Home > আন্তর্জাতিক > মিশরে নিরাপত্তা বাহিনীর সাথে পুলিশের সংঘর্ষ

মিশরে নিরাপত্তা বাহিনীর সাথে পুলিশের সংঘর্ষ

কায়রো: মিশরে পুলিশ কর্মকর্তাদের সাথে অন্যান্য নিরাপত্তা বাহিনীর সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা পুলিশের ওপর কাঁদানে গ্যাস নিক্ষেপ করেছে। এতে অন্তত চারজন আহত হয়েছেন।

মিশরের নাইল ডেল্টায় নজিরবিহীন এ ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ সদস্যরা বকেয়া বোনাস পরিশোধ এবং চাকুরিতে আরো বাড়তি সুযোগ সুবিধার দাবিতে বিক্ষোভ করছেন।

গত বছর মিশরীয় স্বৈরশাসক আবদেল ফাত্তাহ আল-সিসি ক্ষমতা গ্রহণের পর এই প্রথম এ ধরনের ঘটনা ঘটল

বিক্ষোভকারী পুলিশ সদস্যরা শারকিয়া প্রদেশের ছয়টি থানা বন্ধ করে দেয় এবং তাদের দাবি মেনে না দেয়ার প্রতিবাদে নিরাপত্তা বাহিনীর অধিদপ্তরে অবস্থান নেয় বলে জানায় তুরস্কের আনাদোলু এজেন্সি।

মিশরের রাষ্ট্র নিয়ন্ত্রিত আল আহরাম পত্রিকা জানায়, অধিদপ্তরে অবস্থান নেয়া পুলিশ কর্মকর্তাদের ছত্রভঙ্গ করে দিতে কেন্দ্রীয় নিরাপত্তা বাহিনী কাঁদানে গ্যাস ব্যবহার করে।

জবাবে পুলিশ কর্মকর্তারা সতর্কতামূলক গুলিবর্ষণ করেন।

শনিবার থেকে বিক্ষোব করছেন পুলিশ সদস্যরা।

পুলিশ কমর্কতারা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এবং শারকিয়ার নিরাপত্তা অধিদপ্তরের প্রধানের পদত্যাগ দাবি করে স্লোগান দেন।

ক্ষোভ বাড়ছে

২০১৩ সালের সেনাবাহিনী ক্ষমতা গ্রহণের পরই আর্থিক দুরাবস্থায় নিপতিত হয়েছে মিশর।

পুলিশ কর্মকর্তারা গত জুন ও জুলাই মাসের বোনাস এবং ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে একই হাসপাতালে চিকিৎসা সুবিধার দাবি জানাচ্ছেন।

একজন নিরাপত্তা কর্মকর্তা দাবি করেন, বিক্ষোভকারী পুলিশ কর্মকর্তারা মুসলিম ব্রাদারহুডের সাথে সংশ্লিষ্ট। তবে বিক্ষোভকারীরা এ দাবি নাকচ করে দিয়েছেন।

নিরাপত্তা সূত্র দাবি করেছে, বিক্ষোভকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

মিশরের বর্তমান সরকারের আমলে কোনো দাবি দাওয়া নিয়ে বিক্ষোভ নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

তবে বিক্ষোভকারী পুলিশ সদস্যদের সমর্থন দিচ্ছেন অন্যান্য শহরের সহকর্মীরা।

যেমন আলেকজান্দ্রিয়ার নিম্ন পর্যায়ের পুলিশ কর্মকর্তাদের সংগঠন বিক্ষোভকারীদের দাবিকে সমর্থন করে বিবৃতি দিয়েছে এবং চলমান সংকট নিরসনে সিসির হস্তক্ষেপ কামনা করেছে।

২০১৪ সালের ফেব্রুয়ারিতে আলেকজান্দ্রিয়া ও কার্ফ আল-শেখের পুলিশ সদস্যরা উচ্চতর বেতন এবং উন্নত কর্মপরিবেশের দাবিতে বিক্ষোভ করেন।

চাকুরি নিয়ন্ত্রনের জন্য নতুন একটি আইনের বিরুদ্ধে দুই সপ্তাহ আগে কায়রোতে বিক্ষোভ করেছেন হাজার হাজার বেসামরিক কর্মকর্তা-কর্মচারি। এটা ছিল ২০১৩ সালের নভেম্বরের পর কায়রোতে সবচেয়ে বড় সমাবেশের একটি।

সূত্র: আলজাজিরা

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ