Home > আন্তর্জাতিক > ট্রাম্পের হস্তক্ষেপে ইসরায়েলের বসতি নির্মাণবিরোধী বিল স্থগিত

ট্রাম্পের হস্তক্ষেপে ইসরায়েলের বসতি নির্মাণবিরোধী বিল স্থগিত

দখলকৃত পশ্চিমতীরে ইসরায়েলের বসতি নির্মাণবিরোধী একটি বিলে ভোট প্রদান স্থগিত করতে সম্মত হয়েছে মিশর। নবনির্বাচিত মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডেনাল্ড ট্রাম্প টেলিফোনে মিশরের প্রেসিডেন্ট আবদেল ফাত্তাহ আল সিসির সঙ্গে কথা বলার পরই এ বিষয়ে সম্মত হল মিশর সরকার।

এর আগে আন্তর্জাতিক আইন লঙ্ঘনের অভিযোগ তুলে মঙ্গলবার রাতে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে ওই বিল উত্থাপন করে দেশটি। এতে দখলকৃত পশ্চিমতীরে ইসরায়েলের বসতি নির্মাণ বন্ধে ভোটাভুটির প্রস্তাব করা হয়। বৃহস্পতিবার ওই ভোটাভুটি অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। বিলটি উত্থাপনের কয়েক ঘণ্টা পরই তা প্রত্যাহার করে নিল মিশর।

নিরাপত্তা পরিষদে যুক্তরাষ্ট্রের ভেটো ক্ষমতা প্রয়োগে ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনইয়ামিন নেতানিয়াহুর যোগাযোগের পর বিষয়টি নিয়ে সিসির সঙ্গে কথা বলেন ট্রাম্প। ওবামা প্রশাসন নিরাপত্তা পরিষদের ভোটে সম্মত থাকতে পারে- এমন সংবাদের পরই ট্রাম্পকে ফোন দেন ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী।

শুক্রবার মিশরীয় প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র জানান, বিষয়টি সমাধানে ট্রাম্পের আসন্ন প্রশাসনকে সুযোগ দিতে একমত হয়েছেন দুই নেতা।

বিবিসি জানিয়েছে, জাতিসংঘের স্থায়ী পরিষদের স্থায়ী সদস্য হিসেবে ভেটো ক্ষমতার অধিকারী যুক্তরাষ্ট্র ইসরাইলবিরোধী যেকনো ভোটে বরাবরই দেশটির পাশে দাঁড়ায়।

এ প্রসঙ্গে এর আগে ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনইয়ামিন নেতানিয়াহু বলেন, ‘মার্কিন-ইসরায়েল মিত্রতার একটি শক্তিশালী খুঁটির প্রশংসা ইসরায়েল সব সময়ই করে: জাতিসংঘে ইসরায়েলের পক্ষে যুক্তরাষ্ট্রের দাঁড়ানোর আকাঙ্খা এবং ইসরায়েলবিরোধী বিলে ভেটো দেয়া। আমি আশা করি যুক্তরাষ্ট্র তাদের এই নীতি পরিত্যাগ করবে না।’

ওবামা প্রশাসন অবশ্য দীর্ঘদিন ধরেই ইসরায়েলের বসতি নির্মাণের বিরোধিতা করে আসছে। মঙ্গলবার মিশরের আনা বিলের বিরুদ্ধে ভোট দিতে এর আগে নিরাপত্তা পরিষদের সদস্যদের আহ্বান জানান ট্রাম্প। এক বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘ইসরায়েলি এবং ফিলিস্তিনিদের মধ্যে শান্তি আসতে পারে শুধু আলোচনার মাধ্যমে, জাতিসংঘের কোনো নিষেধাজ্ঞা আরোপের মাধ্যমে নয়।’

আগামী ২০ জানুয়ারি মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে শপথ নিতে যাচ্ছেন ডোনাল্ড ট্রাম্প।

এদিকে নিরাপত্তা পরিষদের আরো চার সদস্য- নিউজিল্যান্ড, ভেনেজুয়েলা, মালয়েশিয়া এবং সেনেগাল জানিয়েছে, মিশর তার পদক্ষেপ থেকে পিছিয়ে আসলেও বিলটিকে এগিয়ে নিয়ে যাবে তারা।

সূত্র: বিবিসি, আল জাজিরা

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ