Home > বিনোদন > ‘ধর্ষিতা’ আনুশকা-আলিয়া!

‘ধর্ষিতা’ আনুশকা-আলিয়া!

রুপালি পর্দায় প্রতিটি ছবিকে অভিনয় করা অভিনেতা-অভিনেত্রীদের কাছে একটি চ্যালেঞ্জিং বিষয় বটে। প্রতিটি ছবিতেই নিজেকে ভেঙ্গে আবার নতুন করে গড়তে হয় তাদের। আর সে কথা অনেক সময় নানা সাক্ষাৎকারেও বলেন অভিনয় শিল্পীরা।
তবে কয়েকটি দৃশ্য এমন হয় যা সারাজীবনের জন্য মনে দাগ কেটে তাকে তাদের। আর এমন ঘটনাই ঘটেছিলো আনুশকা শর্মা এবং আলিয়া ভাটের সঙ্গে। ধর্ষণের দৃশ্য শ্যুট করতে গিয়ে বেশ প্রভাবিত হয়েছিলেন তারা।

অভিনেত্রীদের কথায়, শ্যুটিং’র পর গোটা বিষয়টি মানসিকভাবে খুব চাপ সৃষ্টি করেছিল তাদের। তাদের মনে হয়েছিলো তারা নিজেরাই যেন ধর্ষিতা হয়েছিলেন।

আনুশকা বলেন, ‘এনএইচটেন’ ছবিতে আমার শ্লীলতাহানির একটি দৃশ্য ছিল। বাস্তবভিত্তিকভাবে দৃশ্যটি শ্যুট করার কথা। আর আমি তেমনটাই করেছিলাম। কিন্তু তারপর আমি মানসিক অবসাদে ভুগতে শুরু করেছিলাম। অভিনয় করছি জানি, তবুও খুব খারাপ লেগেছিল। দুঃখ হয়েছিল। যখন মনে হয়েছিলো আমি ধর্ষিতা হয়েছি। বাস্তব জীবনে শ্লীলতাহানি হওয়ার খানিকটা অনুভূতি পেয়েছিলাম। যার জন্যই নিজেকে সামলাতে পারিনি।

অন্যদিকে, একই অভিজ্ঞা আলিয়া ভাটের। ‘উড়তা পঞ্জাবে’র গণধর্ষণের দৃশ্যে বেশ প্রভাবিত হয়েছিলেন অভিনেত্রী। শ্যুটিংয়ের আগে টেকনিক্যালিটি বোঝার সময় নায়িকার কোন সমস্যা হয়নি। কীভাবে শ্যুট হবে, কী করতে হবে, সবটাই সুণিপুনভাবে বুঝে নিয়েছিলেন। কিন্তু ভেতরে ভেতরে বেশ অপ্রস্তুত হয়ে পড়েছিলেন তিনি। মনে মনে নায়িকা ভেবেছিলো তিনি নিজেই ধর্ষিতা হয়েছেন। আর এমন চিন্তা দিনে দিনে তাকে আরো বেশি গ্রাস করে ফেলছিলো বলে জানান আলিয়া।

ছবির শ্যুটিংয়ের সঙ্গে বাস্তব জীবন সঙ্গে তুলনা করার পরই আলিয়ারও আনুশকার মতোই অনুভূতি হয়েছিল। দৃশ্যটি যত তাড়াতাড়ি সম্ভব শ্যুট শেষ করে ফেলতে চাইছিলেন তিনি। সেইদিনের পরে সেটে গিয়েও সহ হতে পারতেন না আলিয়া।

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ