নুরুল হুদার জানাজা সম্পন্ন, দাফন কাল

বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও সাবেক সংস্থাপন প্রতিমন্ত্রী নুরুল হুদার জানাজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। আগামীকাল রোববার তার দাফন হবে।

শনিবার নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজা শেষে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর নেতাকর্মীদের সঙ্গে নিয়ে নুরুল হুদার কফিনে শ্রদ্ধা জানান।

এ সময় স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ভাইস চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমান উল্লাহ আমান, বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক কর্নেল (অব.) আনোয়ারুল আজিম, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মাসুদ আহমেদ তালুকদার, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আউয়াল খান, সহ-দপ্তর সম্পাদক তাইফুল ইসলাম টিপু, মো. মুনির হোসেন, বেলাল আহমেদ, নির্বাহী কমিটির সদস্য নাজিম উদ্দিন আলম, যুবদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি মোরতাজুল করিম বাদরু, সাধারণ সম্পাদক সুলতান সালাহউদ্দিন টুকু, স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের ভূঁইয়া জুয়েল, ছাত্রদলের সভাপতি রাজীব আহসান, সহ-সভাপতি এজমল হোসেন পাইলট, আবু আতিক আল হাসান মিন্টু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মেহবুব মাসুম শান্তসহ হাজারো নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন। পরে জাতীয় সংসদ ভবনের দক্ষিণ প্লাজায় বাদ আসর নুরুল হুদার দ্বিতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

রোববার চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার বাগানবাড়ি ইউনিয়নের খন্দকারকান্দি নিজ গ্রামে তাকে দাফন করা হবে। তার আগে সেখানে দুদফা জানাজা অনুষ্ঠিত হবে।

হৃদরোগে আক্রান্ত হলে নুরুল হুদাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য যুক্তরাষ্ট্রে নেওয়া হয়। গত বুধবার দুপুরে যুক্তরাষ্ট্রের নিউ ইয়র্কে কর্নেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান বিএনপির এই নেতা।

১৯৯১ সালে বিএনপি সরকার গঠন করলে নুরুল হুদা সংস্থাপন প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব পান। ২০০১ সালের সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। এর আগে তিনি নির্বাহী কমিটির সদস্য ও ভাইস চেয়ারম্যান পদে দায়িত্ব পালন করেন। সর্বশেষ কাউন্সিলের পর বিএনপির নতুন কমিটিতে নুরুল হুদাকে উপদেষ্টা পরিষদে রাখেন বেগম খালেদা জিয়া।

নুরুল হুদার পৈতৃক বাড়ি চাঁদপুরের মতলব উত্তর উপজেলার বাগানবাড়ি ইউনিয়নের খন্দকারকান্দি গ্রামে। তার দুই ছেলে রয়েছে। দুজনই যুক্তরাষ্ট্রে থাকেন।

%d bloggers like this: