Home > জাতীয় > মাঝি বেচেঁ থাকলে নদী বাচঁবে

মাঝি বেচেঁ থাকলে নদী বাচঁবে


মাঝি ও জীবন শীর্ষক এক মাঝি সমাবেশ শনিবার কামরাঙ্গীরচর খোলামুড়া ঘাটে অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুড়িগঙ্গা বিভার কীপার, নিরাপদ ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন, স্বপ্নের সিড়ি এবং গ্রীন মাইন্ড সোসাইটি, রিভারাইন পিপল এ সমাবেশের আয়োজন করে।

১০৬ জন মাঝি কামরাঙ্গীরচর খোলামুড়াঘাট থেকে অপর পাড়ে কেরানীগঞ্জ এর সাথে নৌকা পারাপারে মানুষের প্রয়োজনীয় যোগাযোগ রক্ষায় দিনরাত ঝড় বৃষ্টি সকল সময় এই মাঝিরাই সহযোগিতা করে থাকে। নদীর পাড় এবং নদীর পানির উপর তাদের জীবন, নদীর তীর এবং নদীর নাব্যতা দুষনমুক্ত পানি, দখলমুক্ত নদী রক্ষার দাবি মাঝিদের। মাঝিরা তাদের বক্তব্যে বলেন, খোলামুড়া ঘাট এর জন্য আমরা প্রতিবছর ৬০০০ টাকা সরকারকে দিয়েছি। প্রতিটি মোটর সাইকেল পারাপারে ১০ টাকা দিতে হয়, প্রতিটি নৌকার দৈনিক ভাড়া দিতে হয় ১০০, দৈনিক আমরা ৩০০-৪০০ আয় করতে পারি। এমন অনেক দিন আছে যেদিন কোন উপার্জন হয না, অনেক কষ্ট করে আমরা দিনাতিপাত করি, ঘাটে যাত্রী ছাউনি নাই, রোগী বা প্রতিবন্ধী মানুষের জন্য নৌকায় নামানো উঠানোর কোন ব্যবস্থা ঘাটে নাই। আমাদের দাড়াবার জায়গা পর্যন্ত নাই, আমাদের জীবন ধারনের জন্য নদীকে বাচিঁয়ে রাখতে হবে। নদীর পারে সুন্দর্য বর্ধন এবং বসার জায়গা করে দিলে মানুষ নদীতে বেড়াতে আসবে, আর তখন আমাদের উপার্জন বৃদ্ধি পাবে।

কামরাঙ্গিরচর খোলামুড়া ঘাটে বুড়িগঙ্গা নদীর পারে মাঝিদের নিয়ে একটি সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। বুড়িগঙ্গা রিভারকিপার এবং বাংলাদেশ পরিবশে আন্দোলন বাপার যুগ্ন সম্পাদক জনাব শরীফ জামিল এর সভাপতিত্বে নিরাপদ ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন এর চেয়ারম্যান ইবনুল সাঈদ রানা‘র সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন রিভারাইন পিপল এর নির্বাহী শেখ রুকন, গ্রীন মাইন্ড সোস্যাইটির নির্বাহী আমির হোসেন, স্বপ্নের সিড়ি‘র লতা, এবং নির্বাহী সালমা আক্তার, মানবাধিকার কর্মী ডাঃ আনোয়ার হোসেন, নিরাপদ ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন এর উপদেষ্ঠা জাহাঙ্গীর আলম প্রমুখ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, যে নদী দখল দূষন বন্ধ করতে নদী পাড়ের মানুষজনের অংশগ্রহন জরুরী। নদীর পাড়ের মানুষ সচেতন হলে সকল দখল দূষন বন্ধ হবে। নদীর সাথে যাদের জীবন তারা নদীর পাহাড়াদার, তাদের আন্তরিকতায় নদী রক্ষা হবে। নদীর মাঝিদের জীবন মান উন্নয়ন, তাদের ছেলে মেয়েদের লেখাপড়া, তাদের চিকিৎসা সহ সকল বিষয়ে সহযোগিতা প্রয়োজন। একজন মাঝি ভাল থাকলে নদীতে সে তার কর্মকান্ড চালাতে পারবে। কর্মকান্ড চালাতে পারলে নদীর প্রতি তার মমত্ববোধ জাগ্রত থাকবে। যার ফলে নদী রক্ষায় সে নিবেদিত হবেন। সমাবেশ থেকে বক্তারা বলেন বুড়িগঙ্গা বাচাঁতে আমরা মাঝিদের জীবন মান উন্নয়নে সহযোগিতা চাই সরকার এবং সকল শ্রেনীপেশার মানুষের কাছে।

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ