Home > আন্তর্জাতিক > ট্রাম্পের জয়ে সাহায্য করেছে রাশিয়া, তদন্তের নির্দেশ ওবামার

ট্রাম্পের জয়ে সাহায্য করেছে রাশিয়া, তদন্তের নির্দেশ ওবামার

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ডোনাল্ড ট্রাম্পকে বিজয়ী করতে কাজ করেছে রাশিয়া। রুশ সরকারের সঙ্গে জড়িত হ্যাকাররা ডেমোক্রেটিক পার্টিসহ হিলারি ক্লিনটন ও তার সহযোগীদের ই-মেইল হ্যাক করার মাধ্যমে হিলারির সমালোচনা সামনে এনে রিপাবলিকান প্রার্থী ট্রাম্পের জয়ের পথ সুগম করেছেন। রাশিয়ার হিলারিবিরোধী মনোভাবই এসব কর্মকাণ্ডের কারণ। যুক্তরাষ্ট্রের কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা (সিআইএ) তাদের নির্বাচনোত্তর গোপন মূল্যায়ন প্রতিবেদনে এ কথা জানিয়েছে। হিলারি-সংশ্লিষ্ট ওইসব হ্যাকিংয়ে জড়িত ব্যক্তিদের শনাক্ত করা হয়েছে বলে জানিয়েছে সিআইএ।

এদিকে এ ঘটনা প্রকাশের পর নির্বাচনের সময় একাধিকবার সাইবার হামলার বিষয়ে তদন্ত করতে গোয়েন্দাদের নির্দেশ দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। তবে নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের শিবির সিআইএর এসব দাবি নাকচ করে বলেছে, এই লোকগুলোই বলেছিল যে, সাদ্দাম হোসেনের কাছে ব্যাপক বিধ্বংসী অস্ত্র রয়েছে। পরে যা মিথ্যা প্রমাণিত হয়। যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনে বিদেশিদের হস্তক্ষেপের কথা বিশ্বাস করেন না ট্রাম্প।

খবর ওয়াশিংটন পোস্ট, নিউইয়র্ক টাইমস ও বিবিসির।

সিআইএ জানায়, এবারের মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের সময় হিলারির জয়ের সম্ভাবনা হ্রাস করা এবং ট্রাম্পের সম্ভাবনা বাড়িয়ে তোলার জন্য অভিযানে নেমেছিল রাশিয়া। সিআইএর প্রতিবেদনে বলা হয়, রাশিয়ার উদ্দেশ্য ছিল এক প্রার্থীর বিপরীতে অপর প্রার্থীকে সহায়তা করা, ট্রাম্পকে নির্বাচিত করা। এটাই গোয়েন্দা সংস্থাগুলোর মূল্যায়ন। এটা তাদের সর্বসম্মত মত।

প্রতিবেদনে জানানো হয়, হিলারি ক্লিনটনের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচারে শিবিরের চেয়ারম্যানসহ ডেমোক্রেটিক ন্যাশনাল কমিটি ও অন্যদের হাজার হাজার ই-মেইল হ্যাক করে যারা উইকিলিকসকে দিয়েছিলেন, রুশ সরকারের সঙ্গে সম্পর্কিত সেসব ব্যক্তিকে শনাক্ত করেছে যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থাগুলো। গোয়েন্দারা এই ব্যক্তিদের চিনত বলেও জানিয়েছেন সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা।

গত সপ্তাহে এক রুদ্ধদ্বার বৈঠকে যুক্তরাষ্ট্রের সিনেটরদের সামনে বিষয়টি উপস্থাপন করে সিআইএ। ওই কর্মকর্তারাও তখনই বিষয়টির সম্পর্কে অবহিত হন। সিআইএর মূল্যায়ন প্রতিবেদনটি গোপনীয় ছিল বলে জানিয়েছে ওয়াশিংটন পোস্ট।

প্রতিবেদনে বিভিন্ন উৎস থেকে ক্রমবর্ধমান সাক্ষ্য পাওয়ার কথা উল্লেখ করেছে সিআইএ। সংস্থার কর্মকর্তারা সিনেটরদের জানিয়েছেন, ট্রাম্পকে নির্বাচিত করা রাশিয়ার উদ্দেশ্য ছিল এটা এখন পরিষ্কার। যুক্তরাষ্ট্রের ১৭টি গোয়েন্দা সংস্থার প্রতিবেদনের সারাংশ নিয়ে সিআইএ ওই মূল্যায়নটি প্রস্তুত করেছে বলে জানিয়েছে ওয়াশিংটন পোস্ট। তবে কিছু প্রশ্নের উত্তর না থাকায় মূল্যায়নটি নিয়ে গোয়েন্দা কর্মকর্তাদের মধ্যে মৃদুু দ্বিমত রয়ে গেছে বলে জানিয়েছেন কর্মকর্তারা।

সিআইএর এই তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশ হওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্রের প্রশাসনে তুমুল আলোড়ন শুরু হয়েছে। রিপাবলিকান সদস্যদের কয়েকজন বলেছেন, ‘সিআইএর মূল্যায়ন তদন্তে যা বলা হয়েছে, তা উদ্বেগজনক। কিন্তু এর পক্ষে পরিষ্কার কোনো প্রমাণ তারা দিতে পারেনি। রাশিয়া কীভাবে তাদের প্রভাব বিস্তার করেছে, তার নিরেট প্রমাণ চাই। ট্রাম্পের ট্রানজিশন টিম জানিয়েছে, ‘যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনে বিদেশিদের হস্তক্ষেপের কথা বিশ্বাস করেন না ট্রাম্প।’

এদিকে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের সময় রাশিয়ার কথিত সাইবার হামলা খতিয়ে দেখার জন্য গোয়েন্দা সংস্থাকে নির্দেশ দিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। হোয়াইট হাউস জানিয়েছে, এসব ই-মেইলের বিস্তারিত বিশ্লেষণ করে একটি প্রতিবেদন তৈরি করা হবে।

হোয়াইট হাউসের একজন মুখপাত্র জানিয়েছেন, প্রেসিডেন্ট ওবামা বিষয়টিকে খুবই গুরুত্বের সঙ্গে নিয়েছেন। সেজন্য তিনি এর তদন্ত করতে বলেছেন। কারণ, আমেরিকা তাদের নির্বাচন পদ্ধতির স্বচ্ছতা এবং অখণ্ডতা বজায় রাখার জন্য বদ্ধপরিকর। প্রেসিডেন্ট ওবামার দায়িত্ব শেষ হওয়ার আগেই এ তদন্ত কাজ শেষ হবে এবং সেটির ফলাফল নতুন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের হাতে তুলে দেওয়া হবে।

ডেমোক্রেটিক পার্টির সংগঠনগুলোর বিরুদ্ধে সাইবার হামলা চালানোর জন্য যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে অক্টোবরে রাশিয়াকে অভিযুক্ত করেছিল যুক্তরাষ্ট্র সরকার।

উল্লেখ্য, সাইবার হামলা সম্পর্কে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে সতর্ক করেছেন বলেও জানিয়েছিলেন ওবামা। কিন্তু যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে হস্তক্ষেপের সব অভিযোগ অস্বীকার করে রাশিয়া। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগে হ্যাক করা ইমেইলগুলো প্রকাশ করেছিল উইকিলিকস। নির্বাচনী প্রচারকালে হিলারির প্রচার শিবিরকে এসব ইমেইলের কারণে বারবার বিব্রত হতে হয়েছিল।

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ