ধর্ষণ করে ভিডিও ধারণ, ছাত্রলীগ সভাপতির নামে মামলা

সাভার সদর ইউনিয়নে এক কিশোরীকে (১৪) ভয়ভীতি দেখিয়ে একাধিকবার ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণের অভিযোগ ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি সোহেল রানা ওরফে ড্যন্সার রানার (২৭) বিরুদ্ধে মামলা করেছে ভুক্তভোগীর পরিবার।

বৃহস্পতিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সাভার থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সহিদুল ইসলাম।

এর আগে, বুধবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) সাভার থানায় মামলাটি দায়ের করে ভুক্তভোগীর মা।

সোহেল রানা সাভার সদর ইউনিয়নের ছাত্রলীগের সভাপতি। সে সদর ইউনিয়নের মজিদপুরের রাজারবাড়ির বাসিন্দা।

ভুক্তভোগী কিশোরী মা বলেন, আমার মেয়েকে ৯ মাস ধরে বিরক্ত করতো। বিভিন্ন সময় অপ্রীতিকর প্রস্তাব দেয়। এতে রাজি না হলে ভয়ভীতি দেখিয়ে আমার মেয়েকে সোহেলের বাসায় নিয়ে গিয়ে কয়েকবার অসামাজিক কাজ করে ছবি তুলে ও ভিডিও করে রাখে। পরে বিষয়টি আমার মেয়ের চালচলন দেখে বুঝতে পেরে তাকে জিজ্ঞেস করলে, সে বিস্তারিত বলে। পরে আমি থানায় মামলা করি।

সাভার থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সহিদুল ইসলাম বলেন, ছেলেটি মেয়েটিকে দীর্ঘদিন যাবত সাভারের মজিদপুরের আলমগীর হোসেনের বাসায় নিয়ে এসে অসামাজিক কাজ করতো। বিষয়টি মেয়েটির তার পরিবারকে জানাতে চাইলে তাকে হুমকি দিয়ে বার বার ধর্ষণ করতো। পরে গতকাল ধর্ষণের একটি মামলা করা হয়েছে। মেয়েটিকে হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। সে ছাত্রলীগের সভাপতি কি-না তা জানি না। তাকে গ্রেপ্তারে অভিযান চলছে।

এ বিষয়ে সাভার উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি আতিকুর রহমান বলেন, আমরা বিষয়টি ইতোমধ্যে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগকে জানিয়েছি। এ ব্যাপারে শতভাগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

%d bloggers like this: