Home > বিনোদন > পরিচালক সমিতির নির্বাচনে ভোট দিলেন তারকারা

পরিচালক সমিতির নির্বাচনে ভোট দিলেন তারকারা

বিনোদন প্রতিবেদক : 

চলচ্চিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে খ্যাতি অর্জন করলেও পরবর্তীতে নির্মাতার খাতায় নাম লেখান দেশের কিংবদন্তি তারকারা। এই তালিকায় রয়েছেন সোহেল রানা, কবরী, আলমগীরসহ অনেকে। আজ শুক্রবার সকাল ৯টা থেকে শুরু হয়েছে চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির দ্বি-বার্ষিক নির্বাচনের ভোট গ্রহণ। দুপুরের পর ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে বিএফডিসিতে হাজির হন-সোহেল রানা, কবরী, সুজাতা, আলমগীর, মৌসুমী, বাপ্পরাজসহ বেশ কয়েকজন তারকা অভিনয়শিল্পী। তারা পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিয়েছেন বলে জানা যায়।

এবারের নির্বাচনে নির্বাচন কমিশনারের দায়িত্ব পালন করছেন আবদুল লতিফ বাচ্চু। এবারের নির্বাচনে অংশ নিয়েছে দুটি প্যানেল। এর মধ্যে একটি মুশফিকুর রহমান গুলজার-বদিউল আলম খোকন আর অন্যটি বাদল খন্দকার-বজলুর রাশেদ চৌধুরী। এ ছাড়া মহাসচিব পদে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে পরিচালক সাফি উদ্দিন সাফি নির্বাচন করছেন। একেক প্যানেলে ১৯ জন করে প্রার্থী রয়েছেন। মনতাজুর রহমান আকবর ও শাহ আলম কিরণ সহ-সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। মহাসচিব পদে লড়ছেন তিনজন-বর্তমান মহাসচিব বদিউল আলম খোকন, বজলুর রাশেদ চৌধুরী ও সাফিউদ্দিন সাফি।

পল্লী মালেক, রকিবুল আলম রকিব আর শাহিন সুমন উপ-মহাসচিব পদে প্রার্থী হয়েছেন। কোষাধ্যক্ষ পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন মো. সালাহউদ্দিন, সেলিম আজম। সাংগঠনিক পদে কবিরুল ইসলাম রানা, মোস্তাফিজুর রহমান মহারাজ, মো. জয়নাল আবেদীন। আন্তর্জাতিক ও তথ্য-প্রযুক্তি সচিব পদে বিপ্লব শরীফ ও মোস্তাফিজুর রহমান মানিক প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। ওয়াজেদ আলী বাবলু ও শাহিন কবির টুটুল সাংস্কৃতিক ও ক্রীড়া সচিব পদে নির্বাচন করছেন। প্রচার, প্রচারণা ও দফতর সচিব পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন আনোয়ার সিরাজী, হানিফ আকন দুলাল। কার্যনির্বাহী পরিষদের দশটি পদের জন্য মোট প্রার্থী হয়েছেন ২৩ জন।

২০১৬ সালের ৩০ ডিসেম্বর বিএফডিসিতে অনুষ্ঠিত হয়েছিল চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির নির্বাচন। এই নির্বাচনে তিনটি প্যানেল অংশ নেয়, আমজাদ হোসেন-জাকির হোসেন রাজু, মুশফিকুর রহমান গুলজার-বদিউল আলম খোকন ও সোহানুর রহমান সোহান-রায়হান মুজিব। এর মধ্যে মুশফিকুর রহমান গুলজার সভাপতি ও বদিউল আলম খোকন মহাসচিব পদে নির্বাচিত হন। দুই বছর পরপর ডিসেম্বরের শেষ শুক্রবার সংগঠনটির দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়ে থাকে। ২০১৭-১৮ সালের কমিটির মেয়াদ শেষ হলেও জাতীয় সংসদ নির্বাচনের কারণে তা পিছিয়ে ২৫ জানুয়ারি নির্ধারণ করা হয়।

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ