Home > সারাদেশ > রাজশাহী রেলওয়ে কোয়াটার অবৈধ ভাবে দখল করার প্রতিবাদ করায় পিটিয়ে জখম

রাজশাহী রেলওয়ে কোয়াটার অবৈধ ভাবে দখল করার প্রতিবাদ করায় পিটিয়ে জখম

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহী রেলওয়ে কোয়াটার অবৈধ ভাবে দখল করার প্রতিবাদ করায় সুজ্জল (৩৮) নামের এক জনকে পিটিয়ে জখম করেছে রেলওয়ে এক কর্মচারি। শুক্রবার সন্ধা ৬ টার দিকে সিরোইল কলোনি আর/ই ৮৩ নাম্বার কোয়াটারের সামনে এ ঘটনা ঘটে। আহত কে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

ঘটনা সূত্রে জানা গেছে, বেশ কিছু দিন যাবত রাজশাহী রেলওয়ে পশ্চিম অঞ্চল রেলওয়ে কলোনির আর/ই ৮৩ নাম্বার কোয়াটার বাড়িটি সিপিও অফিসের বিল বাবু কাশেম গত ২৫ মে বাড়িটি ছেড়ে দেয়। কিন্তুু বাড়ি ছেড়ে দেয়ার পরে রেলওয়ে পশ্চিম অঞ্চলের সার্ভ এসিস্টেন্ড ইঞ্জিনিয়র (এসএস ই ওয়ে) হাবিবুর রহমানের কাছে হস্তান্তর না করে একাউন্টন্স অফিসের জামাদার পিয়ন আবুল কাশেমের কাছে ১ লক্ষ ২০ হাজার টাকা দিয়ে বিক্রয় করে দেয়। এই ঘটনা কে কেন্দ্র করে শুক্রবার আর/ই ৮৩ নাম্বার কোয়াটারটি জোর করে দখল করতে যায় একাউন্টস অফিসের জামাদার পিয়ন আবুল কাশেম ও তার ছেলে রাসেদ।

আরো জানা গেছে, কোয়াটারটি অবৈধ ভাবে দখন না করার জন্য বাধা দেন রাজশাহী রেলওয়ে শ্রমীক লীগের এক নেতা। এতে কোয়াটার দখল কারি রাসেদ শ্রমীক লীগ নেতাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করার চেস্টা করে। এসময় শ্রমীক লীগ নেতা কে বাঁচাতে গিয়ে সুজ্জল (৩৮) নামের এক ব্যবসায়ীকে মাথায় ধারালো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করে রাসেল। এতে সুজ্জলের মাথায় গুরুতর জখম হয়। পরে স্থানিয়রা উদ্ধার করে তাকে রামেক হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করায়। এর আগেও রাসেদ এক রেলওয়ে কর্মচারিকে পিটিয়ে জখম করে। এ অপরাধে রাসেল কে রাজশাহী থেকে পাকশি স্টেট ভূমি অফিসে বদলি করে।

নাম প্রকাশ না করা শর্তে এক শ্রমীক লীগ নেতা জানান, রেলওয়ের আইনগত নিয়ম অনুসারে আর/ই ৮৩ নাম্বার বাড়িটি মুলোত রেলওয়ে পশ্চিম অঞ্চলের সিপিও অফিসের কর্মচারিদের জন্য বরাদ্দ পাওয়ার কথা। কিন্তুু সিপিও অফিসের কর্মচারিকে না দিয়ে একাউন্স অফিসের পিয়ন জামাদার আনোয়ার হোসেন চাপ দিয়ে অবৈধ ভাবে দখল করতে যায়। এসময় শ্রমীকলীগ নেতা প্রতিবাদ করতে গেলে তার উপরে চড়াও হয়ে ধারাণলো অস্ত্র দিয়ে আঘাত করতে গেলে সুজ্জল (৩৮) বাধা দিতে গেলে তার মাথায় আঘাত করে রাসেল। এতে মাথা ফেটে গুরুতর অাহত হয় সুজ্জল।

এব্যপারে পশ্চিম অঞ্চল রেলওয়ের এসএস ওয়ার্ক ওয়ে ইঞ্জিনিয়র হাবিবুর রহমান জানান, আর/ই ৮৩ নাম্বার কোয়াটারটি ছাড়ার পরে আমার কাছে কেউ কোয়াটারটি হস্তান্তর করেনি। কেউ জদি অবৈধ ভাবে দখল করে থাকে তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলে জানান এ কর্মকর্তা। তবে মারামারি ও কোয়াটার দখলের বিষয় তিনি কিছু জানে না বলে জানান এ প্রতিবেদক কে।

এ ঘটনায় আরএমপি চন্দ্রীমা থানার ওসি হুমায়ন কবির জানান, বিষয়টি শুনেছি। অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে বলে জানান ওসি।

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ