Home > লাইফস্টাইল > একসঙ্গে হাসিতে দাম্পত্য দীর্ঘস্থায়ী হয়

একসঙ্গে হাসিতে দাম্পত্য দীর্ঘস্থায়ী হয়

অনেক দম্পতি রয়েছেন যারা কিনা নিজেদের মধ্যে হাসি-ঠাট্টা বা মজা করেন না। তবে যেসব দম্পতি একে অপরের সঙ্গে হাসি-ঠাট্টা করেন তাদের সম্পর্ক অনেক গভীর হয়। এ বিষয়ে ক্যানসাস বিশ্ববিদ্যালয়ের যোগাযোগ গবেষণা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক জেফ্রি হলের নেতৃত্বে পরিচালিত হয়েছে একটি গবেষণা।

নতুন এই গবেষণা বলছে, সঙ্গীর সঙ্গে রসিকতা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কারণ একসঙ্গে হাসির মাধ্যমে সম্পর্কের গভীরতা আরো বৃদ্ধি পায়। তবে গবেষকগণ সতর্ক করে এটাও বলেছেন, যেসব দম্পতি অশ্লীল, ব্যাঙ্গাত্মক কথা শেয়ার করেন তাদের সম্পর্কে সমস্যা সৃষ্টি হয় এবং সম্পর্ক শেষ পর্যন্ত টিকে না।

প্রফেসর হল বলেন, রোমান্টিক দম্পতিদের মধ্যে কৌতুকপ্রিয়তা সম্পর্কের নিরাপত্তা প্রতিষ্ঠায় একটি গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। বিশেষত, একটি সুন্দর রোমান্টিক সম্পর্কের জন্য দুজনের হাসি-খুশি থাকাটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

রোমান্টিক সম্পর্কের মধ্যে হাস্যরস কতটা গুরুত্বপূর্ণ তা নির্ধারণ করতে ১৫০,০০০ জন অংশগ্রহণকারী নিয়ে ৩৯টি গবেষণা বিজ্ঞানীরা বিশ্লেষণ করেছেন। নতুন এই গবেষণার সম্পূর্ণ ফলাফল পার্সোনাল রিলেশনশিপ জার্নালের পরবর্তী সংখ্যায় প্রকাশিত হবে। তবে ইতিমধ্যে ধারণা দেওয়া হয়েছে যে, লোকজন আপনাকে খুব বেশি মজার বা হাস্যোজ্জ্বল হিসেবে অভিহিত করলেও তার মানে এই নয় যে, আপনি দাম্পত্য জীবনে আরো বেশি ভাগ্যবান হবেন। বরঞ্চ যে দম্পতি একসঙ্গে কৌতুকের মাধ্যমে পরস্পর হাস্যরস তৈরি করে- তাদের সম্পর্ক টিকে থাকার সম্ভাবনা বেশি।

অধ্যাপক হল বলেন, অনেকে তাদের সঙ্গীর মধ্য হাস্যরস খুঁজে বেড়ান কিন্তু এটি একটি বিস্তৃত ধারণা। সম্পর্কের সন্তুষ্টির সঙ্গে যা দৃঢ়ভাবে সম্পর্কিত তা হলো, দম্পতি নিজেরা হাস্যরস তৈরি করে। আপনি যখন কোনো মজার বিষয় শেয়ার করেন তখন এটি আপনাকে এবং হাসির মাধ্যমে আপনার সম্পর্ককে নিশ্চিত করে।

তিনি বলেন, হাস্যরসে আক্রমণাত্মক ধারণাটি সাধারণভাবে সম্পর্কের জন্য একটি খারাপ চিহ্ন। সম্পর্কের ক্ষেত্রে হাস্যরসের আক্রমণাত্মক ধরনটি ব্যবহার করা আরো বেশি খারাপ।

তথ্যসূত্র : ডেইলি মেইল

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ