Home > জাতীয় > রেলে আসছে নতুন প্রযুক্তি, ইন্টিগ্রেটেড অ্যাপ

রেলে আসছে নতুন প্রযুক্তি, ইন্টিগ্রেটেড অ্যাপ

সচিবালয় প্রতিবেদক : খুব শিগগিরই আসছে ইন্টিগ্রেটেড রেলওয়ে অ্যাপ। এর মাধ্যমে মোবাইল ফোন ব্যবহার করেই ট্রেনের সিট বাছাই থেকে শুরু করে সিট বুকিং ও টিকেটের মূল্য পরিশোধ করা যাবে। পাশাপাশি ট্রেনের অবস্থান, গন্তব্যের দূরত্ব ও লোকাল ট্রান্সপোর্ট সেবার সাথে একজন নাগরিক সহজেই যুক্ত হতে পারবেন।

বুধবার বাংলাদেশ রেলওয়ের সেবাসমূহকে ডিজিটালাইজড করার লক্ষ্যে রেলপথ মন্ত্রণালয় এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের যৌথ আয়োজনে রাজধানীর রেলভবনের সম্মেলন কক্ষে এক মতবিনিময় সভার আয়োজন করা হয়।

সভায় রেলপথমন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক উপস্থিত ছিলেন।

তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবহার করে রেলওয়ের বর্তমান সেবাকে আরো জনবান্ধব ও সহজতর করার লক্ষ্যে আইসিটি বিভাগ ও রেলপথ মন্ত্রণালয়ের যৌথ উদ্যোগে একটি জনবান্ধব ইন্টিগ্রেটেড রেলওয়ে ডিজিটাল সার্ভিস প্ল্যাটফর্ম ও মোবাইল অ্যাপ তৈরি ও বাস্তবায়নের বিষয়ে আলোচনা হয়।

সভায় জানানো হয়, ইন্টিগ্রেটেড রেলওয়ে অ্যাপ বাস্তবায়িত হলে একজন সাধারণ নাগরিক তার হাতে থাকা মোবাইল ফোন ব্যবহার করেই ট্রেনের সিট বাছাই থেকে শুরু করে সিট বুকিং ও টিকেটের মূল্য পরিশোধ করতে পারবেন। পাশাপাশি স্টেশন বা ট্রেনের অবস্থান, গন্তব্যের দূরত্ব ও লোকাল ট্রান্সপোর্ট সেবার সাথে একজন নাগরিক সহজেই যুক্ত হতে পারবেন।

সভায় আরো জানানো হয়, যাত্রাকালীন সময়ে বিভিন্ন ধরনের অভ্যন্তরীণ সেবা, যেমন: ট্রেনের ভেতর খাবারের অর্ডার করা বা অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতিতে রেল পুলিশের সহযোগিতার জন্য অভিযোগ দায়ের করতে পারবেন। এ ইন্টিগ্রেটেড সিস্টেমে মোবাইল অ্যাপের পাশাপাশি ওয়েব অ্যাপ্লিকেশন, কল সেন্টার ও এসএমএসের মাধ্যমে সকল সেবা পাওয়া যাবে। প্রস্তাবিত সিস্টেমটি প্রতিবন্ধী ব্যক্তিরাও সহজে ব্যবহার করতে পারবেন। এসব ব্যাপারে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রোগ্রাম সকল ধরনের কারিগরি সহযোগিতা দেবে।

সভায় রেলপথমন্ত্রী মো. নূরুল ইসলাম সুজন বলেন, সুন্দর, আধুনিক, প্রযুক্তিনির্ভর দেশ গড়ার লক্ষ্যে আমরা সম্মিলিতভাবে কাজ করছি। প্রযুক্তি ছাড়া উন্নয়ন সম্ভব নয়।

মন্ত্রী আরো বলেন, বর্তমানে রেলওয়ের বেশকিছু সেবা অনলাইন ও এসএমএসের মাধ্যমে প্রদান করা হচ্ছে। প্রস্তাবিত সিস্টেমটি বাস্তবায়িত হলে রেলের সকল সেবা একটি মাত্র প্ল্যাটফর্ম থেকে প্রদান করা যাবে।

প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে কালোবাজারি রোধসহ যাত্রীদের সার্বিক সেবা দেওয়া সম্ভব বলে তিনি জানান।

মন্ত্রী তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের প্রস্তাবিত সিস্টেমটি দ্রুত বাস্তবায়নের বিষয়ে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও দপ্তরগুলোকে সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা প্রদান করেন এবং নীতিগত সিদ্ধান্ত গ্রহণে সকল ধরণের সহযোগিতার আশ্বাস দেন।

সভায় রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মোফাজ্জেল হোসেন, বাংলাদেশ রেলওয়ের মহাপরিচালক কাজী মো. রফিকুল আলম, এটুআইর প্রকল্প পরিচালক মো. মোস্তাফিজুর রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ