ফানুস ও ঝুল বারান্দা

ফানুস

গোপনীয় পাপের রসায়নে কিছু মানুষ পরাজিত হয় নিজের কাছে।
মৃতপ্রায় মাছের মত নিষ্প্রাণ চোখে  টুপটাপ তারা-
ফিসফিস করে পড়ে ফোঁটা ফোঁটা জল।
সে জল ঘোর অমাবস্যার মত একা;
যেন দীর্ঘ সমুদ্র পাড়ি দিচ্ছে অভিবাসীর একেকটি দল!
যূথবদ্ধ অথচ কেউ নয় কারো দাবিদার!
কোথাও পড়েছে রক্তের দাগ, কোথাও রয়েছে সংসার পরিত্যক্ত।

বিলাসে ভেসে যাচ্ছে আরবের আমিরেরা
খাবার টেবিলে ময়ুরীর ঊরুর মত হৃষ্টপুষ্ট মাংসের আহ্বান!
খরার ভিড়ে সুরার জলসা করছে পান।
সেখানেও পরকীয়া সঙ্গমের মত পাপ-
ক্ষয়ে পড়ে সভ্যতার ক্রমঃ ধারাপাত;  মানুষের নিজস্ব উপন্যাস।

ওখানেই থেমে যাও … মুখ ফেরালাম প্রবল ঘৃণায়
ভাসমান তুমি এতটা অগভীর …
ভালবাসাকেও অপবিত্র করে দিলে!

ঝুল বারান্দা  
আমায় নিয়ে তুই তোর সেই বাড়ি যাবি?
মন কেমনের ঠাণ্ডা দিনে, মলিন গানে …
ছুটছি আমি, সুখেই আছি; তবু কোথায় ছন্দ পড়ে,
দ্বন্দ্ব সকল- কাঠগোলাপের গোপন আড়ে
সবুজ পাতা-ওম ওঠা চা`র শেষ চুমুকে, চোখ ভাসে তোর!

আমায় অনেক উড়তে দিতিস, মনে আছে?
তুই এখনো উড়িস বড়? অনেক পড়ে আমায় মনে?
কানে কানে, কথা`র সুরে
ঝুল বারান্দা, নিরব দুপুর সরব হলে-
বোদলেয়ার আর শেক্সপিয়ারে?

বৃষ্টি দেখে কাঁপতি কেন বল তো আমায়!
কেন অমন হন্যে হয়ে আসতি শুধুই আমার কাছে?
বাড়িয়ে দিতি ছোট্টবেলা, কাঁদলে দিতি চোখ মুছিয়ে!
কেন আমায় থেকে থেকে হাতছানিতে
হাঁটতে হাঁটতে দূর পাহাড়ের দেশে নিতিস?

%d bloggers like this: