লাকসামে দেড় শতাধিক দোকান ঘর পুড়ে ছাই

কুমিল্লার লাকসামে অগ্নিকাণ্ডে দেড় শতাধিক দোকান ঘর পুড়ে গেছে। এতে ক্ষয়-ক্ষতির পরিমাণ কয়েক হাজার কোটি টাকা ছাড়িয়ে যাবে বলে একাধিক ব্যবসায়ীদের দাবি।

উপজেলার লাকসাম পৌরশহরের প্রাণকেন্দ্র দৌলতগঞ্জ বাজারে শুক্রবার রাত ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্র জানায়, রাত ১১টার দিকে লাকসাম পৌরশহরের প্রাণকেন্দ্র দৌলতগঞ্জ বাজারের কাপড়িয়াপট্টি, স্বর্ণপট্টি ও মনোহরীপট্টির প্রায় দেড় শতাধিক দোকান ঘর আগুনে পুড়ে গেছে।

খবর পেয়ে চৌদ্দগ্রাম, সোনাইমুড়ি, সদর দক্ষিণ, হাজীগঞ্জ, বরুড়া, কুমিল্লা ইপিজেড ও বাগিচাগাঁও দমকল বাহিনীর ১০টি ইউনিট প্রশাসন ও স্থানীয়দের সহায়তায় প্রায় তিনঘণ্টা চেষ্টা চালিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। এ রিপোর্ট লিখা পর্যন্ত অগ্নিকাণ্ডের কারণ জানা যায়নি।

পৌর মেয়র অধ্যাপক আবুল খায়ের জানান, এ ঘটনায় সকাল-সন্ধ্যা মাইকিং করে ১ দিনের জন্য ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ রাখতে সব ব্যবসায়ীদের প্রতি আহবান জানানো হয়েছে।

কাপড় ব্যবসায়ী সমিতির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি গোলাম ফারুক জানান, এ মার্কেটের দেড় শতাধিক দোকান আগুনে পুড়ে ছাই হয়েছে। আমাদের আনুমানিক শত কোটি টাকার ক্ষতিসাধিত হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি।

এ ব্যাপারে লাকসাম ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র কর্মকর্তা মোবারক আলী জানান, প্রথমে দমকল বাহিনী ঘটনাস্থলে নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করে। পরে চৌদ্দগ্রাম, সোনাইমুড়ি, সদর দক্ষিণ, হাজীগঞ্জ, বরুড়া, কুমিল্লা ইপিজেড ও বাগিচাগাঁও দমকল বাহিনীর ১০টি ইউনিট আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়।

লাকসাম থানা ওসি আবদুল্লাহ আল মাহফুজ জানান, আগুনের সূত্রপাত এখনও জানা যায়নি। তবে পুলিশ বাহিনী নজদারী তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে।

%d bloggers like this: