সাদা চুল কালো করার ঘরোয়া টোটকা

বার্ধক্য আসার সঙ্গে সঙ্গে প্রাকৃতিক নিয়মে চুল পাকা শুরু হয়। ত্বকেও পড়ে বয়সের ছাপ। এটা খুব স্বাভাবিক একটা ব্যাপার। কিন্তু কম বয়সেই চুল পাকা চিন্তার বিষয়। কারণ বয়সের তুলনায় ভারিক্কি চলে আসায় বিব্রত অবস্থায় পড়তে হয়।

অকালে চুল পাকার একাধিক কারণ রয়েছে, যেমন- মানসিক চাপ, জিনগত কারণ, ধূমপান, পরিবেশ দূষণ ও অপুষ্টি, কম ঘুম, চুলের যত্ন না নেওয়া ইত্যাদি। একবার চুল পাকা শুরু করলে তা ঠেকানো মুশকিল।

 

পাকা চুল আড়াল করতে অনেকেই রাসায়নিক কলপ ব্যবহার শুরু করেন। কিন্তু রাসানিকের ফলে চুলের পাশাপাশি স্বাস্থ্যও ঝুঁকি মুখে পড়ে। সুতরাং জেনে নিন, কলপ না লাগিয়ে কিংবা বাজারের প্রসাধনী ব্যবহার না করেই, পাকা চুল কালো করার কয়েকটি ঘরোয়া পদ্ধতি।

আমলকি, মেহেদি ও কফির প্যাক: একটি বাটিতে এক কাপ মেহেদি বাটা, ৩ টেবিল চামচ আমলকির গুঁড়া ও ১ টেবিল চামচ কফির গুঁড়া ভালোমতো মিশিয়ে ঘন পেস্ট তৈরি করুন। এরপর গ্লাভস পরে একটি ব্রাশের সাহায্যে এই পেস্ট চুলে লাগিয়ে নিন। এক ঘণ্টা রেখে শ্যাম্পু ব্যবহার করে চুল ধুয়ে ফেলুন। প্রাকৃতিক এই উপায়ে চুল কালো করতে পারেন। আমলকি ও মেহেদি চুলে পুষ্টি জোগানোর পাশাপাশি চুল নরম রাখতেও সাহায্য করে।

ব্ল্যাক টি: একটি পাত্রে এক কাপ পানি নিয়ে তাতে ২ টেবিল চামচ ব্ল্যাক দিয়ে ভালো করে ফুটিয়ে দিন। এরপর চুলা বন্ধ করে ঢাকা দিয়ে রেখে দিন ৫ মিনিট। এবার এই মিশ্রণ ঠান্ডা করে চুলে লাগান। ১ ঘণ্টা পর ঠান্ডা পানি দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। শ্যাম্পু করবেন না। ব্ল্যাক টি চুলে প্রাকৃতিক রঙের কাজ করে। তা কালো রাখতে সাহায্য করে। এছাড়াও চুলের উজ্জ্বলতা ফেরায়। সপ্তাহে ২ বার ব্যবহার করতে পারেন।

 

নারকেল তেল ও লেবুর রস: একটি বাটিতে ১ টেবিল চামচ নারকেল তেল ও ১ টেবিল চামচ লেবুর রস ভালোমতো মিশিয়ে নিন। এরপর এই মিশ্রণ মাথার স্ক্যাল্পে এবং চুলের আগা-গোড়ায় ভালো করে লাগিয়ে নিন। ৩০ মিনিট পর শ্যাম্পু ব্যবহার করে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে দুইবার এটি ব্যবহার করতে পারেন। নারকেল তেল ও লেবুর রস সাদা চুল কালো করতে পারবে না। কিন্তু নিয়মিত ব্যবহারে সহজে পাক ধরবে না আপনার চুলে।

কারি পাতা ও নারকেল তেল: একটি পাত্রে ৩ টেবিল চামচ নারকেল তেল ও কারি পাতা দিয়ে ভালো করে ফুটিয়ে নিন। যতক্ষণ না পর্যন্ত মিশ্রণ গাঢ় হয়ে আসে, ফুটাতে হবে। তারপর ঠান্ডা করে ছেঁকে নিন। এবার এই মিশ্রণ মাথার স্ক্যাল্পে ও চুলে লাগিয়ে নিন। ১ ঘণ্টা পর শ্যাম্পু ব্যবহার করে চুল ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে দুই থেকে তিনবার এই প্যাক ব্যবহার করতে পারেন। সাদা চুলের সমস্যা ধীরে ধীরে কমিয়ে দেওয়ার সুনাম রয়েছে কারি পাতার।

মেথি: চুল সুন্দর করতে কাজ করে মেথি। এটি চুল ঘন ও কালো করে। সেজন্য আগের রাতে পরিষ্কার পানিতে মেথি ভিজিয়ে রাখুন। পরদিন সকালে মেথির দানা পিষে নিন। মেথির পেস্টটি চুলে লাগিয়ে অপেক্ষা করুন আধা ঘণ্টার মতো। এরপর শ্যাম্পু করে নিন। সপ্তাহে ২-৩ বার এই ঘরোয়া টোটকা ব্যবহার করতে পারেন।

 

তথ্যসূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া

%d bloggers like this: