এয়ার ফোর্স ওয়ানে নতুন বিমানে ট্রাম্পের ‘না’

মার্কিন প্রেসিডেন্টকে বহনকারী নতুন বিমানের আদেশ বাতিলের আহ্বান জানিয়েছেন দেশটির নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ওই বিমানের খরচ মাত্রাতিরিক্ত হওয়ার কারণেই তিনি বোয়িংয়ের সঙ্গে করা ওই চুক্তি বাতিল করার কথা বলেছেন। নিজের টুইটার অ্যাকাউন্টে এক টুইটে ট্রাম্প এই আহ্বান জানিয়েছেন। পরে সাংবাদিকদের উদ্দেশেও একই কথা বলেন তিনি। মঙ্গলবার ব্রিটিশ গণমাধ্যমে বিবিসি ও মার্কিন গণমাধ্যম সিএনএন এ খবর জানায়।

খবরে বলা হয়, মার্কিন প্রেসিডেন্টকে বহনকারী এয়ার ফোর্স ওয়ান বিমান বহরে যুক্ত করার জন্য নতুন দু’টি বিমানের অর্ডার দেওয়া হয়েছিল বোয়িংকে। ২০২৪ সাল নাগাদ ওই দু’টি বিমান যুক্ত হওয়ার কথা রয়েছে এয়ার ফোর্স ওয়ানে। কিন্তু সেই দুই বিমানের অর্ডারকেই বাতিলের কথা বলেছেন ট্রাম্প।

টুইটে ট্রাম্প লিখেছেন, ‘ভবিষ্যৎ প্রেসিডেন্টের জন্য বোয়িং একদম নতুন ৭৪৭ এয়ার ফোর্স ওয়ান বিমান তৈরি করছে। কিন্তু এর খরচ নিয়ন্ত্রণের বাইরে। এর পরিমাণ ৪শ কোটি ডলারেরও বেশি। ওই চুক্তি বাতিল করা হোক।’

পরে ট্রাম্প টাওয়ারের লবিতেও হাজির হন ট্রাম্প। সেখানেও তিনি টুইটের বক্তব্যেরই পুনরাবৃত্তি করেন। সাংবাদিকদের ট্রাম্প বলেন, ‘ওই বিমান সম্পূর্ণভাবেই নিয়ন্ত্রণের বাইরে। আমার মনে হয় এটা হাস্যকর। আমরা চাই বোয়িং অনেক অর্থ আয় করুক, তবে এত বেশি অর্থ নয়।’

ট্রাম্পের টুইটের পরই শেয়ারবাজারে বোয়িংয়ের দরপতন ঘটে ১ শতাংশেরও বেশি। পরে অবশ্য বিকালের দিকে সেই ঘাটতি পুষিয়ে উঠতে সক্ষম হয় তারা। ১৯৪৩ সাল থেকে কোম্পানিটি মার্কিন প্রেসিডেন্টের জন্য বিমান তৈরি করে আসছে। এয়ার ফোর্স ওয়ানের জন্য নতুন দু’টি বিমান তৈরির কাজ তারা এখনও শুরু করেনি।

%d bloggers like this: