Home > সারাদেশ > বাগমারায় কোলা বিলের ২০ লক্ষ টাকা হাতিয়ে উধাও সভাপতি

বাগমারায় কোলা বিলের ২০ লক্ষ টাকা হাতিয়ে উধাও সভাপতি

বাগমারা প্রতিনিধিঃ রাজশাহীর বাগামারা উপজেলার নরদাশ ইউনিয়নের কোলা বিল কমিটির সভাপতির বিরুদ্ধে শেয়ার হোল্ডারদের প্রায় কুড়ি লক্ষ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। ঘটনা ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায় চন্ডিপুর, কোয়ালীপাড়া,মনোপাড়া,চাঁইসারা গ্রামের চারশত শেয়ার হোল্ডার নিয়ে কোলা বিল মৎস্য চাষ প্রকল্প পরিচালিত হয়ে আসছিল। পাঁচ বছরের জন্য প্রকল্পটির সভাপতির দায়িত্ব পালন করছিলেন চন্ডিপুর গ্রামের সেকেন্দার মেম্বারের পুত্র স্থানীয় প্রভাবশালী গোলাম মোস্তফা। দুই বছর যেতে না যেতে মোটা অংকের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে গোলাম মোস্তফার বিরুদ্ধে। জমির রকম ভেদে বিনা পয়সায় সেচ সুবিধা, সারা বছর পানিজমে থাকা জমিতে চারশত টাকা হারে প্রতি শতক জমির মালিককে পরিশোধের কথা ছিল বিল কমিটির। কিন্তু তা পরিশোধ করেননি বলে অভিযোগ করেন কোয়ালপিাড়া গ্রামের মৃত আব্দুর রহমানের পুত্র একরামুল হক টিপু।

গত ২৮ জুলাই বিকালে কোয়ালীপাড়া হাইস্কুল মাঠে সাধারণ সভায় সকল সদস্যসহ এলাকার গন্যমান্য প্রায় পাঁচ শতাধিক মানুষ উপস্থিত থাকলেও অনুপস্থিত ছিলেন বিল কমিটির সভাপতি। সভায় সর্ব সম্মতিক্রমে সভাপতির পদ থেকে বহিষ্কার করা হয় গোলাম মোস্তফাকে।

উপার্জিত আয় থেকে মসজিদ, মন্দির, মাদ্রসাসহ দাতব্য প্রতিষ্ঠানে আর্র্থিক সাহায্যের প্রতিশ্রুতি থাকলেও সভাপতি এ সকল বিষয় সুকৌশলে এড়িয়ে গেছেন বলে এলাকা সুত্রে জানা যায়।

এ সংক্রান্ত বিষয়ে সরেজমিন কোলা বিলে এলাকায় যাওয়া হলে কোয়ালীপাড়া গ্রামের বাসীন্দা দেলোয়ার হোসেন, রফিকুল ইসলাম, চন্ডিপুর গ্রামের গোলাম রাব্বানী, মনোপাড়া গ্রামের বাসীন্দা কফিল উদ্দীন এ প্রতিবেদকের কাছে অভিযোগ করেন, প্রায় কুড়ি লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিয়ে প্রকল্পের সভাপতি গোলাম মোস্তফা আত্মগোপনে রয়েছেন।

হিসাব নিকাশ সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে সভাপতির লোকজন এবং কোলা বিল মৎস্য চাষ প্রকল্পের সদস্যদের মাঝে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে। যে কোন মুহূর্তে আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতিসহ অপ্রীতিকর ঘটনার আসঙ্কা করছেন এলাকার শান্তিকামী মানুষ।

অর্থ আত্মসাত বিষয়ে বিল কমিটির সভাপতির কাছে মুঠোফোনে জানতে চাইলে তিনি বলেন, অর্থ আত্মসাতের বিষয়টি সঠিক নয়। কেহ প্রমাণ দিতে পারলে সারা বাগমারা ল্যাংটা হয়ে ঘুরবো। মিটিং এ অনুপস্থিতির কারণ জানতে চাইলে তিনি জানান, সাধারণ সম্পাাদক, সহসভাাপতির কাছে সময় প্রার্থনা করেছিলাম উনারা কথা রাখেননি।

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ