রামেক হাসপাতালে কলেজশিক্ষককে লাঞ্ছিতের অভিযোগ

রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় এক কলেজশিক্ষক চিকিৎসকদের দ্বারা লাঞ্ছিত হয়েছেন বলে তিনি দাবি করেছেন।

শুক্রবার (২৫ সেপ্টেম্বর) বিকেলে স্থানীয় সাংবাদিকদের কলেজশিক্ষক মামুনুর রশীদ রিপন বলেন, সকালে তাকে লাঞ্ছিত করার পর হাসপাতালের ইন্টার্ন চিকিৎসকরা তার কাছ থেকে জোর করে মুচলেকা আদায় করে নিয়েছেন।

মামুনুর রশীদ রিপন বলেন, তিনি নগরীর বঙ্গবন্ধু কলেজের অর্থনীতি বিভাগের প্রভাষক। শারীরিক সমস্যা নিয়ে বৃহস্পতিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) হাসপাতালের চার নম্বর ওয়ার্ডে ভর্তি হন।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, ‘ভর্তির পর থেকে আমি চিকিৎসা পাচ্ছিলাম না। এ কারণে সকালে (শুক্রবার) একজন চিকিৎসক ওয়ার্ডে এলে আমি তাকে জানাই যে আমার এক বন্ধুও চিকিৎসক। আর এ কথা শুনে ওই চিকিৎসক ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন। তিনি ইন্টার্ন চিকিৎসকদের ডেকে আনেন। ইন্টার্নরা ডাকেন আনসার সদস্যদের। তারা আমার গায়ে হাত তোলেন।’

মারধরের পর উল্টো তার কাছ থেকে মুচলেকা নেওয়ার কথা জানিয়েছেন মামুনুর রশীদ রিপন। তিনি বলেন, ‘মুচলেকার কাগজে লেখা ছিল- রিপন চিকিৎসকদের সঙ্গে অশ্লীল ও অসাদাচরণ করেছেন।’ মুচলেকায় স্বাক্ষর করতে না চাইলে জোর করে টিপসই নেওয়া হয়েছে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

মামুনুর রশীদ রিপন এ বিষয়ে আইনগত পদক্ষেপ নেওয়ার কথা ভাবছেন।

এ বিষয়ে জানতে হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জামিলুর রহমানের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি। হাসপাতালের উপপরিচালক ডা. সাইফুল ফেরদৌস বলেন, তিনি বিষয়টি এখনও জানেন না। এ ব্যাপারে খোঁজখবর নিয়ে দেখবেন।

%d bloggers like this: