Home > সারাদেশ > দুই যুবলীগ কর্মীর গুলির বদলা গুলি!

দুই যুবলীগ কর্মীর গুলির বদলা গুলি!

নিজস্ব প্রতিনিধি
জনতার বাণী,
মুন্সীগঞ্জ: মুন্সীগঞ্জে
যুবলীগের একই গ্রুপের দুজনের
পূর্ব বিরোধের জের ধরে এক
যুবলীগকর্মী গুলিবিদ্ধ
হয়েছেন।
গুলিবিদ্ধ যুবলীগ কর্মী
শাহজালাল মিজিকে (২৩)
আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা
মেডিকেল কলেজ
হাসপাতালে স্থানান্তর
করা হয়েছে।
বুধবার দুপুর ১২টার দিকে
মুন্সীগঞ্জ শহরের মানিকপুর
গ্রামে এ গুলির ঘটনা ঘটে।
গুলিবিদ্ধ শাহজালাল ও
হামলাকারী অপর যুবলীগের
কর্মী অঙ্কনের বিরুদ্ধে
মুন্সীগঞ্জ থানায় হত্যা ও
অস্ত্রসহ ডজনখানেক মামলা
রয়েছে। এদের মধ্যে
গ্রেপ্তার হয়ে শহরের দক্ষিণ
কোর্টগাঁও গ্রামের
গুলিবিদ্ধ শাহজালাল
সম্প্রতি জামিনে বের
হয়েছেন।
জানা গেছে, মুন্সীগঞ্জ
আওয়ামী লীগে সভাপতি
মোহাম্মদ মহিউদ্দিন ও
স্থানীয় সংসদ সদস্য
অ্যাডভোকেট মৃণাল
কান্তি দাস গ্রুপের
বিরোধের জের ধরে গত
বছরের ৩ সেপ্টেম্বর রাত
পৌনে ১১টার দিকে শহরের
মানিকপুরস্থ জেনারেল
হাসপাতাল সংলগ্ন সড়কে
যুবলীগ কর্মী অঙ্কন গুলিবিদ্ধ
হন। অঙ্কন দীর্ঘদিন ঢাকা
মেডিকেল কলেজ
হাসপাতালে চিকিৎসা
নেন।
এ ঘটনায় অঙ্কনের বাবা
শহরের মানিকপুর গ্রামের
সিরাজুল ইসলাম বাদী হয়ে
পরদিন ৪ সেপ্টেম্বর
ছাত্রলীগ নেতা আবু বক্কর
সিদ্দিক মিথুনকে আসামি
করে মামলা দায়ের করেন।
মামলায় অজ্ঞাত আরো ২-৩
জনকে আসামি করা হয়।
এর আগের দিন ২ সেপ্টেম্বর
রাত ৯টায় সংসদ সদস্য
অ্যাডভোকেট মৃণাল
কান্তি দাস সমর্থকদের ওপর
হামলা ও ঈদ শুভেচ্ছার
ফেস্টুন নষ্ট করার ঘটনায় আবু
বক্কর সিদ্দিক মিথুন বাদী
হয়ে অঙ্কনসহ নয়জনকে
আসামি করে মুন্সীগঞ্জ
থানায় মামলা দায়ের
করেন। অঙ্কন ও শাহজালাল
উভয়েই জেলা আওয়ামী
লীগ সভাপতি মোহাম্মদ
মহিউদ্দিন পক্ষের কর্মী।
এদিকে, অঙ্কন সুস্থ হয়ে
বাড়ি ফেরার পর জানতে
পারেন তাকে যে অস্ত্র
দিয়ে গুলি করা হয়েছিল
সেটি ছিল শাহজালালের।
এরপর তারা দুজন একই গ্রুপের
হলেও প্রতিশোধের সুযোগ
খুঁজতে থাকেন অঙ্কন।
সিনিয়র সহকারী পুলিশ
সুপার (সদর) ইমদাদ হোসাইন
জানান, পুর্ববিরোধ,
আধিপত্য বিস্তার কিংবা
ভাগাভাগি নিয়ে অঙ্কন ও
তার ভাই বাবুর গ্রুপের
হামলায় শাহজালাল
গুলিবিদ্ধ হয়েছে বলে
প্রাথমিকভাবে ধারণা
করা হচ্ছে।
তিনি বলেন, অপরাধীদের
গ্রেপ্তারে অভিযান
চলছে। কোনো অস্ত্রধারী ও
সন্ত্রাসীকে ছাড় দেয়া
হবে না।

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী
শিরোনামঃ