Home > তথ্য ও প্রযুক্তি > অ্যান্টার্কটিকার অনাবিষ্কৃত হ্রদে জীবনের সন্ধানে গবেষণা

অ্যান্টার্কটিকার অনাবিষ্কৃত হ্রদে জীবনের সন্ধানে গবেষণা

একদল বিজ্ঞানী ও গবেষক অ্যান্টার্কটিকা মহাদেশে বরফের ৩,৫০০ ফুট নিচে ঢেকে থাকা একটি বিশাল হ্রদে প্রথমবারের মতো গবেষণা চালাচ্ছেন। ‘লেক মারসার’ নামের বরফ ঢাকা ওই হ্রদে জীবনের কোনো অস্তিত্ব পাওয়া যায় কি না, তা নিয়ে গবেষণা চালাবেন বিজ্ঞানীরা।

বিশাল ওই হ্রদটি ৬২ বর্গমাইল দীর্ঘ, যা আমেরিকার ম্যানহাটনের দ্বিগুণ। এক দশক আগে লেকটি সম্পর্কে স্যাটেলাইট ইমেজের মাধ্যমে জানা গেলেও তা এতোদিন অনেকটা অনাবিষ্কৃতই ছিল। অ্যান্টার্কটিকায় থাকা প্রায় ৪০০টি লেকের একটি এই লেক। সেখানে জীবনের অস্তিত্ব খুঁজে পেলে, মঙ্গল গ্রহের বরফ চাপা ভূপৃষ্ঠে বা বৃহস্পতি ও শনি গ্রহের বরফ ঢাকা উপগ্রহেও জীবনের অস্তিত্ব থাকার সম্ভাবনা থাকবে বলে মনে করছেন বিজ্ঞানীরা।

গেল বছরের শেষ দিকে কয়েক দিন সময় নিয়ে বিশেষ যন্ত্রের মাধ্যমে বরফ খনন করেন গবেষকরা। ২৩ ডিসেম্বর খননের কাজ শুরু করে ২৬ ডিসেম্বর শেষ হয়। বিজ্ঞানী, গবেষক, খননকারী সহ ৪৫ জন ছিলেন ওই দলে।

বরফ খননের পর একটি গর্তের মধ্য দিয়ে বিশেষ একটি ভাসমান যান পাঠানো হবে গভীরে, যা পরিচালিত হবে রিমোটের মাধ্যমে। পানির গভীরে চলতে পারা ওই বিশেষ যানটি লেকের গভীরের বিশদ ফুটেজ ধারণ করবে ও পর্যবেক্ষণ করবে। বিজ্ঞানীরা বলছেন বরফ পানির গভীর অন্ধকারে কোনো প্রাণী থাকলে ওই বিশেষ যানটিতে থাকা তিনটি ভিডিও ক্যামেরা তার ফুটেজ ধারণ করবে।

এই গবেষণা প্রজেক্টের প্রধান, মন্টানা স্টেট ইউনিভার্সিটির ইকোলজিস্ট জন প্রিসকু বলেছেন, কেউ জানে না সেই গভীর লেকের অভ্যন্তরে কী আছে। আর এই বিষয়টিই গবেষকদের মনে রোমাঞ্চ তৈরি করছে। এই লেকের গভীরতা, তার অভ্যন্তরীণ তাপমাত্রা, পানির স্বচ্ছতা এসবও পর্যবেক্ষণ করা হবে। এর আগে ২০১৩ সালে এই লেক মারসার পার্শ্ববর্তী ছোট হ্রদ-লেক ইউলানসে গবেষণা চালিয়ে মাইক্রোব অর্থাৎ ছোট্ট জীব কণার অস্তিত্ব খুঁজে পান গবেষকরা।

তথ্যসূত্র: ডেইলি মেইল

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ