Home > আন্তর্জাতিক > যুক্তরাষ্ট্রের হুঁশিয়ারির পর পাকিস্তানের পাশে চীন

যুক্তরাষ্ট্রের হুঁশিয়ারির পর পাকিস্তানের পাশে চীন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : আফগান যুদ্ধে বিতর্কিত ভূমিকা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র কড়া ভাষায় হুঁশিয়ার করার পর পাকিস্তানের পাশে দাঁড়াল চীন।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প পাকিস্তানকে ‘সন্ত্রাসের স্বর্গরাজ’ হিসেবে অভিহিত করেন। তিনি দেশটিকে সতর্ক করে দিয়ে বলেন, আফগানিস্তানের সন্ত্রাসীদের সহায়তা বন্ধ না করলে তাদের আর অর্থ সহায়তা দেওয়া হবে না।

শুধু তাই নয়, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প যখন পাকিস্তানকে সন্ত্রাসীদের প্রশ্রয় দেওয়ার জন্য অভিযুক্ত করছেন, তখন তিনি ভারতের ভূমিকার প্রশংসা করছেন। আফগান যুদ্ধে জয়ে তিনি ভারতকে পাশে চাইছেন। দেশটিতে শান্তি ও স্থিতিশীলতা প্রতিষ্ঠার জন্য অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে অবদান রাখতে ভারতের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন ট্রাম্প।

যুক্তরাষ্ট্র পাকিস্তানের বিরুদ্ধে আফগান তালেবানদের সহযোগিতা করার অভিযোগ আনলেও চীন উল্টো দাবি করছে। চীনের দাবি, সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধে পাকিস্তানের ভূমিকার স্বীকৃতি পাওয়া উচিত। সন্ত্রাসবাদবিরোধী লড়াইয়ে পাকিস্তান অনেক কিছু উৎসর্গ করেছে।

মঙ্গলবার চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই পাকিস্তানের পররাষ্ট্র সচিব তেহমিনা জানজুয়ার সঙ্গে বৈঠক করেন। এ বৈঠকে ওয়াং ই পাকিস্তানের প্রতি চীনের সমর্থন পুনর্ব্যক্ত করেন। চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র হুয়া চুনিং সুনির্দিষ্টভাবে বলেন, সন্ত্রাসবাদবিরোধী লড়াইয়ে পাকিস্তান সামনের সারিতে আছে এবং এ ক্ষেত্রে তাদের উৎসর্গকে স্বীকৃতি দেওয়া উচিত। এই যুদ্ধে পাকিস্তানের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকার স্বীকৃতি দেওয়ার জন্য তিনি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আহ্বান জানান।

চীনে ওয়াং ই এবং তেহমিনা জানুয়ার বৈঠকের সময় আফগানিস্তানের শান্তি ও স্থিতিশীলতা প্রতিষ্ঠায় দুই দেশ একসঙ্গে কাজ করে যাওয়ার প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করেন। তারা ত্রীপক্ষীয় আফগানিস্তান-পাকিস্তান-চীন ফোরামের ওপর গুরুত্বারোপ করেন।

জুন মাসে ওয়াং ই-এর ইসলামাবাদ সফরের সময় তিন দেশের এই ফোরাম গঠিত হয়। আফগানিস্তান ও পাকিস্তানের মধ্যকার ভুল বোঝাবুঝির অবসানের লক্ষ্যে ওই মাসে ইসলামাবাদ সফর করেন চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী।

অন্যদিকে, ট্রাম্পের হুঁশিয়ারির পর দিন পাকিস্তানকে আবারো সতর্ক করলেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী রেক্স টিলারসন। আফগান তালেবানদের সমর্থন না করতে পাকিস্তানের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন তিনি। এ ছাড়া পাকিস্তানে যেসব সন্ত্রাসী সংগঠন প্রকাশ্যে কার্যক্রম চালাচ্ছে, তাদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নিতে এবং দৃষ্টিভঙ্গির পরিবর্তন করতে বলছে যুক্তরাষ্ট্র।

দক্ষিণ এশিয়া ভারতের চেয়েও যুক্তরাষ্ট্রের কাছে বেশি গুরুত্বপূর্ণ মিত্র পাকিস্তান। ন্যাটো সদস্য না হয়েও যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে বিশেষ সুবিধা পায় পাকিস্তান। প্রতিবছর শত শত কোটি ডলার সহায়তা দিয়ে আসছে যুক্তরাষ্ট্র। এখন সেই মার্কিন প্রশাসন অভিযোগ করছে, পাকিস্তান সন্ত্রাসের লালন-পালন করছে।

যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে দীর্ঘ যুদ্ধ ‘আফগান যুদ্ধ’। ১৬ বছরেও এ যুদ্ধে বিজয়ী হতে পারেনি যুক্তরাষ্ট্র। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প এ যুদ্ধের ঘোর বিরোধী থাকলেও অবস্থান পাল্টেছেন তিনি। বলছেন, এবার আফগান যুদ্ধ হবে ‘জয়ের জন্য লড়াইয়ের’। আফগানিস্তানে নতুন করে প্রায় ৪ হাজার সেনা মোতায়েন করতে যাচ্ছেন যুক্তরাষ্ট্রের কমান্ডার ইন-চিফ ট্রাম্প।

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ