Home > সারাদেশ > অপরুপ সৌন্দর্য্যে ॥ সংরক্ষণ নেই বগুড়া’য় সোনালু ফুল ফুটেছে
VLUU L100, M100 / Samsung L100, M100

অপরুপ সৌন্দর্য্যে ॥ সংরক্ষণ নেই বগুড়া’য় সোনালু ফুল ফুটেছে

আল আমিন মন্ডল, বগুড়া প্রতিনিধিঃ বগুড়া জেলা’সহ বিভিন্ন উপজেলা ও গাবতলীতে শতশত সবুজ গাছে যেন হলুদ রঙ্গের সোনালু ফুল ফুটেছে। এ ফুলের অপরুপ সৌন্দর্য্য,সৌরভ ও শোভা এখন আর চোখেই পড়ে না। পাখির কোলাহল ও ফুলের গন্ধে যেন মনজুড়িয়েযায়। কালের বিবর্তনে সেই চিরচেনা সোনালু ফুল গাছ এখন বিলুপ্তির পথে।

জানাযায়, অপরুপ শোভা দানকারী সোনালু ফুল বৈশাখ ও জ্যৈষ্ঠ মাসে ফুটে। এলাকাভিক্তিক ফুলটির নাম ভিন্ন ভিন্ন। কোথাও সোনালু, কোথাও স্বানালী, বান্দর লাঠি, কর্ণিকা, অলানু, সোঁদাল। আবার কোথাও স্বনালী ফুল গাছ বলে পরিচিত। তবে এ সোনাইল ফুল গাছটির বৈজ্ঞানিক নাম ঈঅঝঝওঅ ঋওঝঞটওঅ। সৌন্দর্য্য’ের পাশাপাশি গাছের মালিক আর্থিক ভাবে লাভবান হতো। এপ্রিল-মে ও জুন মাসে সোনালু গাছটি থেকে লম্বা ছড়া বের হয়। সে ছড়া’য় সুন্দর হলুদ রংঙ্গের ফুল ফুটে। ফুল থেকে লম্বা শুটি হয়। সোনালু গাছের ফুল, লতা, পাতা, বীজ ও মূল ঔষধী কাজে ব্যবহার করা হয়। এছাড়াও সোনালু ফুল
গাছের শিকড় ও গাছের ছাল দিয়ে মানবদেহের জন্য অতিগুরুত্বপূর্ন ঔষধ তৈরী কাজে ব্যবহার হয়ে আসছে। সে ঔষধে মানবদেহের অনেক উপকার হয়। এছাড়াও আর্থিকভাবে লাভবান হচ্ছে কৃষক।

এ ফুল গাছটি বিলুপ্তির পথে চলে যাওয়ার ফলে গাছ ও ঔষধ তৈরীতে সংকট দেখা দিয়েছে। অল্পসংখ্যক সোনালু ফুল গাছ চোখে পড়লেও চাহিদা বৃদ্ধি পাওয়ায় দাম বেড়েছে কয়েকগুন। এ গাছের এতগুন থাকার পরেও গাছটি সংরক্ষন ও রক্ষায় কোন উদ্যোগ
নেই। পথচারি’রা কাগইল এলাকায় সোনালু ফুল গাছে বিভিন্ন প্রজাতির পাখি দেখতে গাছতলায় ছুটে আসেন। পাখি ও ফুল দেখে মনটা ভাল থাকে। গাবতলী উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ সোহেল মোঃ শামসুদ্দীন ফিরোজ বিসিএস (কৃষি) জানান,
সোনালু গাছ ফুল গুরুত্বপূর্ন। গাছটি মানুষের জন্য উপকারী। ব্যক্তিপর্য়াযে সোনালু ফুল গাছ সংরক্ষণ প্রয়োজন রয়েছে। উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা কৃষিবিদ মোঃ সোহরাব হোসেন জানান, সোনালু ফুল গাছ কৃষকের নানা কাজে প্রয়োজন হয়।
প্রাকৃতিক সৌন্দর্য্যরে দাবিদার এই সোনালু ফুল গাছ। উপ-সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষন কর্মকর্তা জুলফিকার আলী হায়দার ও উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা আতাউর রহমান ফটু জানান, সোনালু গাছটির সৌন্দর্য্যে সাধারন মানুষের দৃষ্টি ও মনটা’কে নাড়া দেয়।
ফলে কৃষক পরিবার হাসি-খুশিতে রয়েছে।

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ