Home > অন্যান্য > ফিচার > হাতপাখার ফেরিওয়ালা আবুল হোসেন।

হাতপাখার ফেরিওয়ালা আবুল হোসেন।

ছবি: মিনহাজুল ইসলাম। ছবিটি রাজশাহী বাঘা উপজেলা থেকে তোলা

আব্দুল কাদের নাহিদ:ইট পাথরের শহরে ইলেট্রিক পাখার বাতাসে গ্রামের ঐতিহ্য মানুষ ভুলতে বসলেও প্রকৃত মাটির মানুষরা কিন্তু এখনও সে ঐতিহ্য ধরে রেখেছে অতি আদরে।

পথে পথে ঘুরতে চোখে পড়লো রাজশাহীর বাঘা উপজেলার মাজার গেটে ৬০ উর্দ্ধ আবুল হোসেনের দিকে তার নিজের হাতের তৈরি বিভিন্ন ধরনের ২০-৩০ টি হাতপাখা নিয়ে বসেছিলেন তিনি। কাছে যেতেই উঠে দাড়ালেন বললাম চাচা আপনার একটা ছবি নিব মুচকি হেসে প্রস্তুতি নিলেন। ছবি উঠানোর পর জানতে চাইলাম চাচা ব্যবসা কেমন চলছে। তিনি বললনে সময়ের সাথে সাথে সব জিনিসের দাম বাড়লেও এসব জিনিসের দাম বাড়েনি এখনও তিনি এক সময় পনেরো থেকে বিশ পয়সা দিয়েও হাতপাখা বিক্রি করতেন বর্তমান এই সময়ে এসেও তুলনা মূলক কম দামে প্রতিটি হাতপাখা বিক্রি করছেন ১৫-২০ টাকা দামে। এই ঐতিহ্যবাহী পণ্যের সঠিক দাম না পেয়ে এ পেশা ছেড়েছেন অনেকেই। কিন্তু অভাবের তাড়নায় শৈশবে শুরু করা সেই ৫০ বছরের ব্যবসার মায়া ছাড়তে পারেনি এখনও।

গীষ্মের মৌসুম এলেই তিনি তালপাতা কেটে নিজে হাতে তৈরি করেন সৌখিন হাতপাখা। বছরের অন্য সময় তিনি ঘর মিস্ত্রির কাজ করে সংসার চালান। পাঁচ সন্তানের জনক আবুল হোসেনের বাড়ি উপজেলার চকছাতারি গ্রামে, তার তিন মেয়ে ও দুই ছেলে। মেয়েদের বিয়ে দিয়েছেন, ছেলেরা এখন নিজ নিজ পেশায় স্বয়ংসম্পন্ন।

ছেলেরা স্বয়ংসম্পন্ন হওয়ার পরেও এ পেশায় কেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, বসে থাকতে ভাল লাগে না শরীরের যতদিন চলে ততদিন পরিশ্রমের মধ্য দিয়ে বাঁকি জীবন পার করতে চাই।

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ