Home > জাতীয় > সব দল অংশ না নেওয়া অস্বস্তিকর : সিইসি

সব দল অংশ না নেওয়া অস্বস্তিকর : সিইসি

নিজস্ব প্রতিবেদক : প্রধান নির্বাচন কমিশনার কে এম নূরুল হুদা বলেছেন, আসন্ন ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের উপনির্বাচনে সব দল অংশ না নেওয়া নির্বাচন কমিশনের জন্য অস্বস্তিকর।

বুধবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনের মিডিয়া সেন্টারে এক ব্রিফিংয়ে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেন, ঢাকা সিটি করপোরেশনের উপ-নির্বাচনে সব রাজনৈতিক দল অংশ না নেওয়া কমিশনের প্রতি অনাস্থা নয়। তবে এ নির্বাচনে রাজনৈতিক দলগুলোর অংশ না নেওয়া কমিশনের জন্য অস্বস্তিকর।

৩০ ডিসেম্বরের সংসদ নির্বাচনের পরে এই নির্বাচনে অনেক দল অংশগ্রহণ করছে না, এটাকে কিভাবে মূল্যায়ন করছেন-সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে প্রধান নির্বাচন কমিশনার বলেন, ‘বিভিন্ন কারণে সব দল অংশগ্রহণ করেনি এতে আমাদের কিছু করার নেই। এটা তো রাজনৈতিক সিদ্ধান্ত। আমরা তো সবাইকে আহ্বান করেছিলাম, যেহেতু তারা আসেনি, আমাদের কিছু করার নেই।’

তিনি বলেন, ঢাকা শহরে অনেক ইমার্জেন্সি বিষয় আছে। এয়ারপোর্টে একজন যাত্রী যাবে, তার জন্য কি বন্ধ থাকবে, অ্যাম্বুলেন্স যাবে, এক্সপোর্ট-ইমপোর্টের জিনিসগুলো যাবে, এরকম বিষয় বিবেচনা করে পুলিশকে নির্দেশনা দেওয়া আছে, যাতে এভাবে নিয়ন্ত্রিত হয়। ব্যাপকভাবে সব বন্ধ করে দেওয়া হয়নি।

বাস চলতে পারবে কি না এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘মেইন রোডে চলবে।’

প্রাইভেট ভেহিক্যাল আছে প্রচুর, এগুলো চলাচলের ওপর আপনার নির্দেশনা কী এ প্রশ্নের জবাবে সিইসি বলেন, ‘না, প্রাইভেট ভেহিক্যাল নির্ধারিত কোনো কাজ ছাড়া চলাচল করতে পারবে না। ঘোরাফেরা করার জন্য তো আর চলবে না। এটা নিয়ে বেশি আলোচনা করার দরকার নেই। এটা ঢাকা শহর তো অনেক ধরনের ইমার্জেন্সি বিষয় থাকে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য যারা থাকবেন, তারা এগুলো বুঝবেন।’

এ সময় যান চলাচলের ক্ষেত্রে ইসি সচিব হেলালুদ্দীন আহমেদ বলেন, প্রধান প্রধান সড়কগুলোতে যানবাহন চলবে। আর জরুরি প্রয়োজনে যারা যান (প্রাইভেটকার ও মোটরসাইকেল) ব্যবহার করবে, তারা আমাদের কাছ থেকে স্টিাকার সংগ্রহ করবে। এছাড়াও পুলিশকে যদি কেউ তার প্রয়োজনের কথা বলে, তারাও কিন্তু তাদের অনুমতি দেবে।

সাধারণ ছুটির বিষয়ে ইসি সচিব বলেন, ঢাকা শহর পুরোটাতেই ছুটি থাকবে এটা আমরা বিজ্ঞপ্তি দিয়েও জানিয়েছি। স্কুল-কলেজ ও সরকারি অফিস-আদালত বন্ধ থাকবে। জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এই বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে।

ভোটের প্রস্তুতি তুলে ধরে সিইসি আরো বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু করার জন্য নির্বাহী ও জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটসহ পর্যাপ্ত সংখ্যক আইনশৃ্ঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী নিয়োগ করা হয়েছে। নির্বাচন কমিশনের নিজস্ব পর্যাবেক্ষক থাকবে। বিজিবি, পুলিশ ও র‌্যাবের টিম টহলে থাকবে। এছাড়া বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে বিভিন্ন বাহিনীর সদস্য মোতায়েন থাকবে।

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ