার অধিকাংশই অনূর্ধ্ব ৩০ বছরের তরুণ। লস অ্যাঞ্জেলেস ও নিউইয়র্ক শহর মিলে এ বছর যতগুলো হত্যাকাণ্ড হয়েছে, তার চেয়ে বেশি হয়েছে এক শিকাগো শহরেই।

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ