Home > আন্তর্জাতিক > মার্কিন সামরিক স্থাপনায় আঘাত হানবে ইরান

মার্কিন সামরিক স্থাপনায় আঘাত হানবে ইরান

ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ খামেনির সামরিক উপদেষ্টা জানিয়েছেন, কুদস নেতা সোলাইমানিকে হত্যার জবাব হবে সামরিক এবং ওয়াশিংটনের সামরিক লক্ষ্যবস্তুতেই আঘাত হানবে তেহরান।

মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনএনকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে উপদেষ্টা হোসেইন দেহগান এ তথ্য জানিয়েছেন।

শুক্রবার বাগদাদে মার্কিন হামলায় নিহত হন ইরানের কুদস বাহিনীর প্রধান জেনারেল কাসেম সোলাইমানি। ইরানের নীতি নির্ধারণে তিনি ছিলেন দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ক্ষমতাধর ব্যক্তি।

প্রাক্তন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী দেহগান হচ্ছেন খামেনির প্রধান সামরিক উপদেষ্টা। সেই সুবাদে তিনি সর্বোচ্চ নেতা খামেনির অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ।

যুক্তরাষ্ট্রের ওপর হামলার হুমকি দিয়ে দেহগান বলেছেন, ‘জবাব হবে নিশ্চিতভাবেই সামরিক এবং সামরিক স্থাপনাতেই হামলা হবে’।

তিনি বলেন, ‘আমাকে একটি বিষয় বলতে দিন, আমাদের নেতৃত্ব আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করেছিল যে, আমরা কখনোই যুদ্ধ চাইনি এবং কখনো যুদ্ধ চাই না’।

দেহগান বলেন, আমেরিকাই প্রথম যুদ্ধ শুরু করেছে। তাই হামলার যথাযথ জবাব তাদের পাওয়া উচিৎ। কেবল একটা জিনিসই এই যুদ্ধের সময় শেষ করতে পারে, আর তা হচ্ছে যে আঘাত তারা করেছে তার সমপর্যায়ের আঘাত তাদেরকে দেওয়া। এরপর আর তাদের নতুন চক্র খোঁজা উচিৎ হবে না’।

শনিবার ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি এক টুইটে বলেছিলেন, সোলাইমানিকে হত্যা করে যুক্তরাষ্ট্র ‘গুরুতর ভুল’ করেছে।

এর জবাবে রোববার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প টুইটে বলেছেন, ‘ইরান যদি আমেরিকার সম্পদের ওপর আঘাত হানে তাহলে ‘আমরা দ্রুত ও কঠোর হামলা চালাব’। যুক্তরাষ্ট্রের কাছে ইরানের ৫২টি স্থানে আঘাতে হানার তালিকা রয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

এ ব্যাপারে দেহগান বলেন, ‘ট্রাম্প আন্তর্জাতিক আইন জানেন না। তিনি জাতিসংঘের প্রস্তাবকেও স্বীকৃতি দেন না। মূলত তিনি হচ্ছেন মৌখিকভাবে দস্যু সর্দার ও জুয়াড়ি। তিনি রাজনীতিবিদ নন এবং তার মানসিক স্থিরতাও নেই’।

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ