Home > জাতীয় > ‘দীর্ঘদিন মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বাইরে চলে গিয়েছিলাম’

‘দীর্ঘদিন মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বাইরে চলে গিয়েছিলাম’

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, ‘দীর্ঘদিন আমরা মুক্তিযুদ্ধের চেতনার বাইরে চলে গিয়েছিলাম। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ফের ঘুরে দাঁড়িয়েছি।’

রোববার জাতীয় জাদুঘরের কবি সুফিয়া কামাল মিলনায়তনে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

অধ্যাপক কবীর চৌধুরীর ৯৭তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ‘মুজিববর্ষে শিল্পী, সাহিত্যিক, বুদ্ধিজীবীদের ভূমিকা’ শীর্ষক এ আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

তিনি আরো বলেন, ‘একজন রাজনীতিকের মানুষকে প্রভাবিত করার ক্ষমতা সীমিত। কিন্তু একজন সাহিত্যিক, নাট্য নির্মাতার ক্ষমতা অনেক। মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে মানুষের মধ্যে ধারণ করার কাজটা করতে পারেন এসব শিল্প-সাহিত্যের মানুষেরাই। মানুষ এ চেতনাকে ধারণ করতে পারলেই মুজিব শতবর্ষ পালন স্বার্থক হবে।’

এতে স্বাগত বক্তব্য দেন, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবির। কবীর চৌধুরী স্মারক বক্তৃতা-৯ প্রদান করেন চলচ্চিত্রনির্মাতা ও নাট্যনির্দেশক মুক্তিযোদ্ধা নাসির উদ্দিন ইউসুফ। আলোচনায় অংশ নেন লেখক অধ্যাপক মুহম্মদ জাফর ইকবাল, ফিনল্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল ফোরাম ফর সেকুলার বাংলাদেশ শাখার আহ্বায়ক ড. মুজিবুর দফতরি, টুয়েন্টি ফার্স্ট সেঞ্চুরি ফোরাম ফর হিউম্যানিজমের (তুরস্ক) সাধারণ সম্পাদক অনলাইন এক্টিভিস্ট শাকিল রেজা ইফতি। সভাপতিত্ব করেন শহীদ জায়া শ্যামলী নাসরিন চৌধুরী।

বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধের আগেই সাংস্কৃতিক অঙ্গনের লোকেরা রাজনৈতিক আন্দোলনের পাশাপাশি বিপুলভাবে কাজ করেছেন। দেশ স্বাধীনের লক্ষ্যটা তারা অনেকখানি দেখিয়ে দিয়েছেন। বক্তৃতার মাঠ, গণসঙ্গীতের আসর, নাটক, কবিতা মুক্তির বাণীর কথা প্রচার করতেন। যেটা মুক্তিযুদ্ধে সত্যিকার অর্থে আমাদের শক্তি জুগিয়েছিল। মুজিব শতবর্ষে এসে গানের মানুষ, বুদ্ধিজীবীরা, সাহিত্যিকেরাও শক্তি জোগানোর সেই বড় কাজটা আবার করতে পারেন।’

শাহরিয়ার কবির বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর ঋণশোধ করার একটা পথ রয়েছে। সেটি হচ্ছে তিনি যে স্বপ্ন দেখেছিলেন তার বাস্তবায়ন করা। যে কারণে ৩০ লাখ মানুষ শহীদ হয়েছেন, সেই বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা করা। মুজিববর্ষ পালনে সরকারের পাশাপাশি নাগরিক সমাজেরও করণীয় আছে।’

স্মারক বক্তৃতায় নাসির উদ্দীন ইউসুফ বলেন, ‘আসুন ৭২ এর সংবিধান প্রতিষ্ঠা করে বঙ্গবন্ধুর আদর্শ বাস্তবায়নের মধ্য দিয়ে এক সমৃদ্ধশালী, আদর্শ রাষ্ট্র গড়ে তুলতে আমাদের সৃষ্টিশীলতার পূর্ণ ব্যবহার করি।’

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ