Home > লাইফস্টাইল > ইন্টারভিউয়ের প্রথম দশ মিনিটেই নিজেকে জাহির করুন

ইন্টারভিউয়ের প্রথম দশ মিনিটেই নিজেকে জাহির করুন

কোনো ইন্টারভিউতে প্রথম সাক্ষাতে একবারই ভালো প্রভাব ফেলার সুযোগ পাবেন আপনি। আর এজন্য মাত্র কয়েক মিনিট সময় পাওয়া যায়। যুক্তরাষ্ট্রের প্রায় এক হাজার কোম্পানির ১৫০ জন সিনিয়র এক্সিকিউটিভের ওপর জরিপ চালিয়ে জানা গেছে, নিয়োগদাতারা মূলত প্রথম ১০ মিনিটের মধ্যেই কোনো চাকরিপ্রার্থী সম্পর্কে ইতিবাচক বা নেতিবাচক সিদ্ধান্ত নেন।

তাই চাকরির ইন্টারভিউতে প্রথম দশ মিনিটেই নিজেকে পরিপূর্ণ ভাবে জাহির করার সুযোগ নিতে হবে আপনাকে। এই অল্প সময়ে নিজেকে যোগ্যতর প্রার্থী হিসেবে তুলে ধরতে কিছু টিপস জেনে নিন।

* ইন্টারভিউ রুমে ঢুকে প্রশ্নকর্তাদের সঙ্গে আত্মবিশ্বাসী, উষ্ণ হ্যান্ডশেক করুন, চোখের দিকে তাকিয়ে সুন্দর করে হাসুন। এতে আপনাকে প্রথমেই পছন্দ করবেন প্রশ্নকর্তারা। আর মূলত এই পছন্দের কারণেই বেশিরভাগ প্রার্থী চাকরি পেয়ে থাকেন।

* অল্প কথায় গুরুত্বপূর্ণ সব তথ্য জানানোর চেষ্টা করুন। এতে ইন্টারভিউয়ের পরিবেশ শিথিল হয়। আর এটি আপনার ভবিষ্যত ক্লায়েন্ট, সহকর্মীদের সঙ্গে সহজে যোগাযোগ গড়ে তোলার একটি গুণ হিসেবে বিবেচিত হবে।

* যে কোম্পানিতে আপনি ইন্টারভিউ দিতে যাচ্ছেন, তার সম্পর্কে যতটুকু জানা যায় সব কিছু জানার চেষ্টা করুন। সম্ভব হলে যারা আপনার ইন্টারভিউ নেবেন, তাদের সম্পর্কেও জানুন।

* যতক্ষণ পর্যন্ত আপনাকে বসতে বলা না হবে, ততোক্ষণ পর্যন্ত বসবেন না।

* সুযোগ বুঝে তীক্ষ্ম, বুদ্ধিদীপ্ত কোনো প্রশ্ন করুন, যাতে নিঃসন্দেহে প্রমাণিত হয় যে কোম্পানি, সংশ্লিষ্ট পদ, ডিপার্টমেন্ট এসব বিষয়ে আপনি হোমওয়ার্ক করেছেন।

* সম্ভাব্য কিছু প্রশ্নের আলোকে ইন্টারভিউ চর্চা করুন বাড়িতে, যাতে করে নিজেকে একজন যোগ্য প্রস্তুত প্রার্থী হিসেবে উপস্থাপন করতে পারেন।

* প্রশ্নকর্তারা নিজের সম্পর্কে কিছু বলতে বললে সব সময় পেশাগত দৃষ্টিভঙ্গি থেকে কথা বলবেন। এক্ষেত্রে আপনার পরিবারের অন্য সদস্যদের নিয়ে বিশদ আলোচনা করা বা সাপ্তাহিক ছুটি কিভাবে কাটান তা নিয়ে কথা বলা ভুল হবে।

* ইন্টারভিউতে আপনি যেসব প্রশ্ন করবেন, সেগুলো যেন আকর্ষণীয় হয়, যাতে আপনার ব্যাপারে প্রশ্নকর্তা আগ্রহী হতে পারেন, সেদিকে খেয়াল রাখবেন। আপনার কথোপকথনে যেন আপনার মেধা ও ব্যক্তিত্ব ফুটে উঠে তা নিশ্চিত করুন।

* প্রশ্নকর্তার বডি ল্যাংগুয়েজ বা দেহভাষার দিকে সতর্ক থাকুন। তারা যদি ভারমুক্ত মেজাজে প্রশ্ন করেন, তাহলে আপনাকেও নির্ভার হয়ে উত্তর দিতে হবে। তারা যদি সিরিয়াস মেজাজে প্রশ্ন করেন, তাহলে আপনাকেও সিরিয়াস হতে হবে। এতে প্রশ্নকর্তাদের সঙ্গে আপনার এক ধরনের মনস্তাত্ত্বিক সম্পর্ক তৈরি হবে।

* ইন্টারভিউয়ের জন্য আপনি যে সফল ভাবে নিজেকে গড়ে তুলেছেন, তা প্রশ্নকর্তাদের বোঝাতে হবে।

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ