Home > অন্যান্য > ফিচার > কালো শব্দের আড়ালে সৌন্দর্য যখন হারিয়ে যায়

কালো শব্দের আড়ালে সৌন্দর্য যখন হারিয়ে যায়

বিথী হক: আমি কালো। কেউ কেউ বলেন উজ্জ্বল শ্যামলা। কেউ কেউ আদিখ্যেতা করে বলেন ‘কৃষ্ণকলি’। কে কী বললো, তাতে যেমন আমার বা আপনার চামড়ার রং উঠানামা করবে না, হেরফের হবে না ব্যক্তিত্বেরও। কিন্তু অদ্ভুত লাগে যখন দেখি কেউ করুণা করে কালো না বলে বিভিন্ন বিশেষণে বিশেষায়িত করে, কালো রঙের অস্তিত্ব এড়িয়ে অন্য কোন উপায়ে সুন্দর বলতে চান। আচ্ছা কাউকে কালো ভাবলে কি আর সুন্দর ভাবা যায় না? বা সুন্দররা কালো হতে পারে না?

সৌন্দর্য্য আসলে কোথায় থাকে, ঠিক কী কী বৈশিষ্ট্যের অধিকারী হলে একজনকে সুন্দর বলা যায়? এবং তার সাথে রঙের সম্পর্কটা ঠিক কতোটা গভীর?

bithy-5কালোরাও যে সুন্দর হয় এটা বোঝানোর জন্য মহৎ হৃদয়ের মানুষ-জন নাক খাড়া, চোখ টানাটানা, চুল লম্বা, দাঁত সুন্দর, চোখা থুতনি ইত্যাদি বিশেষণ ব্যবহার করে থাকেন। আমি সত্যিই জানি না কেউ কালো হলে এবং এসব বৈশিষ্ট্যের কোনটাই তার না থাকলে সে সুন্দর হতে পারে কি না? কিংবা সুন্দর হওয়াটা কি আদৌ খুব জরুরি বিষয়? সুন্দর না হলে কী কী ক্ষতি হয়?

ছেলে বা মেয়ে যে কেউই কালো হতে পারে, তবে ছেলেরা কালো হোক বা ফর্সা হোক তাতে নাকি তাদের যোগ্যতার কোন হেরফের হয় না। তাই বাধ্য হয়ে ছেলেদের কথা উল্লেখ না করে শুধু মেয়েদের নিয়েই বললাম। মেয়েরা ছবি আপলোড দিলেই একশ্রেণীর নোংরা লোক আক্রমণ করতে থাকে।

“ইশ, আপনার গায়ের রংটা যদি আরেকটু ফর্সা হতো”, “আহ, একটু সুন্দর চেহারা থাকলে না জানি কি করতো”, “আপনি সুন্দর, কিন্তু গায়ের রংটা উজ্জ্বল হলে মানাতো বেশি”!!!

আমি অবাক হতে থাকি, মানুষ কত অসভ্য হলে এমন করে কাউকে বলতে পারে! ক’দিন আগে আমার এক বন্ধুকে দেখলাম কালো রং নিয়ে ফ্রাস্ট্রেইটেড হয়ে স্ট্যাটাস দিতে। তার কথায় স্পষ্ট, আক্রমণের শিকার হয়ে মানসিক সৌন্দর্য্যের কড়া কড়া কথা না শোনানোর অনুরোধ ছিল। আমি বুঝি মানুষের সে নোংরা খোঁচা, এটাও জানি তাকে এই খোঁচায় কতটা ব্যথা দেয় মানুষ।

কারো কালো মেয়ে হয়েছে শুনলে পাড়া-পড়শীর মাথা ধরে যায়, এই কালো মেয়ের বিয়ে হবে কেমন করে? কিংবা বিয়ে দিতে হলে যে মোটা অংকের টাকা লাগবে তা দেওয়ার সামর্থ্য বাবা-মায়ের আছে কিনা ইত্যাদি। যেন এই কালো মেয়েটার চিন্তা শুধু বাবা-মায়ের নয়, আশে-পাশের সকল মানুষের। মানে এটি একটি সামাজিক ইস্যু এবং বৃহত্তর অর্থে বোঝাতে চাইলে রাষ্ট্রীয় ইস্যু বললেও কিছু ভুল হবে বলে মনে হয় না।

এই সুযোগ পুঁজিবাদ দুনিয়াও হাতছাড়া করেনি। পৃথিবীর সমস্ত কিছুকে পণ্য বানাতে বানাতে কালো মানুষের রংকে ফ্রাস্টেইশন বানিয়ে একের পর এক রং ফর্সাকারী ক্রিমের বাণিজ্যিকীকরণ ঘটিয়ে যুগ যুগ ধরে রমরমা ব্যবসা করে যাচ্ছে। আর মেয়েরাও মানুষের চোখে নিজেকে সুন্দর দেখানোর জন্য বস্তা বস্তা মেক-আপ, মরা মানুষের মত সাদা রঙের জন্য কাঁড়ি কাঁড়ি টাকা ঢেলে আগুনে ঘি ঢালার মহৎ কাজটি করে যাচ্ছেন। যেন ফর্সা বা সুন্দর না হতে পারাটা জীবনের সবচেয়ে বড় ব্যর্থতা। এ ব্যর্থতা না ঢাকতে পারলে জীবনে ভাল কিছু করা তো দূরের কথা কিচ্ছুই করা সম্ভব নয়।

আজকাল তাই সমাজের চোখ ঢাকতে আর ছেলেদের মন রাখতে মেয়েরা সাজে। সাজগোজ নি:সন্দেহে ভাল কথা। তাতে আত্মবিশ্বাস বাড়ে, মন ভাল হয়, কাজে মনও বসে অনেকের। কিন্তু নিজেকে বদলাতে অর্থাৎ নিজের যে আত্মবিশ্বাস নেই সেটা ঢাকতে বা হীণমন্যতা ঢাকতে যে সাজ, সে সাজকে আমার জঘণ্য লাগে। বস্তা বস্তা মেক-আপ নিয়ে কালো রং এর আত্মবিশ্বাস ঢেকে ধবধবে সাদা হয়ে মানুষের সামনে গেলে কারো যোগ্যতা কি আকাশ ছুঁই ছুঁই করবে?

দু’দিন পর মেক-আপ ছাড়া দেখে পেছনে যেসব কথা বলবে সেসব অপমান শোনার পথটা নিজেই তৈরি করে দেওয়াটা কি খুব বুদ্ধিমানের কাজ বলে অবলা সৌন্দর্য্যের আধার নারীকূলের বিশ্বাস? মেইক-আপ দিয়ে নিজের সত্ত্বা ঢেকে ফেলে কি সবার খুব সুখী সুখী লাগে? এত মানসিক দৈন্যতা আর নিজেকে কম যোগ্যতার বলে পরোক্ষ ঘোষণা দেওয়ার মাঝে অন্যেরা সুখ খুঁজে পেলেও এটা ঠিক কতটা গ্রহণযোগ্য তা নিয়ে গবেষণা করা যেতে পারে।

নারীরা নিজের জন্য না সেজে বরং নিজেকে পণ্য বানানোর জন্য সাজে, এটা ভাবতে আমার খারাপ লাগে। কেউ নিজেকে নিয়ে সুখী না, নিজের যা কিছু আছে আছে সেসবে সন্তুষ্ট না এটা ভাবলে আমার পর্যন্ত কষ্ট হয় কিন্তু সুখী সুখী সেসব মানুষের কিছু মনে হয় না। কারো সম্ভবত নিজের জন্য প্রেম নেই। নিজের জন্য কেউ সাজে নাকি এটা তারা কোনদিন হয়ত ভাবেই না। তারা জানেই না, চোখে কাজল দিয়ে নিজের চোখের দিকে তাকিয়ে নিজের প্রতি যে মায়া লাগে তা কতটা দরকারী। তারা জানেই না নিজের দিকে তাকিয়ে নিজের প্রেমে পড়াটাও একটা জরুরী বিষয়। যে বিষয়টা অন্যের প্রেমে পড়ার চেয়েও বেশি জরুরী। জানে না বলেই এখনকার ছেলেমেয়েরা নিজেকে বোঝে না, অন্যকে বোঝার ব্যাপারটাও যে তারা বোঝেনা এটাও বোঝে না।

সুন্দর মানে অন্যকিছু। সুন্দর মানে শুধু সুন্দর, যাকে দেখলে, কথা বললে নিজেকেই সুন্দর মনে হয় সেই সুন্দর। সাদা বা কালো রঙের সাথে যার বিন্দুমাত্র কোন সম্পর্ক নেই। নিজের জন্য যেমন বাঁচতে হয়, নিজের জন্য তেমন সাজতে হয়। গায়ের রং ঢাকতে নয়, নিজের মানসিক পীড়াকে সর্বস্তরের মানুষের চোখে গল্প করার মত উপভোগ্য বস্তু বানাতেও নয়। এসক্রাইবড সবকিছু নিয়ে যে নিজেকে ভালবাসতে পারে এবং অন্যকে ভালবাসতে পারে, তার চেয়ে সুন্দর কি সত্যিই আর কেউ আছে?

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ