Home > সারাদেশ > মন্ত্রীর নির্দেশেও জমি অধিগ্রহনে পদক্ষেপ নেই বঙ্গবন্ধু হাইটেক পার্কে

মন্ত্রীর নির্দেশেও জমি অধিগ্রহনে পদক্ষেপ নেই বঙ্গবন্ধু হাইটেক পার্কে

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহী মহানগরীর বুলনপুর এলাকায় নির্মাণাধিন বঙ্গবন্ধু হাইটেক পার্কে ব্যক্তি মালিকানাধীন ৪ দশমিক ১১ একর জমি এখনো অধিগ্রহণ করা হয়নি। এ সমস্য সমাধনে আইসিটি প্রতিমন্ত্রী নির্দেশ দিলেও এখনো কোন পদক্ষেপ নেয়নি প্রকল্প কর্র্তপক্ষ।

এছাড়াও না জমি অধিগ্রহণ না করায় গত ২১ জানুয়ারি সংশ্লিষ্ট ৩ কর্মকর্তার বিরুদ্ধে রুল জারি করেছিলেন হাইকোর্টের বিচারক মামুনুর রহমান ও বিচারক আশিষ রঞ্জন দাস। আদালতের রায় অমান্য করায় তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা কেন হবে না তা জানতে চেয়ে এই ৩ কর্মকর্তাকে ৪ সপ্তাহের মধ্যে জবাব দিতে বলা হয়েছিল।

রাজশাহীর বুলনপুর এলাকার মৃত আব্দুল জব্বারের পুত্র ও জমির ওয়ারিসদার জাহাঙ্গীর আলম জানান, বুলনপুরে ৪ দশমিক ১১ একর জমি তাদের নিজস্ব সম্পত্তি। কিন্তু ওই সম্পত্তি অধিগ্রহণ বা অধিগ্রহণ বাবদ ক্ষতিপূরণ না দিয়েই রাজশাহী গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশল দপ্তর-২ থেকে সেখানে বঙ্গবন্ধু হাইটেক পার্ক নির্মাণকাজ শুরু করে। এ ব্যাপারে উচ্চ আদালতে মামলা বিচারাধীন। উচ্চ আদালতে রিট পিটিশন দাখিল করলে আপিল বিভাগ ওই জমিতে স্থাপনা নির্মাণে নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। তবে আদালতের নির্দেশনা অমান্য করে সেখানে স্থাপনা নির্মাণকাজ অব্যাহত রয়েছে। জমির গাছপালা কর্তন, পুকুর ভরাট এমনকি জমির চারপাশে প্রাচীর নির্মাণকাজ শেষ করে সেখানে অন্যান্য কাজ চলমান রয়েছে।

তিনি বলেন, আদালতের আদেশ অমান্য করে নির্মাণকাজ চলমান রাখায় গত ২১ জানুয়ারি হাইকোর্ট রুল জারি করেন। আদালতের রায় অমান্য করায় কেন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে না তা জানতে চেয়ে রাজশাহীর তৎকালীন জেলা প্রশাসক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা, দায়িত্বপ্রাপ্ত আইসিটি) ও রাজশাহী গণপূর্ত বিভাগ-২ এর নির্বাহী প্রকৌশলীকে ৪ সপ্তাহের মধ্যে জবাব দিতেও বলা হয়। তবে তারা কী জবাব দিয়েছেন তা তারা জানতে পারেননি বলেও জানান তিনি।

জাহাঙ্গীর আলম বলেন, গত ১০ সেপ্টেম্বর হাইটেক পার্ক এলাকায় বৃক্ষরোপন উদ্বোধন করতে এসেছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি (আইসিটি) প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। আমরা তার কাছে গিয়ে বিষয়টি বলি। তিনি বিষয়টি মনোযোগ দিয়ে শুনেন। পরে প্রকল্প পরিচালককে বিষয়টি দ্রুত নিষ্পত্তি করার জন্য নির্দেশ দেন প্রতিমন্ত্রী। কিন্তু এর পরও প্রকল্প কর্তৃপক্ষ এখনো কোন ব্যবস্থা গ্রহন করেননি। এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেন জাহাঙ্গীর আলম।

বঙ্গবন্ধু হাইটেক পার্ক নির্মাণ প্রকল্প পরিচালক ফজলুল হক হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি এড়িয়ে গিয়ে বলেন, কাজ বন্ধ রাখার কোনো অবকাশ নেই। বরং হাইকোর্টের রায় নিয়ে এলেই কেবল কাজ বন্ধ করা হবে। তাদের জমিতে কোন কাজ চলছে না বলে দাবি করেন তিনি।

এ নিয়ে জাহাঙ্গীর আলম বলেন, হাইটেক পার্কের প্রচীর দিয়ে তাদের জমি ঘিরে ফেলেছে। আমাদের জমিতে ড্রেন ও রাস্তা নির্মাণ করা হচ্ছে। এছাড়াও আমাদের জমিতে আদালতের নির্দেশনার সাইনবোর্ড টাঙ্গানো হলে সেগুলো ফেলে দেয়া হয় বলে জানান তিনি।

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ