Home > জাতীয় > চোখের জলে ফাঁসির দাবি সায়মার বাবার

চোখের জলে ফাঁসির দাবি সায়মার বাবার

নিজস্ব প্রতিবেদক : ১০ মিনিটের জন্য বাসা থেকে বের হয়েছিল শিশু সায়মা। এ যাওয়া যে শেষবারের মতো ছিল একেবারেই টের পাননি তার বাবা-মা। সাত বছরের যে শিশু ঘর আলোকিত করে রাখত তাকে হারিয়ে এখন পাগলপ্রায় তারা। নয়নের মনি শিশুসন্তানকে যারা ধর্ষণের পর হত্যা করেছে তাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চেয়েছেন তারা।

রোববার সকাল সাড়ে ১১টায় কুমিল্লার তিতাসের ডাবরডাঙা এলাকা থেকে ধর্ষণের পর শিশু সায়মাকে হত্যায় অভিযুক্ত হারুনকে গ্রেপ্তার করে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

দুপুরে ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানাতে সংবাদ সম্মেলন ডাকে ডিবি। সেখানে ছিলেন সায়মার বাবা আব্দুস সালাম। সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে কান্নারত আব্দুস সালাম বলেন, আমার মেয়েকে দুইভাবে নির্যাতিত করা হলো। আমি সর্বোচ্চ ৩ থেকে ৬ মাসের মধ্যে আসামীর ফাঁসি চাই।

তিনি বলেন, যাদের সন্তান আছে তারা এসব কুরুচিপূর্ণ ব্যক্তির কাছ থেকে কীভাবে আপনার সন্তানদের দূরে রাখবেন বিষয়টি ভেবে দেখবেন। আমি আমার মেয়েকে দেখে রাখতে পারিনি। সন্ধ্যা সাড়ে ৬ টার দিকে মেয়েটা আমার স্ত্রীকে বলে ১০ মিনিটের জন্য বাইরে গেলো। এরপর আমার মেয়েটা আর ফিরলোনা, তাকে নৃশংসভাবে খুন করা হলো। গত ২ দিন ধরে আমি একফোঁটা পানিও খেতে পারিনি। ঘরে গেলে মেয়ের কাপড়-চোপড়, ছবি দেখে আর ঠিক থাকতে পারিনা। আমার পুরো পরিবারটা বিধ্বস্ত হয়ে গেলো।

খুবই অল্প সময়ের মধ্যে আসামীকে গ্রেপ্তার করায় আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও সাংবাদিকদের ধন্যবাদ জানান তিনি।

উল্লেখ্য, গত শুক্রবার রাতে বনগ্রামে নবনির্মিত একটি ভবনের ভেতরে সায়মাকে মৃত অবস্থায় দেখতে পান পরিবারের সদস্যরা। রাত ৮টার দিকে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ উদ্ধার করে। ওয়ারী সিলভারডেল স্কুলে নার্সারিতে পড়তো সায়মা।

নিহত শিশুর বাবা আব্দুস সালাম বাদী হয়ে ওয়ারী থানায় মামলা করেছেন। এর আগে ভবন মালিকসহ পাঁচজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে পুলিশ।

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ