ভালো মানের নাটক উপহার দেয়ার জন্যই কষ্ট করি

যারা অভিনয় করেন কিংবা এর সঙ্গে জড়িত তাদের সবাই শুটিং নিয়ে ব্যস্ততার মধ্যে কাটান। তবে অপূর্বর ক্ষেত্রে বিষয়টি একটু অন্যরকম। শিডিউল অনুযায়ী তিনি শুটিং শুরু করেন ঠিকই। কিন্তু কখন তা শেষ হবে সে নিয়ে কোনো সময় নির্দিষ্ট থাকে না তার। সকালে শুটিং শুরু করলে রাত পর্যন্ত টানা কাজ করতে থাকেন। অবশ্য এ নিয়ে কোনো বিরক্তিও নেই তার। খানিক ক্লান্তি লাগলেও ভালো একটি কাজ শেষ হওয়ার জন্য কিছুটা সময় ব্যয় হোক- এমনটাই মনে করেন এ অভিনেতা।

অপূর্ব বলেন, আমরা অনেকেই কাজ করি। কিন্তু ভালো একটি নাটক দর্শক পর্যন্ত পৌঁছানোর জন্য মনোযোগ নিয়ে ক্যামেরার সামনে দাঁড়াতে হয়। নিজের চরিত্রটি ফুটিয়ে তোলার জন্য যা যা করণীয় তার সবই করা উচিত। আমি দর্শক ঠকাতে চাই না। আর দর্শকও যেন আমাকে নিয়ে কোনো বাজে মন্তব্য না করেন। এভাবেই কাজ করে আসছি সবসময়। একটি ভালো মানের নাটক উপহার দেয়ার জন্যই মূলত এতটা কষ্ট করি। তাতে সময় একটু বেশি লাগুক। বর্তমানে একাধিক ধারাবাহিকের শুটিং নিয়ে ব্যস্ত আছেন এ অভিনেতা। এর মধ্যে রয়েছে- ‘সানফ্লাওয়ার’, ‘মায়া’, ‘মেঘে ঢাকা শহর’, ‘টাইম’, ‘লাইফ ইন অ্যা মেট্রো’সহ আরো কিছু নাটক। ধারাবাহিকের পাশাপাশি খণ্ড নাটকের কাজও নিয়মিত করছেন অপূর্ব। সম্প্রতি বেশ কয়েকটি খণ্ড নাটকের কাজ শেষ করেছেন তিনি। প্রতি বছরই বিজয় দিবসের বিশেষ নাটকে অভিনয় করেন অপূর্ব। তবে এবার সে ব্যস্ততা নেই। এ দিনটি উপলক্ষে কোনো বিশেষ নাটকে অভিনয় করেননি তিনি। এ প্রসঙ্গে অপূর্ব বলেন, প্রায় প্রতি বছরই বিজয় দিবসের বিশেষ নাটকের কাজ থাকে। এবার আমিই কোনো নাটকে অভিনয় করিনি। ধারাবাহিকের কাজগুলোর ব্যস্ততা বেশি। তাই করা হয়ে ওঠেনি। সাবলীল অভিনয় দিয়ে দর্শক হৃদয় আগেই জয় করেছেন অপূর্ব। তবে তার ভক্তরা নিশ্চয়ই জানেন অভিনেতার পাশাপাশি তিনি একজন ভালো গায়কও। অভিনয়কে পেশা হিসেবে নিলেও গানকে কখনো পেশা হিসেবে নিতে চান না এই অভিনেতা। কয়েকটি নাটকের সূচনা সংগীতে কণ্ঠ দিলেও গানের অ্যালবাম বের করার ইচ্ছা নেই অপূর্বর। তবে বছরে দু’-একবার দেশের বাইরে গানের কনসার্ট করেন তিনি।

%d bloggers like this: