Home > লাইফস্টাইল > বেতন নির্ধারণ করবেন যেভাবে

বেতন নির্ধারণ করবেন যেভাবে

চাকরি পাওয়া যেমন গুরুত্বপূর্ণ, তেমনি বেতনের অংক নির্ধারণ করাও খুব গুরুত্বপূর্ণ। চাকরি খোঁজা সব প্রার্থীই ভালো বেতনের জন্য মুখিয়ে থাকেন। তবে সবাই তাদের কাঙ্ক্ষিত বেতন নির্ধারণ করতে পারেন না। বেশিরভাগ সময় বেতন নির্ধারণ করা জটিলতা ও বিভ্রান্তি সৃষ্টি করে।

বেতন কাঠামো বিভিন্ন স্থানে, বিভিন্ন কোম্পানিতে, বিভিন্ন সময় বিভিন্ন রকম হয়। একটি কোম্পানির একেকজন কর্মকর্তা-কর্মচারী একেক রকম বেতন পেয়ে থাকেন। তবে কয়েকটি রীতি অনুসরণ করে নিজের কাঙ্ক্ষিত বেতন কাঠামো নির্ধারণ করতে পারেন আপনি।

* বিস্তারিত জানুন : একটি কোম্পানিতে চাকরি নেয়ার আগে ওই পদের জন্য বেতন কেমন নির্ধারণ করা হয়েছে তা জেনে নিন। অনেক সময় বিজ্ঞাপনে বেতনের কথা উল্লেখ থাকে না। তাই ওই কোম্পানির ওয়েবসাইটে এ বিষয়ে বিস্তারিত জেনে নিন। যদি এ বিষয়ে ওয়েবসাইটে কিছু না পান, তাহলে ওই কোম্পানির কোনো কর্মকর্তা/কর্মচারীকে এ ব্যাপারে প্রশ্ন করে জেনে নেয়ার চেষ্টা করুন কোম্পানির বেতন কাঠামো কেমন। এরপর নিজের প্রত্যাশিত বেতনের কথা ইন্টারভিউতে প্রসঙ্গত জানান।

* যেভাবে বেতন প্রসঙ্গে জানবেন : চাকরি খুঁজতে যেমন নেটওয়ার্কের প্রয়োজনীয়তা রয়েছে, বেতন প্রসঙ্গে তথ্য জানতেও নেটওয়ার্ক তৈরি করা জরুরি। পরিচিত কাউকে, সবচেয়ে ভালো হয় যে কোম্পানিতে ইন্টারভিউ দিচ্ছেন, সেখানকার কারো সঙ্গে ফোনে বা ই-মেইলের মাধ্যমে সম্ভব হলে সরাসরি কথা বলে বেতন বিষয়ে আলোচনা করা। এতে নিজের প্রত্যাশিত বেতন নিয়ে কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলার পথ খুঁজে পাবেন আপনি। সংশ্লিষ্ট ওই কর্মকর্তা বা কর্মচারী এ ব্যাপারে তার ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতার কথা বলেও আপনাকে সাহায্য করতে পারেন। তাকে যেসব প্রশ্ন করতে পারেন আপনি:
– কোম্পানিতে কেমন বেতন কাঠামো প্রচলিত আছে?
– বেতন কাঠামো কি খুব নিয়মমাফিক নির্ধারণ করা হয়, না শিথিলযোগ্য?
– সংশ্লিষ্ট পদের জন্য কোম্পানির সর্বনিম্ন বেতন কতো?
– কোম্পানিতে বেশি বেতন পান কারা এবং কেন?
– এমবিএ বা এরকম কোনো ডিগ্রি কি বেতন বাড়ানোর ক্ষেত্রে সহায়ক হতে পারে?

এসব প্রশ্ন জানার পর নিয়োগের সময় কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সমঝোতায় আসতে পারেন আপনি।

* অংক কষুন : প্রতিটি পদ ও প্রতিটি কোম্পানির জন্য সাধারণত নির্দিষ্ট বেতন কাঠামো থাকে। এমনই একটি ছকে পড়তে হবে আপনাকে। এখন ভাবুন, অংক কষুন, কতো টাকা হলে প্রতি মাসে সংসার চলবে আপনার বা আপনার প্রয়োজনগুলো মিটবে। এমন একটা প্রত্যাশিত বেতনের কথা প্রস্তাব করুন, যাতে করে স্বচ্ছন্দে নিজের প্রয়োজনীয়তাগুলো পূরণ করতে পারেন আপনি। এটাও মনে রাখবেন, কোম্পানির নিয়ম অনুযায়ী ওই পদের জন্য আপনি প্রতি বছর ইনক্রিমেন্ট সহ বিভিন্ন সুবিধা পাওয়ার কথা। এতে করে কয়েক বছরেই আপনি হয়তো প্রত্যাশিত বেতনের দিকে এগিয়ে যেতে পারেন।

* বিশেষজ্ঞের পরামর্শ নিন : নিজের প্রচেষ্টায় বেতন সংক্রান্ত সব তথ্য জানার পরও এ ব্যাপারে পেশাদার একজন বিশেষজ্ঞের শরণাপন্ন হতে পারেন আপনি। কারণ শ্রম আইন, বেতন বিষয়ে অজানা অনেক তথ্যই আপনি হয়তো তার কাছ থেকে জানতে পারবেন। তিনি বিভিন্ন কোম্পানির ডাটা কালেক্ট করে আপনাকে বলতে পারবেন কেমন বেতন প্রত্যাশা বা দাবি করতে পারেন আপনি। বেতন নিয়ে কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সমঝোতায় আসার ব্যাপারে পথ নির্দেশও দিতে পারবেন তিনি।

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ