Home > তথ্য ও প্রযুক্তি > যে কারণে এক সপ্তাহ ফেসবুক বন্ধ রাখবেন

যে কারণে এক সপ্তাহ ফেসবুক বন্ধ রাখবেন

ইতোমধ্যেই আপনি হয়তোবা দেখে থাকবেন, বেশ কিছু গবেষণায় ফেসবুক ব্যবহারের কিছু মনস্তাত্ত্বিক এবং সামাজিক ক্ষতিকর প্রভাবের কথা উঠে এসেছে বারবার।

যদিও ফেসবুক মানুষকে পারস্পরিক কাছে আনার জন্য এবং যোগাযোগ রক্ষার সুবিধার্থে তৈরি করা হয়েছিল কিন্তু পরবর্তীতে দেখা গেছে, অতি মাত্রায় ফেসবুক ব্যবহার মানুষকে বরং আরো বেশি অসামাজিক করে তুলছে। আর মনস্তাত্ত্বিক দিকগুলোর মধ্যে হল- নিজের কার্যক্ষমতা হ্রাস এবং অতিমাত্রায় হিংসাত্মক আচার আচরণ।

কিন্তু এই ধরনের গবেষণার মানে এই না যে, আপনি কখনই এই ধরনের ক্ষতিকারক প্রভাব কাটিয়ে উঠতে পারবেন না। সম্প্রতি সাইবার সাইকোলজি’র ওপর লেখা এক পত্রিকায় এসেছে, এক সপ্তাহের জন্য ফেসবুক পরিহার করলেও এই ধরনের ক্ষতিকর প্রভাব থেকে নিজেকে মুক্ত রাখা যায়।

একটি গবেষণার অংশ হিসেবে ডেনমার্কের প্রায় ১১,০০ মানুষ এক সপ্তাহের জন্য ফেসবুক ব্যবহার বন্ধ রেখেছিলেন। ফেসবুক ব্যবহারের পূর্বে এবং পরবর্তীতে সেই মানুষদের তাদের জীবনযাপনের ওপর বেশ কিছু প্রশ্নের উত্তর দিতে হয়েছে। প্রশ্নগুলো ছিল- ফেসবুক ব্যবহার বন্ধের পূর্বে এবং পরবর্তীতে তাদের জীবনের একাকীত্ব, সুখ, ভয়, দুঃখ এবং মানসিক উদ্যম নিয়ে।

নতুন গবেষণায় উঠে এসেছে, এই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম কীভাবে মানুষের ব্যক্তিগত জীবনে প্রভাব ফেলে। এক সপ্তাহ পর দেখা যায়, সবাই তাদের ব্যক্তিগত জীবনে বেশ কিছু উন্নতি হয়েছে বলে রিপোর্ট করছে। এই ১১০০ মানুষের মধ্যে যারা গবেষণার পূর্বেও খুব বেশি ফেসবুক ব্যবহার করতেন না তাদের ব্যক্তিগত জীবনে এক সপ্তাহের জন্য ফেসবুক বন্ধে তেমন কোনো প্রভাব ফেলেনি। কিন্তু যারা ফেসবুক খুব বেশি ব্যবহার করতেন, এক সপ্তাহ পরে তাদের হিংসাত্মক মনোভাব হ্রাস এবং কার্যক্ষমতা বৃদ্ধি পায় বলে গবেষণায় উঠে আসে।

তবে আপনি ফেসবুক অ্যাকাউন্ট ডি-অ্যাক্টিভেট করার আগে বলে আপনাকে বলে রাখা জরুরি যে, এই গবেষণার সীমাবদ্ধতা রয়েছে। যেহেতু গবেষণায় অংশগ্রহণে স্বেচ্ছাসেবকদের আগেই জানতো যে, তাদেরকে ফেসবুক অব্যাহতি বা অব্যাহত থাকার কথা বলা হয়েছে, তাই তারা হয়তো তাদের সুখভোগের কারণটি অনুভব করতো কারণ তারা তা প্রত্যাশা করেছিল। তাছাড়া স্বেচ্ছাসেবীরা তাদের ফেসবুক ব্যবহার আসলেই বন্ধ রাখছে কি না অথবা তারা গোপনে মাঝে মধ্যে তাদের ফেসবুক প্রোফাইলে লগ-ইন করছে কি না, এটা পর্যবেক্ষণ করা রীতিমতো দুঃসাধ্য একটা কাজ।

কোপেনহ্যাগেন বিশ্ববিদ্যালয়ের এই গবেষণার অন্যতম একজন গবেষক মর্টেন টমগল্ট বলেন, ‘ফেসবুকের মাধ্যমে কোনো সফলতাও কিন্তু আপনার ব্যক্তিগত জীবনযাপনে অনেক ভালো পরিবর্তন আনতে পারে। তাই একেবারে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম পরিহার নয় বরং এর পরিমিত ব্যবহার আপনার জীবনকে অনেক সুন্দর করে তুলতে পারে।’

তথ্যসূত্র : রিডার্স ডাইজেস্ট

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ