করোনা: হর্সশু বাদুড় নিয়ে থাইল্যান্ডে গবেষণা

থাইল্যান্ডের বিজ্ঞানীরা করোনাভাইরাসের জন্য হর্সশু বাদুড় নিয়ে গবেষণা করছেন। শনিবার (১৩ জুন) এক সরকারি বিবৃতিতে এই তথ্য জানানো হয়।

এই বাদুড় দেশটিতে করোনা মহামারির কারণ হয়ে উঠতে পারে, এমন উদ্বেগ থেকে এই গবেষণা। খবর রয়টার্সের।

বিজ্ঞানীরা দেশটির চান্থাবুরি প্রদেশের একটি গুহা থেকে তিন দিনের মধ্যে ৩০০ বাদুড় সংগ্রহ করার পরিকল্পনা করেছে। রক্ত, লালা এবং মলের নমুনা পরীক্ষা করে বাদুড়গুলোকে ছেড়ে দেওয়া হবে। থাইল্যান্ডের ২৩ প্রজাতির হর্সশু বাদুড় রয়েছে, তবে এর আগে এটি নিয়ে কখনো গবেষণা হয়নি।

সার্স-কোভ-২ নামক নতুন করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে বিশ্বের প্রায় সব দেশ ও অঞ্চলে। গত বছরের শেষের দিকে চীনের উহানে প্রথমে শনাক্ত হওয়া এই ভাইরাসের উৎস বিতর্কের বিষয় হিসেবে রয়ে গেছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডাব্লিউএইচও) গত এপ্রিলে বলেছে, ‘সকল ধরনের প্রমাণ থেকে বোঝা যাচ্ছে, চীনের বাদুড় থেকেই এই ভাইরাসের উদ্ভব হয়েছিল, তবে ভাইরাসটি কীভাবে মানুষের মধ্যে ছড়িয়েছে এটি স্পষ্ট নয়।’

থাইল্যান্ডের গবেষক দলের মধ্যে রয়েছেন সুপাপর্ন ওয়াচারাপ্লুসাদি, তিনি জানুয়ারিতে দেশের প্রথম কোভিড-১৯ রোগী শনাক্ত করেছিলেন। সুপাপর্ন বলেন, ‘হর্সশু বাদুড় নিয়ে আমাদের গবেষণার কারণ হলো, চীনের গবেষণায় কোভিড-১৯ রোগের করোনাভাইরাসের সঙ্গে হর্সশু বাদুড়ে পাওয়া ভাইরাসের মিল পাওয়া গেছে।’

থাইল্যান্ডই চীনের বাইরে এই ভাইরাসের প্রথম কেস রেকর্ড করেছিল। দেশটিতে এখন পর্যন্ত ৩,১৩৪ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে এবং ৪৮ জন মৃত্যুবরণ করেছে।

দেশটির প্রত্যন্ত অঞ্চলের গ্রামবাসীদের খাবারের তালিকায় বাদুড় রয়েছে, ফলে সংক্রমণের ঝুঁকিতে পড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

%d bloggers like this: