Home > জাতীয় > ১০ জনকে হত্যার হুমকি, তদন্তে পুলিশের বিশেষ টিম

১০ জনকে হত্যার হুমকি, তদন্তে পুলিশের বিশেষ টিম

নিউজ ডেস্ক
জনতার বাণী,
ঢাকা: একের পর এক ব্লগার
হত্যার পর এবার
বাংলাদেশের ১০ জন
বিশিষ্ট নাগরিক ও
বুদ্ধিজীবীকে হত্যার হুমকি
দেয়া হয়েছে। পুলিশ বলছে,
তারা এই হত্যার হুমকির
ঘটনা তদন্ত করে দেখছে।
এদিকে, যাদের হত্যার
হুমকি দেয়া হয়েছে
তাদের নিরাপত্তা
বাড়ানোর কথা বলেছেন
স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী।
তবে পুলিশ নিশ্চিত নয়,
যারা হুমকি দিয়েছে
তারা নতুন কোনো জঙ্গি
সংগঠনের সদস্য কিনা।
বুধবার ‘আলকায়েদা-
আনসারুল্লাহ
বাংলাটিম:১৩’ নামে
একটি সংগঠন ঢাকা
বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি
অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন
সিদ্দিক, অধ্যাপক মুহম্মদ
জাফর ইকবাল, প্রধানমন্ত্রীর
উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম,
গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র
ডা. ইমরান এইচ সরকার,
তারানা হালিম, জগন্নাথ
হলের প্রাধ্যক্ষ অসীম সরকার,
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের
শিক্ষক কাবেরী গায়েন,
বিকাশ সাহা, ইকবালুর রহিম
ও পলান সুতার– এই ১০ জনকে
হত্যার হুমকি দিয়ে চিঠি
পাঠায়। তাদের মধ্যে
বিকাশ সাহা ও পলান
সুতারের পরিচয় সম্পর্কে
এখনো নিশ্চিত হতে
পারেনি পুলিশ।
ডাকযোগে পাঠানো ওই
চিঠি বুধবার বেলা সাড়ে
১১টার দিকে পান ভিসি
আরেফিন সিদ্দিক।
অন্যান্যরাও একই দিনে এই
চিঠি পান। আনসারুল্লাহ
বাংলাটিম-১৩ গ্রুপের
পাঠানো চিঠিতে লেখা
রয়েছে ‘মাস্ট ইউ উইল
প্রিপেয়ার ফর ডেড’।
তালিকায় সবার নামের
পাশেই সংক্ষেপে তাদের
‘অপরাধের’ কথাও উল্লেখ
আছে। তালিকার ক্রমিক
অনুযায়ী এক নম্বরে
উপদেষ্টা এইচ টি ইমামের
নামের পাশে লেখা
রয়েছে ‘অ্যান্টি
ইসলাম.অ্যাডভাইজার’। দুই
নম্বরে ঢাকা
বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি
আরেফিন সিদ্দিকের
নামের পাশে লেখা ‘আই.
দুশমুন.ভিসি’।
এরপর রয়েছে তারানা
হালিম (নাস্তিক), জগন্নাথ
হলের প্রাধ্যক্ষ অসীম সরকার
(হিন্দু মৌলবাদ), ইমরান এইচ
সরকার (ব্লগার), কাবেরী
গায়েন (আই.এনিমি.ডিইউ),
বিকাশ সাহা (ইসলামের
দুশমন), ইকবালুর রহিম (আই.
দুশমুন), পলান সুতার
(এন্টিবাংলাদেশ.র.অ্যাডভাইজার)
ও মুহম্মদ জাফর ইকবালের
(সেক্যুলার) নাম।
‘শঙ্কায় আছি’
জগন্নাথ হলের প্রাধ্যক্ষ
অসীম সরকার বলেন, ‘আমি
শঙ্কায় আছি। আমার ধারণা-
এটা কোনো উগ্র
মৌলবাদীদের কাজ।
তালিকায় আমার নাম চার
নম্বরে দেয়া হয়। আমাকে
হিন্দু মৌলবাদী আখ্যায়িত
করে লাল কালিতে
চিহ্নিত করে হত্যার হুমকি
দিয়েছে।’
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের
ভিসি আরেফিন সিদ্দিক
বলেন, ‘বিষয়টি
হালকাভাবে নেয়ার
কোনো সুযোগ নেই।
মুক্তচিন্তা এবং মুক্তবুদ্ধি
চর্চাকারীদের ওপর একের
পর এক হামলা হচ্ছে, আঘাত
আসছে। আমরা বিষয়টিকে
গুরুত্ব সহকারে নিয়ে কারা
এ ধরনের কাজ করছে তা
খুঁজে বের করতে আইন-
শৃঙ্খলা বাহিনীকে অনুরোধ
জানিয়েছি। বলেছি,
নিরাপত্তা জোরদার
করতে।’
এদিকে ঢাকা
বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষে
প্রক্টর আমজাদ আলি বুধবারই
শাহবাগ থানায় একটি
সাধারণ ডায়েরি করেছেন
চিঠির কপিসহ। তিনি
জানান, ‘যাদের হুমকি
দেয়া হয়েছে তাদের
মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের
ভিসিসহ দুজন শিক্ষক
রয়েছেন। আমরা বিষয়টি
সরকারের ঊর্ধ্বতন পর্যায়েও
জানিয়েছি।’
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্য
বৃহস্পতিবার স্বরাষ্ট্র
প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান
কামাল জানিয়েছেন,
‘বিশিষ্ট নাগরিকসহ যাদের
হুমকি দেয়া হয়েছে
তাদের নিরাপত্তা নিয়ে
পুলিশ সক্রিয় আছে। এরই
মধ্যে গোয়েন্দা
সংস্থাগুলো
হুমকিদাতাদের চিহ্নিত
করার কাজ শুরু করেছে। আশা
করি তারা চিহ্নিত হবে।’
হত্যার হুমকি দিয়ে চিঠি
পাঠানোর মাধ্যমে নতুন
কোনো উগ্রবাদী শক্তির
উত্থান ঘটতে চলেছে
কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে
আসাদুজ্জামান খান
কামাল বলেন, ‘হুমকি দেয়া
এক জিনিস আর আত্মপ্রকাশ
ভিন্ন জিনিস।’
নতুন সংগঠন?
বাংলাদেশে
আনসারুল্লাহ বাংলা টিম
এবং আনসার বাংলা-৭
নামে জঙ্গি গ্রুপের নাম এর
আগে শোনা গেলেও
আলকায়েদা-আনসারুল্লাহ
বাংলাটিম:১৩-এর নাম এই
প্রথম শোনা গেল।
আগের দুটি জঙ্গি সংগঠনের
সদস্যরা এর আগে ব্লগারদের
হত্যার হুমকি এবং হত্যার
সঙ্গে জড়িত বলে প্রমাণ
মিলেছে। তবে
আলকায়েদা-আনসারুল্লাহ
বাংলাটিম:১৩ কি
আলাদা সংগঠন, না একই
সংগঠনের পরিবর্তিত নাম
তা পুলিশ এখনো নিশ্চিত
নয়।
শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত
কর্মকর্তা আবু বকর সিদ্দিক
বলেন, ‘বিষয়টিকে আমরা
খুবই গুরুত্বের সঙ্গে
নিয়েছি। কারা এটি
করেছে সেটি বের করতে
একটি বিশেষ টিম নিয়োগ
করে তদন্ত হচ্ছে। এ ঘটনায়
আমরা বিশ্ববিদ্যালয়
এলাকায় পুলিশের তৎপরতা
বৃদ্ধি করেছি।’
অন্যদিকে অধ্যাপক মুহম্মদ
জাফর ইকবাল সংবাদ
মাধ্যমকে বলেছেন, ‘যাদের
হুমকি দেয়া হয়েছে
তাদের হয়ত এখন নিরাপত্তা
দেয়া হবে। কিন্তু যেসব
মুক্তমনা লেখক, ব্লগারকে
হত্যা করা হয়েছে সেসবের
বিচার আগে হওয়া উচিত।’
সূত্র: ডয়চে ভেলে।

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ