Home > তথ্য ও প্রযুক্তি > ইন্টেল প্রসেসরে নিরাপত্তা ঝুঁকি

ইন্টেল প্রসেসরে নিরাপত্তা ঝুঁকি

বিজ্ঞান-প্রযুক্তি ডেস্ক : ইন্টেলের প্রসেসর আক্রান্ত হতে পারে এমন তিনটি নিরাপত্তা ত্রুটি সম্পর্কে জানিয়েছেন নিরাপত্তা গবেষকরা, যা ব্যবহারকারীদের সাইবার হামলার ঝুঁকিতে ফেলতে পারে।

আন্তর্জাতিক একটি গবেষক দল ‘ফোরশ্যাডো’ নামক নতুন একটি নিরাপত্তা ত্রুটি শনাক্ত করেছেন, যা হ্যাকারদেরকে একটি কম্পিউটারের মেমোরি থেকে ফাইল, ছবি এবং পাসওয়ার্ড চুরির সুযোগ দিতে পারে।

এ বছরের শুরুতে গবেষকরা দুটি নিরাপত্তা ত্রুটি (যা হ্যাকারদেরকে থার্ড পার্টি ক্লাউড স্টোরেজ থেকে ব্যবহারকারীর তথ্য চুরির সুযোগ দিতে পারে) শনাক্ত করার পর এবার আরেকটি নিরাপত্তা ত্রুটি শনাক্ত করেছেন।

সম্ভাব্য নিরাপত্তা ঝুঁকির প্রসেসরের তালিকায় রয়েছে ইন্টেলের কোর এবং জিওন প্রসেসর সমূহ, যা ব্যক্তিগত কম্পিউটার ব্যবহারকারী এবং ডেটা সেন্টারকে নিরাপত্তা ঝুঁকিতে রেখেছে।

‘ফোরশ্যাডো’র মাধ্যমে হ্যাকাররা ইন্টেল, এএমডি এবং এআরএম হোল্ডিং এর প্রসেসর ব্যবহৃত কম্পিউটার থেকে তথ্য চুরি করতে পারে।

ব্যবহারকারীদের সুরক্ষিত রাখতে এ বছরের শুরুতে শনাক্ত করা ত্রুটিসহ নতুন ত্রুটি মোকাবেলায় ইন্টেলের অ্যাসুরেন্স অ্যান্ড সিকিউরিটি টিম কাজ শুরু করেছে বলে জানিয়েছে ইন্টেল কর্তৃপক্ষ। গবেষকরা ব্যতীত বাইরে থেকে সাইবার আক্রমণের কোনো ঘটনা এখন পর্যন্ত যদিও ঘটেনি তবে ইন্টেল জানিয়েছে, এ সংক্রান্ত সফটওয়্যার আপডেটগুলো সম্ভাব্য নিরাপত্তা ঝুঁকি কমাবে।

ভবিষ্যতের প্রসেসরগুলোতে এ ধরনের হামলার বিরুদ্ধে আরো ভালোভাবে সুরক্ষার জন্য হার্ডওয়্যার উন্নয়নেও কাজ করছে ইন্টেল।

ইন্টেল তাদের ব্লগ পোস্টে জানিয়েছে, ‘আমরা এ ধরনের ত্রুটির ব্যাপারে সচেতন থাকি না, কারণ এসব ত্রুটির মাধ্যমে বাস্তবে কোনো কম্পিউটারই আক্রান্ত হয়নি। কিন্তু তারপরও এটি নিরাপত্তার আরো সর্বোত্তম চর্চা অব্যাহত রাখার প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরেছে।’

‘ফোরশ্যাডো’ ইন্টেলের এসজিএক্স ফিচারকে আক্রান্ত করে থাকে, এই ফিচারটি সাইবার হামলা থেকে ব্যবহারকারীর ডেটা সুরক্ষাকারী থেকে ফিচার হিসেবে পরিচিত।

শনাক্ত হওয়া ত্রুটিতে সাধারণ কম্পিউটার ব্যবহারকারীদের ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার সম্ভাবনা কম বলে জানিয়েছে ইন্টেল। কিন্তু ডেটা সেন্টার এবং ভার্চুয়াল প্রযুক্তি পরিচালনায় অতিরিক্ত সতর্কতা নিতে হবে। প্রতিষ্ঠানটি সাম্প্রতিক আপডেটগুলো ইনস্টল করার জন্য জোর দিচ্ছে।

‘ফোরশ্যাডো’ লাখ লাখ ডিভাইসকে আক্রান্ত করার ক্ষমতা রাখে। এইচপি, অ্যাপল, মাইক্রোসফট, ডেল সহ অনেক কোম্পানি তাদের নির্মিত কম্পিউটারে ইন্টেলের প্রসেসর ব্যবহার করে থাকে। ঝুঁকির মধ্যে থাকা সম্ভাব্য ইন্টেল প্রসেসরগুলো হচ্ছে :

কোর আই৩ (৪৫এনএম এবং ৩২এনএম), কোর আই৫ (৪৫এনএম এবং ৩২এনএম), কোর আই৭ (৪৫এনএম এবং ৩২এনএম), কোর এম (৪৫এনএম এবং ৩২এনএম), দ্বিতীয় প্রজন্মের কোর প্রসেসর, তৃতীয় প্রজন্মের কোর প্রসেসর, চতুর্থ প্রজন্মের কোর প্রসেসর, পঞ্চম প্রজন্মের কোর প্রসেসর, ষষ্ঠ প্রজন্মের কোর প্রসেসর, সপ্তম প্রজন্মের কোর প্রসেসর, অষ্টম প্রজন্মের কোর প্রসেসর, এক্স৯৯ প্ল্যাটফর্মের জন্য কোর এক্স সিরিজের প্রসেসর, এক্স২৯৯ প্ল্যাটফর্মের জন্য কোর এক্স সিরিজের প্রসেসর, ইন্টেল জিওন ৩৪০০ সিরিজ প্রসেসর, জিওন ৩৬০০ সিরিজ প্রসেসর, জিওন ৫৫০০ সিরিজ প্রসেসর, জিওন ৫৬০০ সিরিজ প্রসেসর, জিওন ৬৫০০ সিরিজ প্রসেসর, জিওন ৭৫০০ সিরিজ প্রসেসর, জিওন ই৩, জিওন ই৩ ভি২, জিওন ই৩ ভি৩, জিওন ই৩ ভি৪, জিওন ই৩ ভি৫, জিওন ই৩ ভি৬, জিওন ই৫, জিওন ই৫ ভি২, জিওন ই৫ ভি৩, জিওন ই৫ ভি৪, জিওন ই৭, জিওন ই৭ ভি২, জিওন ই৭ ভি৩, জিওন ই৭ ভি৪, জিওন স্কেলেবল, জিওন ডি (১৫০০, ২১০০)।

তথ্যসূত্র : ডেইলি মেইল

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ