Home > খেলাধুলা > রাজশাহীর আশা টিকিয়ে রাখলেন কাজী অনিক

রাজশাহীর আশা টিকিয়ে রাখলেন কাজী অনিক

কাজী অনিকের বলটা ঠিকমত খেলতে পারলেন না নাঈম হাসান। ‘চুরি’ করে লেগ বাই রান নিতে চেয়েছিলেন অপরপ্রান্তে থাকা তাসকিন আহমেদ।

কিন্তু ক্ষিপ্র গতিতে দৌড়ে বল আন্ডারআর্ম করে স্ট্যাম্প ভাঙলেন তৃতীয় ওভার থেকে মুশফিকুর রহিমের পরিবর্তে কিপিং করা জাকির হাসান।

তাতেই জয় নিশ্চিত রাজশাহী কিংসের। ১৫৭ রানের পুঁজি নিয়ে রাজশাহী ৩৩ রানে হারাল চিটাগং ভাইকিংসকে। জয় নিশ্চিত হওয়ায় পুরো দলের মুখের হাসি বেশ চড়া। কারণ এ ম্যাচ জয়ে বিপিএলের শেষ চারের আশা এখনও টিকে আছে দলটির। শেষ দুটি ম্যাচ জিতলে এবং রান রেট ভালো হলে গতবারের রানার্সআপ দলটিকে দেখা যাবে শেষ চারে।

স্যামি, রাইটসহ সকল ক্রিকেটার বেশ উল্লসিত। কিন্তু তাদের উল্লাস কাজী অনিককে ঘিরে। ১৯ বছর বয়সি এ ক্রিকেটার প্রথমবারের মতো বিপিএল খেলতে নেমেই বল হাতে দ্যুতি ছড়িয়ে রাজশাহীকে জিতিয়েছেন। মাত্র ১৭ রানে ৪ উইকেট নিয়ে রাজশাহীর ম্যাচের অঘোষিত নায়ক যুব দলের এ পেসার। তার দুর্দান্ত বোলিংয়ে লড়াকু পুঁজি নিয়ে দল জিতেছে সহজেই।

১৫৮ রানের লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নেমে এনামুল হক বিজয়ের ২৩ ও স্টিয়ান ভন জিলের ২৭ রানে ভালো জবাব দিচ্ছিল চিটাগং। কিন্তু বড় এ দুই উইকেট নিয়ে দলের মিডল অর্ডার গুড়িয়ে দেন বাঁহাতি এ পেসার। পরবর্তীতে আরও দুই উইকেট নিয়ে লেজটাও কেটে দেন। শেষ ওভারে হয়ত আরও এক উইকেটের প্রত্যাশায় ছিলেন তরুণ পেসার। কিন্তু জাকিরের নিখুঁত থ্রোতে স্বপ্নভঙ্গ তার। তবে প্রথমবারের মতো টি-টোয়েন্টি খেলতে নেমেই দারুণ শুরু ১৯ বছর বয়সি পেসারের। আরেক বাঁহাতি পেসার মুস্তাফিজুর রহমান পেয়েছেন ২টি উইকেট। ১টি করে উইকেট নেন সামি ও উসামা মির।

এর আগে ড্যারেন স্যামির ২৫ বলে ৪০ রানের ইনিংসে লড়াকু পুঁজি পায় রাজশাহী। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩১ রান করেন মুশফিকুর রহিম। ২২ বলে ৪ চার ও ১টি ছক্কায় মুশফিক ইনিংসটি সাজান। ৩০ বলে ৩০ রান করে দলের পুঁজিতে বড় অবদান রাখেন জেমস ফ্রাঙ্কলিন। ইনিংসের শুরুতে লুক রাইট ২১ বলে করেন ২৫ রান। চিটাগংয়ের সেরা বোলার লুইস রিচ। ৩৩ রানে ৩ উইকেট নেন বাঁহাতি এ পেসার।

দশ ম্যাচে ৪ জয়ে রাজশাহীর পয়েন্ট ৮। সমান সংখ্যক ম্যাচে চিটাগংয়ের পয়েন্ট মাত্র ৫।

আপনার ওয়েবসাইট তৈরি করতে ক্লিক করুন........
Ads by জনতার বাণী

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*

শিরোনামঃ