রাজশাহীতে আ. লীগ নেতাকে কুপিয়ে খুন, নারী আটক

রাজশাহীর পুঠিয়া উপজেলায় এক আওয়ামী লীগ নেতাকে কুপিয়ে খুন করা হয়েছে; এ ঘটনায় এক নারীকে আটক করেছে পুলিশ।
নিহত আমজাদ হোসেন (৩২) ওই উপজেলার সাধনপুর লেপপাড়ার আয়েন আলীর ছেলে। তিনি শিলমাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদের ৩ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক।

পুঠিয়া থানার পরিদর্শক (তদন্ত) রাকিবুল হাসান জানান, বুধবার রাত ১০টার দিকে ওই গ্রামের একটি রাস্তা থেকে আহত আমজাদকে স্থানীয়রা উদ্ধার করে হাসপাতালে নেওয়ার সময় তার মৃত্যু হয়।

পরকীয়ার জেরে এ হত্যাকাণ্ড সংগঠিত হতে পারে জানিয়ে পরিদর্শক বলেন, হত্যাকাণ্ডের পর পুলিশ রাতেই এক নারীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে। ওই নারীর আত্মীয় মোজাম্মেল হোসেনের (৪৫) বাড়িতে রক্তের দাগ দেখা গেছে; যদিও তা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলার চেষ্টা করা হয়েছে।

“ধারণা করা হচ্ছে মোজাম্মেল হোসেনের বাড়িতে আমজাদকে কুপিয়ে জখম করার পর টেনেহিঁচড়ে বাইরে নিয়ে রাস্তায় ফেলে দেওয়া হয়।”

ঘটনার পর মোজাম্মেল হোসেন ও তার ছেলে জসিম আলী (১৮) বাড়ি থেকে পালিয়ে গেছেন বলে জানান পরিদর্শক রাকিবুল।

পুঠিয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক আব্দুর রাজ্জাক বালেন, “আমজাদকে মৃত অবস্থায় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসা হয়। তার গলায়, বুকে ও পেটে ধারালো অস্ত্রের আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে আমজাদ মারা গেছেন।”

শিলমাড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান সাজ্জাদ হোসেন মুকুল বলেন, মোজাম্মেলের বাড়ির পাশে নিহত আমজাদের একটি মাছের খামার রয়েছে। খামার দেখার জন্য আমজাদ বুধবার রাত ৯টার দিকে বাড়ি থেকে বের হন।

আমজাদ হোসেন ৩ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বলে জানান চেয়ারম্যান সাজ্জাদ।

লাশ ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

%d bloggers like this: