Home > আন্তর্জাতিক > সাগরে ভাসমান অভিবাসীদের আশ্রয় দিবে যুক্তরাষ্ট্র

সাগরে ভাসমান অভিবাসীদের আশ্রয় দিবে যুক্তরাষ্ট্র

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
জনতার বাণী,
ওয়াশিংটন ডিসি: সাগরে নৌযানে
ভাসতে থাকা বাংলাদেশি ও
রোহিঙ্গা অভিবাসীদের উদ্ধারে
এগিয়ে আসার ইচ্ছা প্রকাশ করেছে
যুক্তরাষ্ট্র।
বুধবার মার্কিন পররাষ্ট্র
মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র মেরি
হার্ফের বরাত দিয়ে
আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলো
এ খবর জানিয়েছে।
মেরি হার্ফ বলেন, অভিবাসীদের
উদ্ধার ও পুনর্বাসনে জাতিসংঘ
অভিবাসন এজেন্সির নেতৃত্বে
বহুজাতিক প্রচেষ্টায় অংশ নেওয়ার
প্রস্তুতি নিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র।
গত তিন সপ্তাহে তিন হাজারেরও
বেশি বাংলাদেশি ও মায়ানমারের
রোহিঙ্গা অভিবাসী মালয়েশিয়া,
থাইল্যান্ড ও ইন্দোনেশিয়
উপকূলে ভিড়েছে।
সহায়তা সংস্থাগুলো জানিয়েছে,
সাগরে ভাসমান অবস্থায় আরো
কয়েক হাজার অভিবাসী অপুষ্টি
ও অসুস্থ অবস্থায় মানবেতর
দিনযাপন করছে।
একই সঙ্গে সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা
জনগোষ্ঠীর প্রতি মিয়ানমারের
সরকারের নীতির বিষয়ে উদ্বেগ
জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের
পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়।
রোহিঙ্গারা দেশটিতে জাতিগত ও
ধর্মীয় বৈষম্যের শিকার বলেও
জানানো হয়েছে।
পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নিয়মিত
ব্রিফিংয়ে হার্ফ বলেন,
‘উপমন্ত্রী (অ্যান্টনি
ব্লিনকেন, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়)
সমুদ্রে ভাসমান অভিবাসীদের
উদ্ধার ও তাদের দ্রুত ত্রাণ-
সহায়তা দিতে বাংলাদেশকে
সহযোগিতার জন্য মিয়ানমারের
সরকারের প্রতি আহ্বান
জানাবেন। যেসব কারণে লোকজন
সমুদ্রে নিজেদের জীবন
ঝুঁকিতে ফেলছে, সেসব বিষয়ে
আমরা উদ্বিগ্ন।
এর মধ্যে আছে সংখ্যালঘু
রোহিঙ্গাদের প্রতি মিয়ানমারের
নীতি, যাতে জাতিগত ও ধর্মীয়
বৈষম্য রয়েছে। আমার মনে হয়,
রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে স্বীকৃতি
দেওয়াসহ রাখাইন রাজ্যে দীর্ঘ
সময়ের বিভিন্ন বিষয়ের দায়
নেওয়ার প্রয়োজনীয়তা নিয়ে
মিয়ানমার সরকারকে বলবেন
উপমন্ত্রী।’
এক প্রশ্নের জবাবে মেরি হার্ফ
বলেন, ‘আন্তর্জাতিক আইন
অনুযায়ী নিজেদের দায়িত্ব
পালনের সিদ্ধান্ত নেওয়া এবং
দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার সমুদ্রে
থাকা সাত হাজার অভিবাসীকে
মানবিক সহায়তা দিতে
মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া ও
থাইল্যান্ডের সিদ্ধান্তকে
যুক্তরাষ্ট্র স্বাগত জানায়।
যুক্তরাষ্ট্র একই সঙ্গে এ
অঞ্চলের অন্যান্য দেশ ও
আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে এ
প্রচেষ্টায় সহায়তার আহ্বান
জানায়।
২৯ মে ব্যাংককে অনুষ্ঠেয়
সম্মেলনেও এটি গুরুত্বপূর্ণ
বিষয় হিসেবে আলোচিত হবে।
আমরা মনে করি, এ অঞ্চলের সব
সরকার এ ইস্যুতে নিজেদের
সম্পৃক্ত করে সম্মেলনে অংশ নেবে,
যাতে যুক্তরাষ্ট্রের উচ্চ
পর্যায়ের একটি প্রতিনিধিদল
উপস্থিত থাকবে।’
গত বছর ১ অক্টোবর থেকে এ
পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্র এক
হাজারেরও বেশি রোহিঙ্গা
অভিবাসীকে পুনর্বাসিত করেছে
বলে এসময় জানান মেরি।

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ