Home > আন্তর্জাতিক > থাইল্যান্ডে প্রস্তাবিত নতুন সংবিধান বাতিল

থাইল্যান্ডে প্রস্তাবিত নতুন সংবিধান বাতিল

আন্তর্জাতিক ডেস্ক
জনতার বাণী,
ব্যাংকক: গণরোষের মুখে থাইল্যান্ডের সামরিক
সরকার তাদেরই তৈরি করা নতুন সংবিধানের
খসড়াটি বাতিল করেছে। গতবছর সামরিক
অভ্যুত্থানের মাধ্যমে ক্ষমতায় এসে এটি তৈরি
করেছিল জান্তা সরকার।
শুরু থেকেই সমালোচনায় পড়ে তাদের তৈরি খসড়া
সংবিধানটি। এর বিরুদ্ধে ব্যাপক বিক্ষোভও অনুষ্ঠিত
হয়েছিল।
শনিবার এটি বাতিলের পর এখন সংবিধান তৈরির
জন্য ফের কমিটি গঠন করা হবে বলে জানিয়েছে
কর্তৃপক্ষ। নতুন একটি খসড়া সংবিধান তৈরির জন্য ছয়
মাস সময় পাবে ওই নয়া কমিটি।
ওই সংবিধানের ওপর ভিত্তি করেই দেশটিতে নতুন
নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।
থাইল্যান্ডে গতবছর কয়েক মাস ধরে চলা রাজনৈতিক
বিক্ষোভের মুখে নির্বাচিত সরকারকে হটিয়ে
ক্ষমতা দখল করে সেনাবাহিনী।
সামরিক সরকার ক্ষমতায় আসার পরই সংবিধান
রচনার জন্য একটি কমিটি গঠন করেছিল। ওই কমিটির
রচিত সংবিধানের একটি ধারা নিয়ে প্রচুর
সমালোচনা শুরু হয়। কেননা ওই ধারার আওতায় ২৩
সদস্যের প্যানেল ‘জাতীয় সঙ্কটের’ অজুহাতে ক্ষমতা
দখল করে নিয়েছিল।
শনিবার ২৪৭ সদস্যের জাতীয় সংস্কার পরিষদে
খসড়া সংবিধানের ওপর যে ভোটাভুটি হয় তাতে
পরিষদের ১৩৫ জন এটি বাতিলের পক্ষে ভোট দেন।
অন্যদিকে এটি কার্যকর করার পক্ষে ভোট
দিয়েছিলেন ১০৫ সদস্য। ভোটদানে অনুপস্থিত ছিলেন
আরো ৭ জন।
আগামী ১৮০ দিনের মধ্যে নতুন সংবিধান তৈরির পর
এর ভিত্তিতে জাতীয় পর্যায়ে গণভোট অনুষ্ঠিত
হবে। তবে নতুন সংবিধান গৃহীত হওয়ার আগ পর্যন্ত
ক্ষমতায় থাকার সুযোগ পাবে সেনাশাসকরা।
থাইল্যান্ডে আগামী বছরের শেষ নাগাদ নির্বাচন
অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। তবে রাজনৈতিক
বিশ্লেষকরা মনে করছেন, ২০১৭ সালের আগে সেখানে
নির্বাচন হওয়া সম্ভব নয়।
১৯৩২ সালে রাজতন্ত্র বিলুপ্ত হওয়ার পর থেকে
থাইল্যান্ডে বেশ কয়েকবার সংবিধান পরিবর্তন করা
হয়েছে।
সূত্র: বিবিসি, গার্ডিয়ান

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ