Home > শিক্ষাঙ্গন > পরীক্ষা বন্ধ করে দেয়ার হুমকি রাবি ছাত্রলীগ নেতার

পরীক্ষা বন্ধ করে দেয়ার হুমকি রাবি ছাত্রলীগ নেতার

রা.বি. প্রতিনিধি: পরীক্ষায় অংশ নিতে না দিলে বিভাগের সকল পরীক্ষা বন্ধ করে দেয়ার হুমকি দিয়েছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শরিফুল ইসলাম সাদ্দাম। সোমবার দুপুর ১২টার দিকে ইনফরমেশন সায়েন্স এন্ড লাইব্রেরী ম্যানেজমেন্ট বিভাগে এ ঘটনা ঘটে।

বিভাগ সূত্রে জানা যায়, শরিফুল ইসলাম সাদ্দাম ২০১০-১১ শিক্ষাবর্ষে ইনফরমেশন সায়েন্স এ্যান্ড লাইব্রেরী ম্যানেজমেন্ট বিভাগে প্রথম বর্ষে ভর্তি হন। প্রথম বর্ষ শেষ করার পর তিনি পরপর দুই বছর দ্বিতীয় বর্ষের চূড়ান্ত পরীক্ষায় অংশ নেননি। পরের বছর দ্বিতীয় বর্ষের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলেও ২০১৫ সালে তৃতীয় বর্ষের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে পারেননি। বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়ম অনুযায়ী নির্ধারিত ছয় বছরের মধ্যে স্নাতক (সম্মান) শেষ করতে না পারলে তার ছাত্রত্ব বাতিল হয়ে যায়।

প্রত্যক্ষদর্শী ও বিভাগ সূত্র জানায়, সোমবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ছাত্রলীগ নেতা সাদ্দাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রাশেদুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক খালিদ হাসান বিপ্লবকে নিয়ে বিভাগে যান। সেখানে ছাত্রলীগ নেতারা সাদ্দামকে পরীক্ষায় অংশগ্রহনের সুযোগ দেওয়ার জন্য বিভাগের সভাপতিকে অনুরোধ করেন। সভাপতি তা নাকোচ করে দেন। এতে শরিফুল ক্ষিপ্ত হয়ে বিভাগের সকল পরীক্ষা বন্ধ করে দেওয়ার হুমকি দেন।

জানতে চাইলে বিভাগের সভাপতি ড. পার্থ বিপ্লব রায় বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের নিয়ম অনুযায়ী ছয় বছরের মধ্যে শরিফুল চার বছর মেয়াদী অনার্স কোর্স সম্পন্ন করতে ব্যর্থ হয়েছে। ফলে তার ছাত্রত্ব বাতিল হয়ে গেছে। তবুও সে ছাত্রলীগ নেতাকর্মী নিয়ে বিভাগে এসে পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার সুযোগ দিতে চাপ দেয়। তবে নিয়ম ভেঙে তাকে পরীক্ষা অংশ নিতে সুযোগ দেওয়ার এখতিয়া নেই জানালে সে বিভাগের সকল পরীক্ষা বন্ধ করে দেওয়ার হুমকি দেয়।

তবে পরীক্ষা বন্ধ করার হুমকির বিষয়টি অস্বীকার করে ছাত্রলীগ নেতা শরিফুল ইসলাম সাদ্দাম বলেন, ‘২০১৫ সালের তৃতীয় বর্ষের পরীক্ষা দেওয়ার সময় বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মাহবুবুল ইসলাম ৩০৩ ও ৩০৪ কোর্সের খাতা কেড়ে নেন। ওই দুই কোর্সে আমি ফেল করি। মাহবুবুল স্যার জামায়াত-শিবিরের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত। আমি ছাত্রলীগ করায় ষড়যন্ত্রমূলক এই কাজ করেন তিনি। ফলে আমার সিজিপিএ কম হওয়ায় চতুর্থ বর্ষের পরীক্ষায় অংশ নিতে পারছি না।’

জানতে চাইলে সহকারী অধ্যাপক মাহবুবুল ইসলাম বলেন, ‘এ বিষয়ে বিভাগের সভাপতি ভালো বলতে পারবেন। আপনি উনার সঙ্গে যোগাযোগ করেন।’

বিভাগের সভাপতি ড. পার্থ বিপ্লব রায় বলেন, ‘বিভাগে প্রথম, দ্বিতীয় ও তৃতীয় বর্ষের পরীক্ষা চলছে। আগামীকাল (মঙ্গলবার) থেকে চতুর্থ বর্ষের পরীক্ষা শুরু হওয়ার কথা রয়েছে। আজ সাদ্দাম কিছু নেতাকর্মীদের নিয়ে বিভাগে এসে চতুর্থ বর্ষের পরীক্ষায় অংশ নেয়ার অনুরোধ করে। কিন্তু ছাত্রত্ব না থাকায় নিয়মভঙ্গ করে তাকে পরীক্ষা দিতে দেয়ার কোন এখতিয়ার আমাদের নেই। বিষয়টি জানালে সাদ্দাম বিভাগের পরীক্ষা বন্ধ করে দেয়ার হুমকি দেয়।’
চতুর্থ বর্ষের পরীক্ষা সঠিক সময়ে হবে কি না জানতে চাইলে বিভাগের সভাপতি বলেন, ‘সিডিউল অনুযায়ী পরীক্ষা হবে।’

রাবি ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি রাশেদুল ইসলাম রাঞ্জু বলেন, রাবি ছাত্রলীগে সাদ্দামের অনেক ত্যাগ আছে।তই তার বিষয়ে আমরা সুপারিশ করতে গিয়েছিলাম। কিন্তু বিভাগের সভাপতি আমাদের সঙ্গে খারাপ ব্যবহার করে বের করে দেয়। আমাদের কোন কথায় তারা ভালোভাবে শোনেনি।

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ